ঢাকায় অনুষ্ঠিত হলো রোবট ইনোভেটর’স মিটআপ

প্রকাশিত: জানুয়ারি ৯, ২০২২; সময়: ১১:৫৬ am |

পদ্মাটাইস ডেস্ক : রাজধানী ঢাকায় ‘বাংলাদেশ ইনোভেশন ফোরাম’-এর আয়োজনে অনুষ্ঠিত হয়ে গেল “রোবট ইনোভেটর’স মিটআপ”। উদ্ভাবনপ্রিয় প্রযুক্তিবিদদের মিলনমেলায় পরিণত হয় আয়োজনটি।

শনিবার (৮ জানুয়ারি) ঢাকায় এই আয়োজন হয়। এছাড়াও এই আয়োজনে ২৩তম আন্তর্জাতিক রোবট অলিম্পিয়াডে বিজয়ী বাংলাদেশী দলদের সংবর্ধনা প্রদান করে ‘বাংলাদেশ ইনোভেশন ফোরাম’।

আয়োজকরা জানান, মূলত বাংলাদেশে রোবট নিয়ে যারা কাজ করছেন তাদের এক প্ল্যাটফর্মে এনে নিজেদের লক্ষ্য নির্ধারণ এবং আগামী দিনের করণীয় নির্ধারণ করতেই এই উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। সারা বাংলাদেশের বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের শতাধিক শিক্ষার্থী এবং রোবটিক্স এক্সপার্ট হিসেবে প্রায় ১৫ জন প্রযুক্তিবিদ এই আয়োজনে উপস্থিত ছিলেন।

বাংলাদেশ কম্পিউটার সমিতির সভাপতি শাহীদ উল মুনিরের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন বাংলাদেশ রোবট অলিম্পিয়াড কমিটির সভাপতি এবং ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের রোবটিক্স অ্যান্ড মেকাট্রনিক্স প্রকৌশল বিভাগের অধ্যাপক ড. লাফিফা জামাল।

তিনি তার প্রবন্ধে আগামী দিনে রোবট কীভাবে প্রযুক্তি দুনিয়ার আমূল পরিবর্তন আনবে সেটা নিয়ে আলোকপাত করেন এবং কীভাবে এই খাতে শিক্ষার্থীরা নিজেদের আরও সম্পৃক্ত করতে পারে সেই ব্যাপারে ধারণা দেন। প্রবন্ধে তিনি বলেন, আগামীর শিল্পবিপ্লবে মুখ্য ভূমিকা রাখবে রোবট।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের যুগ্মসচিব নাহিদা সুলতানা মল্লিক। তিনি তার বক্তব্যতে বলেন, রোবট আমাদের প্রাত্যহিক জীবনে নিত্য প্রয়োজনীয় হয়ে উঠছে। ফ্রন্ট্রিয়ার টেকনোলজি হিসেবে আমাদের রোবটিক্সের ব্যাপারে আরও উদ্যোগী হতে হবে। ডিজিটাল ইকোনমি ও নলেজ বেইজড সোসাইটি গড়ে তুলতে হলে এমন আয়োজনের বিকল্প নেই বলে অভিমত দেন তিনি।

তিনি বলেন, আগামী দিনে রোবটের মাধ্যমে নানান উদ্ভাবন পৃথিবীতে নতুন নতুন বিস্ময় তৈরি করবে।

আয়োজনের দ্বিতীয় অংশে ২৩তম আন্তর্জাতিক রোবট অলিম্পিয়াডে পদকপ্রাপ্ত বাংলাদেশি দলসমূহকে সংবর্ধিত করে বাংলাদেশ ইনোভেশন ফোরাম। বিজয়ীদের হাতে সেই সময় সম্মাননা স্মারক দেওয়া হয়।

বাংলাদেশ ইনোভেশন ফোরামের প্রতিষ্ঠাতা আরিফুল হাসান অপু আয়োজন সম্পর্কে বলেন, চতুর্থ শিল্পবিপ্লবের সময়ে সারা পৃথিবী রোবট প্রযুক্তিতে ঝুঁকছে। তাই আমাদের উদ্ভাবকরা কী কী রোবট নিয়ে কাজ করলে এবং কীভাবে আগালে নিজেদের প্রস্তুত করতে পারে সেই সম্পর্কে সম্যক ধারণা দিতেই আমরা এমন উদ্যোগ নিয়েছি। আগামীতে আমরা সারা বাংলাদেশে রোবট নিয়ে যারা কাজ করছেন এমন সবাইকে আমাদের সঙ্গে সংযুক্ত করতে চাই।

এছাড়াও আয়োজনটিতে ইন্ডাস্ট্রি এক্সপার্টদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন প্রাইডসিস আইটির ফাউন্ডার অ্যান্ড সিইও মনোয়ার ইকবাল, টেক টেরেইন আইটি লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক আতিকুর রহমান সেলিম, কিউটেক সল্যুশন লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মোশাররফ রুবেল, স্ট্রেইটের সিটিও এবং কো-ফাউন্ডার জুবায়ের আল বিল্লাল খান, জাপান-বাংলাদেশ রোবটিক্স অ্যান্ড অ্যাডভান্সড টেকনোলোজি রিসার্চ সেন্টারের প্রতিষ্ঠাতা ও চেয়ারম্যান ইঞ্জিনিয়ার মো. ফারহান ফেরদৌস, কনফিগভিআর ও কনফিগআরবটের প্রতিষ্ঠাতা ও সিইও রুদমিলা নওশিন এবং এম এম এস গ্লোবাল সার্ভিসেসের প্রতিষ্ঠাতা ও ব্যবস্থাপনা পরিচালক মাহমুদ মুসা।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
উপরে