বাংলাদেশের বড় স্বপ্নের লড়াইয়ের শুরুতে লঙ্কা বাধা

প্রকাশিত: অক্টোবর ২৪, ২০২১; সময়: ৯:৪৩ am |

পদ্মাটাইমস ডেস্ক : শারজাহ স্টেডিয়ামের গেট পেরোতেই মনে হলো আইসিসি যেন বেহুলা-লখিন্দরের বাসর ঘর সাজিয়ে রেখেছে! কোভিড নামের জুজুতে এতটাই কড়া নিরাপত্তা যে ম্যাচের আগের দিন মুশফিক-মাহমুদউল্লাহদের অনুশীলন দেখার সুযোগও থাকল না।

এটা করা যাবে না, ওটা করলেন কেন-আইসিসির নারী মিডিয়া ম্যানেজার যেন কড়া হেড মাস্টার। সংবাদ সম্মেলন শেষ হতে প্রেস বক্সে গিয়ে বসতেই বলে উঠলেন-এখানে আর এক মুহূর্তও থাকা যাবে না!

তবে তাতে যেন একটু স্বস্তিই হলো মাহমুদউল্লাহ রিয়াদের। সাংবাদিকদের মুখোমুখি আপাতত হওয়ার ইচ্ছে যেন নেই তার। বিশ্বকাপের সুপার টুয়েলভে নিজেদের প্রথম ম্যাচের আগে বড্ড মন খারাপ অধিনায়কের-এমন খবরও উড়ছে দুবাই-শারজার বাতাসে। চাপা ক্ষোভ থেকে অবশ্য ভালো কিছুই হয়েছে গত দুই ম্যাচে। ওমান-পাপুয়া নিউগিনিকে হারিয়ে দল পেয়ে গেছে সুপার টুয়েলভের টিকিট।

এবার সেরা ১২-এর লড়াইয়ে গ্রুপ ওয়ানের আজ (রোববার) বাংলাদেশের প্রতিপক্ষ শ্রীলঙ্কা। যারা মাহমুদউল্লাহদেরই মতো বাছাই পর্বের বৈতরণী পার হয়ে পেয়েছে আসল বিশ্বকাপের টিকিট। শারজাহ ক্রিকেট স্টেডিয়ামে ম্যাচটি শুরু হবে স্থানীয় সময় দুপুর ২টায়। মানে বাংলাদেশে তখন বিকাল ৪টা।

বিশ্বকাপের মূল পর্বে এবার লড়াই ১২টি দলের। এখানে দুই গ্রুপে ভাগ হয়ে লড়াই। যেখান থেকে সেমি-ফাইনালে যাবে মাত্র ৪টি দল। বাকি ৮টি দল ধরবে দেশের পথ। সেমির লড়াইয়ে উঠতে বাংলাদেশ পাচ্ছে ৫ ম্যাচ। যার প্রথমটিতেই প্রতিপক্ষ শ্রীলঙ্কা। ‘এই কন্ডিশন আমাদেরই মতো। শারজার উইকেট কিছুটা ঢাকার মতো মনে হচ্ছে আমার। বেলা দুইটায় খেলার একটা সুবিধা হলো, শিশিরের কোনো প্রভাব থাকছে না!’

শারজায় দুপুরে ম্যাচ মানেই নিশ্চিত করে বাড়তি চ্যালেঞ্জ। প্রচণ্ড রোদে ডিম সিদ্ধ হয়ে যাওয়ার মতো অবস্থা। এই গরমে খেলা চালিয়ে যাওয়া অবশ্য কঠিন দুই দলের জন্যই। তবে বাংলাদেশ এটা ভেবে স্বস্তি পেতে পারে শারজাহর উইকেট অনেকটা মিরপুরের শেরেবাংলার মতো। ভুল শুনেননি হোম অব ক্রিকেটের মতোই ধীরগতির, নিচু বাউন্সের। এখানে রান তুলতে সংগ্রাম করতে হবে ব্যাটসম্যানদের।

যেমনটা মিরপুরের উইকেটে হয়। ডেকে এনে নিউজিল্যান্ড-অস্ট্রেলিয়াকে হারানোর সেই তাজা স্মৃতি যখন সঙ্গী তখন শারজার উইকেট দেখে খুশি তো হবেনই রাসেল ডমিঙ্গো। বাংলাদেশের হেড কোচ ডমিঙ্গোর, শনিবার সংবাদ সম্মেলনে হাসি মুখে বলছিলেন ‘এই কন্ডিশন আমাদেরই মতো। শারজার উইকেট কিছুটা ঢাকার মতো মনে হচ্ছে আমার। বেলা দুইটায় খেলার একটা সুবিধা হলো, শিশিরের কোনো প্রভাব থাকছে না!’

চোখে-মুখে হাসির ঝিলিক খেলে যাওয়াটাই তো স্বাভাবিক। ডমিঙ্গো থামলেন না, মুখের হাসি ধরে রেখে বলে গেলেন, ‘অন্য দলগুলো রাতের শিশির নিয়ে চিন্তিত। আমাদের এনিয়ে কোনো ভাবনা নেই! আমাদের স্পিনাররা ম্যাচে প্রভাব রাখতে পারবে। এটা নিয়েও খুশি। প্রতিপক্ষ নিয়ে বলতে গেলে, বিশ্বকাপে যেকোনো দল যে কাউকে হারাতে পারে।’

