পুরনো আইফোনে গতি বাড়ানোর ‘বিস্ময়কর’ উপায়

প্রকাশিত: আগস্ট ২৮, ২০২১; সময়: ১১:১১ am |

পদ্মাটাইমস ডেস্ক : আইফোন ব্যবহারকারীদের ফোন হঠাৎ করে স্লো হয়ে যাচ্ছে বা ধীরগতিতে কাজ করছে এমন অভিযোগ করে থাকেন। এমন অভিযোগ ওঠার পর আইফোন নির্মাতা প্রতিষ্ঠান অ্যাপল স্বীকার করেছে যে হ্যাঁ, তারা ইচ্ছে করেই পুরোনো মডেলের আইফোনের গতি কমিয়ে দিচ্ছে।

যদিও অ্যাপলের দাবি, এটা তারা করেছে আইফোনকে টিকিয়ে রাখার জন্যই। সম্প্রতি একটি নতুন রিপোর্টে জানা গেছে, অ্যাপল ফ্রান্সে আইফোনের গতি ধীর হয়ে যাওয়ার বিষয়টি নিয়ে একটি মামলায় হেরেছে। মামলায় হেরে ফ্রান্স রিজিওনের আইফোনের পারফর্মেন্স ম্যানেজমেন্ট বন্ধ করে দিয়েছে এই টেক জায়ান্ট। ফলে এই আইফোনগুলো আরও দ্রুত কাজ করতে পারে। শুধু তাই নয়, এর আগেই ব্যাটারির দামও অর্ধেক করেছে অ্যাপল।

চীনা ওয়েবসাইট মাইড্রাইভারস’র এক প্রতিবেদনে বলা হয়, যদি আইফোনের সেটিংসে দেশ হিসেবে ‘ফ্রান্স’ নির্বাচন করা হয়, তবে পুরোনো ফোনগুলোতে পারফরম্যান্স ম্যানেজমেন্ট সুবিধাটি স্বয়ংক্রিয়ভাবে নিষ্ক্রিয় হয়ে যায়। ফলে ডিভাইসটির গতিও বেড়ে যায়। মাইড্রাইভারস এর ওয়েবসাইটে আইফোনের অবস্থান বদলে পারফর্মেন্সের উন্নতি ধরা পড়েছে অবস্থান আনতুতু বেঞ্চমার্কে। এ কারণ তারা বলছে, এর ব্যাটারি বেশি পুরোনো হয়ে গেলে ফোনটা হঠাৎ বন্ধ হয়ে যেতে পারে। তার পক্ষে আর আগের মতো দ্রুতগতিতে কাজ করা অসম্ভব হয়ে পড়ে।

২০১৭ সালে পুরনো আইফোনের গতি কমে যাওয়ার বিষয়টি প্রথম আলোচনায় আসে। তখন অনেকেই অ্যাপলের সমালোচনা করেন। সান ফ্রান্সিসকোর একজন আইফোন ব্যবহারকারী বলছিলেন- ‘এতে কি অবাক হবার কিছু আছে? বোঝাই যায়, নতুন মডেলের পণ্য কেনানোর জন্য এটা একটা কৌশল।’

প্রযুক্তি সংক্রান্ত সাংবাদিক রুপার্ট গুডউইন বলেছেন, ‘অ্যাপল এখন পরিষ্কার করেছে যে তারা এটা করছে যাতে আপনার ফোন দীর্ঘ সময় চালু থাকে তা নিশ্চিত করার জন্য। প্রকৌশলগত দিক থেকে এ কথা ঠিক আছে। কিন্তু কথাটা হলো ব্যাটারি কমে গেলে আমরা কি ফোনের কাজ সীমিত করে দেব নাকি একটা নতুন ব্যাটারি নেব?’

তিনি বলেন, ‘অ্যাপল যে ভুলটা করেছে তারা ব্যাপারটা আগে বলেনি, লোকে জিনিসটা ধরে ফেলার পরই তারা স্বীকার করেছে। তারা যদি কোনভাবে জানিয়ে দিতো যে আপনার ফোনের ব্যাটারির ক্ষমতা কমে যাচ্ছে, তাই আপনি সিদ্ধান্ত নিন যে আপনি নতুন ব্যাটারি কিনবেন, নাকি আপনার ফোনকে সচল রাখতে এটাকে স্লো করে দেয়াটা মেনে নেবেন। এটা স্পষ্টভাবে আগে থেকে না বলাটা তাদের ভুল হয়েছে।’

এদিকে করোনা মহামারির এই সময়ে এবারও ভার্চুয়াল অনুষ্ঠানের মাধ্যমে আইফোন ১৩ অবমুক্ত করা হবে। এবারের আয়োজনে অ্যাপল ব্যবহার করছে দ্রুতগতির এ১৫ চিপ , ছোট নচ, এবং উচ্চ ক্ষমতাসম্পন্ন ক্যামেরা সেটাপ। বিভিন্ন গণমাধ্যমের প্রকাশিত খবরের ভিত্তিতে বলা যায়, এবারও আইফোন ১২-এর মতো চারটি মডেলের লাইনআপে আসছে আইফোন ১৩।

নতুন আইফোনের এই চারটি মডেল হলো- আইফোন ১৩, আইফোন ১৩ প্রো, আইফোন ১৩ প্রো ম্যাক্স এবং আইফোন ১৩ মিনি। এর মধ্যে আইফোন ১৩ প্রো-তে ১ টেরাবাইট মেমোরি থাকার সম্ভাবনা আছে। এ ছাড়া সর্বোচ্চ ১২০ মেগাহার্টজ পর্যন্ত স্ক্রিনের রিফ্রেশ রেট থাকতে পারে।

আইফোন ১৩ তে ব্যবহারকারীদের বহুদিনের দাবি পূরণ হচ্ছে। তা হচ্ছে এর নচ। আইফোন ১২ সিরিজের এর নচ বড় এই কথা অনেককেই বলতে শোনা গেছে। তবে আইফোন ১৩ তে এসে অ্যাপল তাদের ফোনের নচের সাইজ কমিয়েছে। এই ছোট নচ ভিডিও দেখার সময় বাড়তি সুবিধা দেবে বলে ধারণা করছেন টেক গবেষকরা।

ম্যাগসেফ চার্জিংয়ের ক্ষেত্রেও আসছে পরিবর্তন। নতুন আইফোন ম্যাগসেফ চার্জিংয়ের ক্ষমতা আরও বৃদ্ধি পেয়েছে। ম্যাগসেফ ওয়ালেটের সঙ্গে ব্যবহারেও পাওয়া যাবে বাড়তি সুবিধা।

আইফোনের নতুন চারটি মডেলের চারটিতেই ব্যাটারি বাড়ানো হবে বলে জানা গেছে। ধারণা করা হচ্ছে, আইফোন ১৩ মিনিতে ৭ শতাংশ, আইফোন ১৩-এ ৯ শতাংশ, আইফোন ১৩ প্রো-তে ৯ শতাংশ, এবং আইফোন ১৩ প্রো ম্যাক্স এ ১৫ শতাংশ বাড়ানো হতে পারে বলে জানিয়েছে নির্ভরযোগ্য ইউটিউব চ্যানেল অ্যাপল এক্সপ্লেইনড।

  • 2
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
উপরে