ছয় গোলের রোমাঞ্চ শেষে ব্রাজিলিয়ান ভিনিসিয়াস বাঁচালেন রিয়ালকে

প্রকাশিত: আগস্ট ২৩, ২০২১; সময়: ১১:১৮ am |
খবর > খেলা

পদ্মাটাইমস ডেস্ক : রাতে চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী বার্সেলোনা পয়েন্ট খুইয়েছিল অ্যাথলেটিক বিলবাওয়ের কাছে। রিয়াল মাদ্রিদ পরের রাতে ধরল একই পথ।

লেভান্তের বিপক্ষে শুরুতে এক গোলে এগিয়ে গিয়েও ছয় গোলের রোমাঞ্চে ড্রয়ে বাধ্য হয়েছে দলটি। দুই বার পিছিয়ে পড়েও যে হেরে বসেনি রিয়াল, তার কৃতিত্ব পুরোটাই ভিনিসিয়াস জুনিয়রের। ব্রাজিলিয়ান উইঙ্গারের জোড়া গোলেই তো রক্ষা পেয়েছে দল!

অথচ শুরুর অর্ধে যেমন খেলেছে রিয়াল, তাতে মনে হচ্ছিল বড় জয়ই বুঝি অপেক্ষা করছে কার্লো অ্যানচেলত্তির দলের জন্য। প্রথম উল্লেখযোগ্য আক্রমণেই যে এগিয়ে গিয়েছিল দলটি। কারিম বেনজেমার বাড়ানো বল থেকে গ্যারেথ বেলের গোলে এগিয়েই গিয়েছিল লস ব্ল্যাঙ্কোসরা। এর ফলে প্রায় দুই বছর পর রিয়াল ফরোয়ার্ড গোল পেলেন মাদ্রিদের জার্সি পরে!

প্রথমার্ধে যেমন আক্রমণ গড়েছে রিয়াল, তাতে শটগুলো লক্ষ্যভ্রষ্ট না হলে হয়তো বড় ব্যবধানের জয়ই পেতে পারত দলটি। কিন্তু বিরতির আগে প্রথম গোলের পর থেকে করা দশ শটের একটিও ছিল না লক্ষ্যে। এ সময় প্রতি আক্রমণেও খুব একটা ত্রাস ছড়াতে পারেনি লেভান্তেও। ফলে এক গোলের লিডের স্বাচ্ছন্দ্য নিয়েই প্রথমার্ধ শেষ করে অ্যানচেলত্তির দল।

তবে সে স্বস্তি উবে যেতে সময় নেয়নি দ্বিতীয়ার্ধে। বিরতি থেকে ফেরার ২৮ সেকেন্ড পরই সমতায় ফেরে লেভান্তে। পেনাল্টি অঞ্চল থেকে রজার মার্তির জোরালো শটটায় শরীর ছোঁয়ান কোর্তোয়া কিন্তু সেটা এরপর ধীরে ধীরে পেরিয়ে গেছে গোলরেখা। প্রথমার্ধে যেখানে রিয়াল রক্ষণে ত্রাসই সৃষ্টি করতে পারেনি লেভান্তে, সেই দলটাই ভয়ঙ্কর রূপ ধারণ করে এরপর। ৫৬তম মিনিটে হোর্হে দে ফ্রুতোসের ক্রস থেকে দারুণ এক ভলি করে হোসে কাম্পানইয়ার লক্ষ্যভেদ এগিয়েই দেয় স্বাগতিকদের।

তখনই গোলের খোঁজে ব্রাজিলিয়ান ভিনিসিয়াসের দ্বারস্থ হন কোচ অ্যানচেলত্তি। তার সঙ্গে মার্কো অ্যাসেনসিও, আর রদ্রিগো গোয়েজকেও মাঠে আনেন তিনি। তবে মূল পরিবর্তনটা আসে রাইটব্যাক দানি কারভাহাল আসার পর। শম্বুকগতির আক্রমণে আসে দারুণ গতি। সেই থেকেই তো আসে ভিনিসিয়াসের গোলটা।

৭৩ মিনিটে নিজেদের বক্সের কাছ থেকে সেই কারভাহাল বল বাড়ান ক্যাসেমিরোকে। তার থেকে পাস যায় ভিনিসিয়াসের কাছে। ব্রাজিলিয়ান উইঙ্গার এরপর ডিফেন্ডার আর গোলরক্ষককে ফাঁকি দিয়ে গোলটা করে সমতায় ফেরান রিয়ালকে। তবে এর মিনিট ছয়েক পর প্রায় তিন বছর পর করা রবের পিয়েরের গোল রিয়ালকে পিছিয়ে দেয় আবারও। এর মিনিট তিনেক পর আলেহান্দ্রো কান্তেরোর শটটা পোস্টে প্রতিহত না হলে দুই গোলেই পিছিয়ে পড়তে পারত রিয়াল।

সেই সুযোগটা তারা কাজে লাগিয়েছে ভিনিসিয়াসের কল্যাণে। ৮৫ মিনিটে তার সুবাদেই ৩-৩ গোলে সমতা ফেরায় সফরকারী রিয়াল। এর মিনিট দুয়েক পর নিশ্চিত গোলের সুযোগই আসে রিয়ালের কাছে। লেভান্তে রক্ষণকে পেছনে ফেলে একা ছুটে আসছিলেন রদ্রিগো গোয়েজ। তাকে রুখতে গোলরক্ষক আইতর ফের্নান্দেজ বক্স ছেড়ে বেরিয়ে এসে হ্যান্ডবল করেন, দেখেন লাল কার্ড।

ততক্ষণে সব বদলি শেষ করে ফেলেছে দলটি, অগত্যা গোলমুখে দাঁড়াতে হয় সেন্টারব্যাক রুবেন ভেসোকে। তবে তাকে খুব একটা সমস্যায় ফেলতে পারেনি রিয়াল আক্রমণভাগ। ফলে ৩-৩ গোলের ড্র নিয়েই মাঠ ছাড়তে হয় রিয়ালকে।

  • 42
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
উপরে