বাংলাদেশ-জিম্বাবুয়ে সিরিজ শামীমের ব্যাটে জয় বাংলাদেশের

প্রকাশিত: জুলাই ২৫, ২০২১; সময়: ৮:১৩ pm |

পদ্মাটাইমস ডেস্ক : জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে হারতে হারতে জয় পেয়েছে বাংলাদেশ। সৌম্য সরকারের ক্যারিয়ার সেরা ৬৯ রানের ইনিংসের পর শেষ দিকে শামীমের ৩১ (১৫) রানের ইনিংসে ভর করে জয় নিয়ে মাঠ ছেড়েছে টাইগাররা।

তিন ম্যাচ সিরিজের শেষ টি-টোয়েন্টিতে ১৯৪ রানের লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমেছিল বাংলাদেশ। টি-টোয়েন্টিতে জিম্বাবুয়ের দ্বিতীয় সর্বোচ্চ রান টপকাতে বাংলাদেশকে কঠিন পরীক্ষা দিতে হলেও ৪ বল হাতে রেখেই ৫ উইকেটের জয় তুলে নিয়েছে শেষ পর্যন্ত। দলের জয়ে সৌম্য, শামীম ছাড়াও গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রেখেছেন অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। খেলেন ২৮ বলে ৩৪ রানের ইনিংস।

মাহমুদউল্লাহ’র বিদায়: দলের সংকটময় মুহুর্তে বিদায় নিয়েছেন মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। তবে তার ২৮ বলে ৩৪ রানের ইনিংসটা দারুণ রসদ জুগুইয়েছে শামীম পাটোয়ারিকে। বাংলাদেশ- ১৬৬/৪ (১৭ ওভার), জিম্বাবুয়ে- ১৯৩/৫, মাহমুদউল্লাহ: ৩২ (২৪), শামীম: ৭ (৬)।

আফিফের বিদায়: আফিফ হোসেনের বিদায়ে আরও চাপে বাংলাদেশ। ১৯৩ রান টপকানোর লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমেছে বাংলাদেশ। সৌম্যর ৬৯ রানের ইনিংস শেষে আফিফও দারুণ শুরু করেন। তবে থামতে হয়েছে ৫ বলে ১৪ রান করে ওয়েলিংটন মাসাকাদজার বলে বোল্ড হয়ে। বাংলাদেশের দরকার ২৪ বলে ৪০ রান। বাংলাদেশ- ১৪০/৩ (১৪ ওভার), জিম্বাবুয়ে- ১৯৩/৫, মাহমুদউল্লাহ: ২২ (১৫), আফিফ: ৬ (১)।

সৌম্যর বিদায়: দলকে আশা দেখিয়ে সাজঘরে ফিরলেন সৌম্য। ৪৯ বলে ৬৮ রানের ইনিংস খেলে দলকে ভালো অবস্থানে নিয়ে গেলেও তার বিদায় আবারও বিপাকে পড়বে দল। লক্ষ্য তাড়া করতে ৩৯ বলে বাংলাদেশের লাগে ৬১ রান।

সৌম্য’র ফিফটি: নাঈম-সাকিবের বিদায়ে বিপাকে পড়া দলকে টানছেন সৌম্য। ৪১ বলে ৬টি চার ও ১ ছয়ে পূর্ণ করেছেন অর্ধশতক। ১৩ ওভারে বাংলাদেশের সংগ্রহ ২ উইকেটে ১২৮ রান। সৌম্য অপরাজিত রয়েছেন ৬৪ (৪৭) রানে।

বাংলাদেশ- ৯০/২ (১০ ওভার), সৌম্য: ৩৭ (৩৪), মাহমুদউল্লাহ: ১০ (৭), সাকিবের বিদায়: ৩ রান করে নাঈম শেখের বিদায়ের পর সৌম্য সরকার ও সাকিব আল হাসান মিলে হাল ধরেন দলের। দুজনের জুটি থেকে এসেছে ৩১ বলে ৫০ রান আসার পরপরই সাকিব বিদায় নিয়েছেন লুক জংওয়ের বলে ক্যাচ দিয়ে ২৫ (১৪) রান করে। বাংলাদেশ- ৪৪/১ (৫ ওভার) ,সৌম্য: ২৪ (১৮), সাকিব: ১০ (৬)।

সাজঘরে ফিরলেন নাঈম: দলীয় ২০ রানের মাথায় নাঈম শেখ সাজঘরে ফিরলেন ৩ রান করে। ব্লেসিং মুজারাবানির বলে লুক জংওয়ের হাতে ক্যাচ দিয়েছেন এই টাইগার ওপেনার।