শেষ দুটি ম্যাচে দারুণ জয় পেলেও পাওয়ার প্লে নিয়ে দুশ্চিন্তা তো আছেই। কিন্তু একটা পরিসংখ্যান নিশ্চয়ই স্বস্তি দেবে লাল-সবুজদের। শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে খেলা সবশেষ দুটি টি-টোয়েন্টিতেই জিতেছে বাংলাদেশ। আরও বড় ব্যাপার হলো দুটো জয়ই এসেছে কলম্বো থেকে। শেষ জয়টা ২ উইকেটের। যেখানে এই মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ খেলেছিলেন ১৮ বলে অপরাজিত ৪৩ রানের টর্নেডো ইনিংস! তার আগের ম্যাচে জয়ের নায়ক মুশফিক। যিনি ৩৫ বলে ৭২ রানের ইনিংসে বাংলাদেশকে এনে দিয়েছিলেন অবিস্মরণীয় এক জয়।

অতীত অবশ্যই বর্তমানের পথ তৈরি করে দেয়! তবে পরিসংখ্যানের পুরোটাতে চোখ রাখলে অবশ্য এগিয়ে রাখতে হবে লঙ্কানদেরই। ২০ ওভারের আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ১১টি ম্যাচ খেলেছে দুই দল। যেখানে লঙ্কানরা জিতেছে ৭টি ও বাংলাদেশ ৪টিতে। অবশ্য টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে একবারই লেখা হয়েছে বাংলা-লঙ্কার কোন দ্বৈরথ। সেই ম্যাচটা ভুলতে পারলেই বাঁচে বাংলাদেশ।

ডমিঙ্গো জানিয়ে রাখলেন, সব সমস্যা সমালোচনা একপাশে সরিয়ে রেখে গোটা দলটার চোখ বিশ্বকাপে। মাঠের বাইরে ক্রিকেটের শীর্ষ কর্তা থেকে শুরু করে একেবারে প্রান্তিক কোন দর্শক অন্তর্জালে কী লিখলেন সেসব ভাবনার প্রশ্রয় নেই। তবে ম্যাচের আগের দিন অবশ্য বেশ অনুশীলন শিবিরে ততোটা কড়াকড়ি রাখেনি টিম বাংলাদেশ।

উড়ো খবর বড্ড ঝড় বয়ে যাচ্ছে মাহমুদউল্লাহর মনে। এ জন্য কতো কিছু যে করছেন তিনি। অভ্যাসটা ধরে রেখেছেন দূর প্রবাসেও। ভোরে ফজরের নামাজটা পড়েই হাঁটাহাটি করছেন অধিনায়ক। দুবাইয়ের দেরার পাঁচ তারকা হোটেল ক্রাউন প্লাজায় উঠেছে বাংলাদেশ দল। সেখানে সুন্দর সাজানো ফুলের বাগানে সময়ও কাটাচ্ছেন। অনেক ঝড় বয়ে যাচ্ছে মনের ওপর দিয়ে।

দলের সেরা তারকা সাকিব আল হাসানসহ তিনজন ক্রিকেটার বিশ্রামে। লিটন দাস ও মোহাম্মদ সাইফউদ্দিনকে এদিন দেখা যায়নি শারজার মাঠে। এর মধ্যে দলে লিটন জায়গা হারাচ্ছেন কি না সেই ফিসফাস তো থাকছেই। প্রথম পর্বের তিনটা ম্যাচেই যে সুযোগ কাজে লাগানো হয়নি তার।

আসল লড়াইয়ে আজ ঠিকঠাক নিশানা করতে পারলেই হয়। তবে উড়ো খবর বড্ড ঝড় বয়ে যাচ্ছে মাহমুদউল্লাহর মনে। এ জন্য কতো কিছু যে করছেন তিনি। অভ্যাসটা ধরে রেখেছেন দূর প্রবাসেও। ভোরে ফজরের নামাজটা পড়েই হাঁটাহাটি করছেন অধিনায়ক। দুবাইয়ের দেরার পাঁচ তারকা হোটেল ক্রাউন প্লাজায় উঠেছে বাংলাদেশ দল। সেখানে সুন্দর সাজানো ফুলের বাগানে সময়ও কাটাচ্ছেন। অনেক ঝড় বয়ে যাচ্ছে মনের ওপর দিয়ে!

সেই ঝড় থেকেই নাকি ইস্পাত কঠিন প্রত্যয় এখন মাহমুদউল্লাহর। যে করেই হোক মাঠের ক্রিকেটে সব সমালোচনার জবাব দিতে হবে। কথায় কথায় যারা ক্রিকেটারদের সমালোচনার তিরে এঁফোড়-ওফোড় করেন, তাদের জবাব দেওয়ার এটাই মোক্ষম সময়। আসলে রাগ থেকে যদি ভালো কিছু হয়, তবে তো রাগই ভালো।

সম্ভাব্য একাদশ, শ্রীলঙ্কা-

কুসল পেরেরা (উইকেটরক্ষক), পথুম নিসাঙ্কা, চরিথ আসালাঙ্কা, আবিষ্কা ফার্নান্দো, ভানুকা রাজাপাকসে, দাসুন শানাকা (অধিনায়ক), চামিকা করুণারত্নে, ওয়ানিন্দু হাসরাঙ্গা, দুষ্মন্ত চামিরা, মহেশ থেকশানা, লাহিরু কুমারা

সম্ভাব্য একাদশ, বাংলাদেশ-

লিটন দাস, মোহাম্মদ নাঈম, সাকিব আল হাসান, মুশফিকুর রহিম, মাহমুদউল্লাহ (অধিনায়ক), আফিফ হোসেন, নুরুল হাসান (উইকেটরক্ষক), মেহেদী হাসান, মোহাম্মদ সাইফুদ্দিন, নাসুম আহমেদ, মুস্তাফিজুর রহমান

 

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
উপরে