কঠিন সমীকরণে টাইগাররা, যেভাবে যেতে পারে দ্বিতীয় রাউন্ডে

প্রকাশিত: অক্টোবর ২১, ২০২১; সময়: ২:০৩ pm |

পদ্মাটাইমস ডেস্ক : প্রথম পর্বের বাধা টপকে বিশ্বকাপের দ্বিতীয় রাউন্ড নিশ্চিত করার ম্যাচে পাপুয়া নিউগিনির মুখোমুখি হবে বাংলাদেশ। দলের পারফরমেন্স নিয়ে ব্যাটিং কোচ কিছুটা হতাশ হলেও শেষ ম্যাচে সব কিছু ঠিকঠাক করে জয় তুলে নিবে বাংলাদেশ। এমন প্রত্যাশা অ্যাশওয়েল প্রিন্সের। আর পিএনজির চাওয়া আপসেটের জন্ম দিয়ে নতুন ইতিহাস গড়া। বাংলাদেশ সময় বিকেল ৪টায় শুরু হবে ম্যাচটি।

জটিল হিসাব আর সমীকরণে ঝুলে আছে গ্রুপ ‌’বি‌’ এর ভাগ্য। এখনও নিশ্চিত হয়নি পরের রাউন্ডে যাচ্ছে কোন দুটি দল। ২ ম্যাচ জিতে স্কটল্যান্ড ৪ পয়েন্ট নিয়ে তালিকার শীর্ষে। এক জয়ে ২ পয়েন্ট নিয়ে রানরেটে এগিয়ে থেকে দ্বিতীয় অবস্থানে ওমান। আর বাংলাদেশ সমান ১ জয়ে আছে তিন নম্বরে। দুই পরাজয়ে পাপুয়া নিউ গিনির অবস্থান সবার তলানিতে।

বাংলাদেশ ওমান বাধা পার হয়েছে। কিন্তু এখনো অনিশ্চয়তা কাটেনি। দ্বিতীয় রাউন্ডে যেতে বাংলাদেশকে শেষ ম্যাচে জিততেই হবে। মেলাতে হবে কিছু সমীকরণও।

প্রথম ম্যাচের মত ওমানের বিপক্ষে দলের ব্যাটিংটাও হয়ে আছে চিন্তার কারণ। পাওয়ার প্লে সুবিধা কাজে লাগাতে না পারা, আর শেষ দিকে উইকেট হারানো। টিম ম্যানেজমেন্টকে ভাবতে হচ্ছে সব নিয়েই। তবে টানা তিন ম্যাচ হারের পর যে চাপ ছিল দলে, তা অনেকটাই কেটে গেছে। দলের চাওয়া এই মোমেন্টাম ধরে রেখে সুপার টুয়েলভের পথটা মসৃণ করা।

নাটকীয় অনেক কিছুই এখনো বাকি। তলানিতে থাকলেও সুযোগ আছে পাপুয়া নিউ গিনিরও। সেক্ষেত্রে বাংলাদেশ দলকে প্রায় ৪৫ রানে হারাতে হবে তাদের। সঙ্গে স্কটল্যান্ডের বিপক্ষে একই ব্যবধানে হারতে হবে ওমানকে। তবে স্কটল্যান্ডের সুযোগ সব থেকে বেশি। ওমানের বিপক্ষে জিতলেই গ্রুপসেরা হয়ে পরের ধাপে যাবে তারা। যদি ১৫০ এর উপর স্কোর করে ওমান, এই ম্যাচ যদি স্কটল্যান্ড হারে এবং বাংলাদেশ ৩ রানে জয়ী হয়, তাহলে নেট রান রেটে বাদ পড়বে স্কটিশরা।

তবে এতো জটিল সমীকরণে যেতে চায় না বাংলাদেশ। দাপুটে পারফরমেন্সে ম্যাচ জিততেই মরিয়া টাইগাররা। এদিকে তিন দিনে দুই ম্যাচ খেলার পর টিম টাইগার্স বিশ্রামে। পিএনজির বিপক্ষে রণ পরিকল্পনা হোটেলে বসেই সাজিয়েছে টিম ম্যানেজমেন্ট।

ব্যাটিং কোচ অ্যাশওয়েল প্রিন্স বলেন, ‌’প্রথম দুই ম্যাচে আমাদের প্রতিপক্ষ সহযোগী সদস্য হলেও, তারা খুব ভালো ক্রিকেট খেলেছে। উইকেটে কোনো সমস্যা নেই কিন্তু এখানে পাওয়ার প্লে’তে সব দলের বোলাররাই ভালো বল করেছে। দলের পারফরম্যান্স নিয়ে সবাই কিছুটা হতাশ। তবে শেষ ম্যাচে আমরা জিততে চাই। সেভাবেই গেম প্ল্যান করে দল মাঠে নামবে।‌’

ব্যাটারদের নিয়ে দুশ্চিন্তার শেষ নেই। কিন্তু ব্যতিক্রম স্পিনাররা। দুই ম্যাচে প্রতিপক্ষের ৯ উইকেট নিয়েছে মেহেদী-সাকিবরা। ওমান ম্যাচে ম্যাচের মোমেন্টাম নিজেদের দিকে ফেরাতে দারুণ কাজ করেছে শেখ মেহেদীর বোলিং। ভালো বোলিং বাড়িয়েছে আত্মবিশ্বাস। তাই ব্যাটিং কোচের কণ্ঠেও বোলারদের স্বস্তি।

অ্যাশওয়েল প্রিন্স আরও বলেন, ‌’আমাদের স্পিনাররা ভালো করছে। বিশেষ করে সাকিব মেহেদী দুর্দান্ত বোলিং করছে। ওরা খুব স্কিলফুল খেলোয়াড়।‌’

কাগজে-কলমে এখনো টিকে আছে পাপুয়া নিউগিনির দ্বিতীয় রাউন্ডে কোয়ালিফাই করার সুযোগ। কিন্তু সেটা আল আমেরাতের পাহাড় ডিঙ্গানোর মতোই কঠিন। আপাতত সেসব নিয়ে ভাবছে না দেশটি। তারা চায় স্কটল্যান্ডের মতো আরেকটা আপসেট করতে। যে জয় বদলে দিতে পারে দেশটির ক্রিকেট। অনুপ্রেরণার জন্য তারা ফিরে যাচ্ছে প্রায় ৪০ বছর আগে। ১৯৮২ আইসিসি ট্রফিতে বাংলাদেশকে হারিয়েই তো তৃতীয় হয়েছিল পিএনজি।

পাপুয়া নিউগিনির অলরাউন্ডার চার্লস আমিনি বলেন, ‌’বাংলাদেশ খুবই শক্তিশালী দল। তাদের সঙ্গে খেলতে পেরে আমরা সত্যিই গর্বিত। দুই ম্যাচ হারলেও এখনো আমাদের সুযোগ আছে। এই ম্যাচটা জিতে আমরা ইতিহাস গড়তে চাই।‌’ সমীকরণ বলছে, পিএনজির বিপক্ষে ৩ রানের ব্যবধানে জিতলেও নিশ্চিত হবে বাংলাদেশের দ্বিতীয় রাউন্ড। অপেক্ষা করতে হবে না, অপর ম্যাচের ফলাফলের জন্য।

 

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
উপরে