নাঈম-সৌম্যের ব্যাটে লড়ছে বাংলাদেশ: জিম্বাবুয়ের দেয়া রেকর্ড রান তাড়া করার লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমেছে বাংলাদেশ। দুই ওপেনার নাঈম শেখ ও সৌম্য সরকারের ব্যাটে শুরুতে ভালো কিছুর আভাস। সিকান্দার রাজার প্রথম ওভারেই ১৩ রান নিয়েছেন দুই ওপেনার। ২ ওভারে বাংলাদেশের সংগ্রহ ২০ রান। বাংলাদেশ- ১৩/০ (১ ওভার)।

রেকর্ড রান জিম্বাবুয়ের: এ পর্যন্ত ৩ বার দ্বিপাক্ষিক টি-টোয়েন্টিতে সিরিজ জয়ের স্বাদ পেয়েছে বাংলাদেশ। ২০১২ সালে আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে ৩-০তে, ২০১৮ সালে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ২-১ আর সবশেষটি গত মার্চে মিরপুরে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে ২-০তে সিরিজ জয়।

তবে জিম্বাবুয়ে একবারও পায়নি দ্বিপাক্ষিক টি-টোয়েন্টি সিরিজ জয়ের স্বাদ। আজ হারারেতে দুই দলের সামনেই বড় সুযোগ। কেন না, ৩ ম্যাচের সিরিজ ১-১ হওয়ায় অলিখিত ফাইনাল খেলছে দু’দল। হারারেতে আগে ব্যাট করে বাংলাদেশের সামনে পাহাড়সম লক্ষ্য ছুঁড়ে দিয়েছে স্বাগতিকরা।

ওপেনার ওয়েসলে মাধভেরের ৫৪, রেগিস চাকাভার ৪৮, তিদওয়ানশে মারুমানির ২৭, ডিওন মায়ার্সের ২৩ ও শেষদিকে রায়ান বার্লের অপরাজিত ৩১ রানে ভর করে ১৯৩ রান তুলেছে দলটি। যা টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে জিম্বাবুয়ের দ্বিতীয় সর্বোচ্চ রান। বাংলাদেশের পক্ষে ২ উইকেট নিয়েছেন সৌম্য সরকার। ১টি করে উইকেট নিয়েছেন সাইফউদ্দিন, শরিফুল ও সাকিব।

শরিফুল ফেরালেন মায়ার্সকে: অবশেষে উইকেটের দেখা পেলেন পেসার শরিফুল ইসলাম। নিজের চতুর্থ ওভারের প্রথম বলে ডিওন মায়ার্সকে ২৩ (২১) রানে ফিরিয়েছেন সাজঘরে। জিম্বাবুয়ের সংগ্রহ ১৮ ওভারে ৫ উইকেটে ১৭৫ রান। জিম্বাবুয়ে- ১৫৬/৪ (১৭ ওভার)।

সাকিবের শিকার মাধভেরে: অবশেষে ফেরানো গেল ওয়েসলে মাধভেরেকে। সাকিব আল হাসানের বলে শরিফুল ইসলামের হাতে ক্যাচ দেয়ার আগে খেলেছেন ৩৬ বলে ৫৪ রানের ইনিংস। মাধভেরের ফিফটি: চলতি সিরিজে এ নিয়ে দুটি অর্ধ্বশতকের ইনিংস খেলেছেন জিম্বাবুয়ের ওপেনার ওয়েসলে মাধভেরে। সৌম্যর বলে চার হাঁকিয়ে ৩৩ বলে বলে পূর্ণ করেছেন ক্যারিয়ারের চর্থুর্থ অর্ধশতক।

ওভারে দুই উইকেট সৌম্যর: চাকাভা আর মাধভেরের ব্যাটে অস্বস্তিতে থাকা বাংলাদেশ দলকে স্বস্তি ফিরিয়েছেন সৌম্য সরকার। ওভারের প্রথম বলে চাকাভাকে ফিরিয়েছেন ৪৮ রানে, পঞ্চম বলে সিকান্দার রাজাকে বোল্ড করেছেন শূন্য রানে। জিম্বাবুয়ের সংগ্রহ ১২ ওভারে ১২৭ রান।

