গিনেস ওয়ার্ল্ড রেকর্ড গড়ায় পাবনার খুদে ফুটবলার রুদ্রকে সংবর্ধনা

প্রকাশিত: মে ৯, ২০২২; সময়: ৯:২৩ am |
খবর > খেলা

এম এ আলিম রিপন, সুজানগর : ফুটবলে গিনেস ওয়ার্ল্ডে রেকর্ড গড়ায় পাবনার খুদে ফুটবলার ঈসা আরাফাত রুদ্রকে সংবর্ধনা প্রদান করা হয়েছে। পাবনা সদর উপজেলার চরতারাপুর ইউনিয়ন পরিষদের উদ্যোগে রবিবার রাতে তাকে এ সংবর্ধনা প্রদান করা হয়।

চরতারাপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান সিদ্দিকুর রহমান খানের সভাপতিত্বে ও ইউপি সচিব আসাদুজ্জামানের সঞ্চালনায় সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন পাবনা-৫ আসনের সংসদ সদস্য ও জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক গোলাম ফারুক প্রিন্স।

বিশেষ অতিথির বক্তব্য দেন পাবনা সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও সদর উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি আলহাজ মোশারফ হোসেন, পাবনা পৌরসভার মেয়র শরীফ উদ্দিন প্রধান, চরতারাপুর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি জালাল উদ্দিন বিশ্বাস, সহ সভাপতি সাইদুর রহমান বাদশা জোয়াদ্দার, আব্দুল ওহাব প্রামানিক,চরতারাপুর ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান নিজাম উদ্দিন প্রাং, ফুটবলে গিনেস ওয়ার্ল্ডে রেকর্ড গড়া খুদে ফুটবলার ঈসা আরাফাত রুদ্র এর পিতা ও ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের কার্যকরী সদস্য আব্দুস সামাদ জানু।

আমন্ত্রিত অতিথির বক্তব্য রাখেন তারাবাড়িয়া আবু বকর সিদ্দিকী আলিম মাদ্রাসার অধ্যক্ষ হাবিবুল্লাহ ও বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগ কেন্দ্রীয় কমিটির উপ দপ্তর সম্পাদক দেলোয়ার শাহজাদা।

উল্লেখ্য ঈসা আরাফাত রুদ্র মোস্ট বাস্কেটবল থ্রো অ্যান্ড ক্যাচইন থার্টি সেকেন্ড নামের প্রতিযোগিতায় বিশ্ব রেকর্ড ভেঙেছেন। তিনি করেছেন ৩০ সেকেন্ডে ২৭ বার থ্রো অ্যান্ড ক্যাচ। এর আগের বিশ্ব রেকর্ড ছিল ৩০ সেকেন্ডে ১৪ বার থ্রো অ্যান্ড ক্যাচ।কৃতি এই ফুটবল ফ্রিস্টাইলার-এর বাড়ি পাবনা সদর উপজেলার চরতারাপুর ইউনিয়নের তারাবাড়িয়া গ্রামে। বাবা আব্দুস সামাদ জানু জোয়ার্দার ও মা সেলিনা বেগম রুবি।

রুদ্র বর্তমানে ঢাকার শহীদ পুলিশ স্মৃতি কলেজে বিজ্ঞান বিভাগের অধ্যায়নরত। এই বিশ্ব রেকর্ড গড়ার জন্য তিনি প্রতিদিন ৪ ঘণ্টা অনুশীলন করতেন।রুদ্র জানান, ২০২১ সালে রমজানের মধ্যে মোস্ট বাস্কেটবল থ্রো অ্যান্ড ক্যাচইন থার্টি সেকেন্ড নামের একটি রেকর্ড দেখি। এটা দেখার পর আমি ২২ সেপ্টেম্বর ২০২১ সালের রেকর্ডের জন্য আবেদন করি। আমি একজন ফুটবল ফ্রিস্টাইলার।

এ বিষয়টি নিয়ে সংকল্প করি এবং সে অনুযায়ী কঠোর পরিশ্রম শুরু করি। ১৪ অক্টোবর ২০২১ সালে আবেদনটি অনুমোদন হয়। তারপর আমাকে সংস্থাটির পক্ষ থেকে মেইলে কিছু গাইডলাইন দেওয়া হয়। সে অনুযায়ী ১৪ নভেম্বর ২০২১ সালে ভিডিও চিত্র এবং প্রয়োজনীয় কাগজপত্র আমি সংস্থায় পাঠিয়ে দিই।

২০২২ সালের ১৫ ফেব্রুয়ারি গিনেস ওয়ার্ল্ড রেকর্ডে তাঁর নাম লিপিবদ্ধ হয়। রুদ্র আরো জানান, গত২৭ মার্চ তিনি গিনেস ওয়ার্ল্ড রেকর্ড কর্তৃপক্ষ থেকে সনদপত্র হাতে পেয়েছেন। এজন্য রুদ্র গিনেস ওয়ার্ল্ড রেকর্ড কর্তৃপক্ষকে ধন্যবাদ জানান এবং তাঁদের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন। রুদ্র ভবিষ্যতে বিশ্ব ফ্রিস্টাইলার ফুটবল চ্যাম্পিয়নশিপে অংশ নিতে আগ্রহী।

এই খুদে ফুটবল ফ্রিস্টাইলার প্রথমে চট্টগ্রামের আশরাফুল ইসলাম জোহানের ফ্রিস্টাইলার দেখে অনুপ্রাণিত হয়েছিলেন। এদিকে রুদ্র এর এমন অর্জনে খুশি তার পরিবার ও এলাকাবাসী।

রুদ্রর বাবা বলেন, রুদ্র যেন আরো অনেক ভালো কিছু অর্জন করে বিশ্বের দরবারে পাবনা তথা বাংলাদেশের মুখ আবারো উজ্জল করতে পারে এ জন্য সকলের নিকট দোয়া কামনা করেন।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
উপে