ভয়ে ফোন ধরছি না: পাপন

প্রকাশিত: জুন ১৩, ২০২১; সময়: ১০:২৭ am |
খবর > খেলা

পদ্মাটাইমস ডেস্ক : ঘরোয়া ক্রিকেটের একটি ম্যাচে সাকিব আল হাসানের স্ট্যাম্প উপড়ে ফেলা ও লাথি মারার ঘটনায় বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন বলেছেন, বেইজ্জতির চরমে চলে গেছে বাংলাদেশ ক্রিকেট।শনিবার (১২ জুন) সংবাদমাধ্যমকে তিনি বলেন, বিষয়টা আন্তর্জাতিকভাবে এত বেশি ছড়িয়ে পড়েছে, আমাকে এত দেশ থেকে ফোন করছে। আমি ভয়ে ফোন ধরছি না।

ঘরোয়া ক্রিকেটের পাতানো ম্যাচের বিষয়টি খতিয়ে দেখার কথা জানিয়ে বিসিবি বস বলেন, যতক্ষণ না পর্যন্ত আমরা এ সমস্যার সমাধান বের করছি আমার মনে হয় এই ঘরোয়া ক্রিকেট খেলার কোনো মানে হয় না। তিনি আরও বলেন, মানুষ যা বলে, যেই খেলায় আগে থেকেই সব ঠিক করা আছে। তাই যদি হয়, তাহলে এই খেলার তো কোনো মানে নেই।
প্রসঙ্গত, অখেলোয়াড় সুলভ আচরণ করায় ঘরোয়া ক্রিকেটে ৩ ম্যাচ নিষিদ্ধ করা হয়েছে সাকিব আল হাসানকে। এছাড়া তাকে ৫ লাখ টাকা জরিমানাও করা হয়েছে। নিষেধাজ্ঞা শুরু হবে আগামী ম্যাচ থেকেই।

শনিবার (১২ জুন) দুপুরের পর ম্যাচ রেফারি মোরশেদুল আলমের পাঠানো শাস্তির নোটিশ হাতে পান ওয়েস্টিন হোটেলে থাকা সাকিব আল হাসান। চিঠিতে সাকিবের বিরুদ্ধে লেভেল-৩ পর্যায়ের আচরণবিধি ভাঙার অভিযোগ আনা হয়েছে। ক্রিকেট সুপারস্টারও অপরাধ স্বীকার করে নিয়ে চিঠিতে স্বাক্ষর করে দেওয়ায় এই শাস্তিই বহাল রইল। শাস্তির ব্যাপারে আপত্তি থাকলে শুনানিতে ডাকা হতো তাকে।

ঢাকা প্রিমিয়ার লিগে (ডিপিএল) শুক্রবার (১১ জুন) আবাহনীর বিপক্ষে ঘটনাবহুল ম্যাচটিতে শেষ পর্যন্ত সাকিবের মোহামেডান জিতেছে ৩১ রানে। তবে সেই জয়-পরাজয় ছাপিয়ে আলোচনায় সাকিব আল হাসান। এদিন বিশ্বসেরার অদ্ভুত আচরণে বিস্মিত সবাই। মুশফিককে এলবিডব্লু না দেওয়ায় লাথি দিয়ে স্ট্যাম্প ভাঙা কিংবা বৃষ্টির আগেই আম্পায়ারের খেলা বন্ধের সিদ্ধান্তে স্ট্যাম্প উপড়ে ফেলা, সবই হয়েছে আবাহনী-মোহামেডান ম্যাচে।

শুধু তাই নয় বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) পরিচালক ও আবাহনী কোচ খালেদ মাহমুদ সুজনের সঙ্গেও বাদানুবাদে জড়িয়েছেন সাকিব। যদিও পরে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে পুরো ঘটনার জন্য ক্ষমা চেয়েছেন তিনি। ওই ম্যাচে দুই অপরাধের জন্যই ন্যূনতম ম্যাচে বহিষ্কার করা হয়েছে সাকিবকে। প্রথম অপরাধের জন্য এক ম্যাচ ও দ্বিতীয় অপরাধের জন্য ২ ম্যাচ নিষিদ্ধ করা হয়েছে তাকে।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
উপরে