নাঈম-শামীমের দুর্দান্ত ক্যাচ: দুর্দান্ত ক্যাচ, চাকাভাকে ফেরানো গেল ৪৮ (২২) রানে। রেগিস চাকাভা দ্রুত রান তুলছিলেন। আগের ওভারে নাসুমকে টানা ৩টি ছয় হাঁকিয়ে ফিফটির কাছে চলে গিয়েছিলেন এই ব্যাটসম্যান। পরের ওভারে সৌম্য সরকারের বলে ছয় মারতে গিয়ে বাউন্ডারিতে থাকা নাঈম শেখ ছয় বাঁচিয়ে বল ছুড়েন মাঠের দিকে, সেখানে উপস্থিত শামীম পাটোয়ারি লুপে নেন বল।

জিম্বাবুয়ের ১০০: দশ ওভারে ১০০ রান জিম্বাবুয়ের। ওয়েসলে মাধভেরে আর তিদওয়ানশে মারুমানির ওপেনিং জুটি থেকে আসে ৬৩ রান। মারুমানি ২৭ রান করে ফিরলেও মাধভেরে রান তুলছেন দ্রুত। এই ওপেনার অপরাজিত আছেন ৪১ (২৪) রানে, রেগিস চাকাভা রয়েছেন ২১ বলে ৪৮ রানে। ১১ ওভার শেষে জিম্বাবুয়ের সংগ্রহ ১২২ রান, ১ উইকেটে।

মারুমানির বিদায়: জিম্বাবুয়ের ওপেনিং জুটি ভাঙলেন সাইফউদ্দিন। দুই ওপেনার তিদওয়ানশে মারুমানি ও ওয়েসলে মাধভেরের জুটি থেকে এসেছে ৩৬ বলে ৬৩ রান। ষষ্ঠ ওভারের শেষ বলে ২৭ (২০) রান করা মারুমানিকে বোল্ড করে সাজঘরে ফিরিয়েছেন সাইফউদ্দিন।

জিম্বাবুয়ের ৫০: ৫ ওভারেই ৫০ রান পূর্ণ করেছে জিম্বাবুয়ে। দুই ওপেনার ওয়েসলে মাধভেরে ৩১ ও মারুমানি অপরাজিত আছেন ২০ রানে।

ওভারে ৫ চার: ম্যাচের চতুর্থ ওভার, তাসকিনের দ্বিতীয় ওভারে বাউন্ডারির ঝড় ওঠান ওয়েসলে মাধভেরে। তার এক ওভারে টানা ৫টি চার হাঁকিয়েছেন জিম্বাবুয়ের এই ডান হাতি ওপেনার।

একাদশ: বাংলাদেশ দলে এসেছে এক পরিবর্তন। শেখ মেহেদী হাসানের বদলে খেলছেন নাসুম আহমেদ। বাংলাদেশ দলে এক পরিবর্তন এলেও গত ম্যাচের একাদশ নিয়েই নামছে স্বাগতিকরা।

বাংলাদেশ: নাঈম শেখ, সৌম্য সরকার, সাকিব আল হাসান, মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ (অধিনায়ক), আফিফ হোসেন, নুরুল হাসান সোহান(উইকেট-রক্ষক), শামীম হোসেন, নাসুম আহমেদ, মোহাম্মদ সাইফুদ্দিন, তাসকিন আহমেদ ও শরিফুল ইসলাম

জিম্বাবুয়ে: ওয়েসলে মাধভেরে, তাদিওয়ানাশে মারুমণি, রেজিস চাকভা (উইকেট-রক্ষক), ডিন মায়ার্স, সিকান্দার রাজা (অধিনায়ক), মিল্টন শুম্বা, রায়ান বার্ল, লুক জংওয়ে, ওয়েলিংটন মাসাকাদজা, টেন্ডাই চাতারা ও ব্লেসিং মুজারবানি।

টস: তিন ম্যাচ টি-টোয়েন্টি সিরিজের শেষটিতে মাঠে নেমেছে বাংলাদেশ-জিম্বাবুয়ে। প্রথম টি–টোয়েন্টিতে ৮ উইকেটে জিতেছিল বাংলাদেশ। দ্বিতীয় ম্যাচে জিম্বাবুয়ে ২৩ রানে জিতে সিরিজ সমতায় আনে। সিরিজ ১-১ সমতায় থাকায় আজকের ম্যাচটা দাঁড়িয়েছে অলিখিত ফাইনালে। হারারেতে টানা তিন ম্যাচেই টসে হেরেছে বাংলাদেশ। টস জিতে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নিয়েছে জিম্বাবুয়ে।

  • 778
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
উপরে