দুর্গাপুরের সেই ছিনতাই ঘটনা সাজানো নাটক, গ্রেপ্তার ৩

প্রকাশিত: এপ্রিল ২৯, ২০২২; সময়: ৯:২৪ pm |

নিজস্ব প্রতিবেদক : রাজশাহীর দুর্গাপুরে টাকা  ছিনতাইয়ের ঘটনায় পূর্ব পরিকল্পিত সাজানো নাটক। এ ঘটনায় ৩ জনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। শুক্রবার এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানান জেলা পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ইফতেখার আলম।

তিনি জানান, শুক্রবার রাজশাহীর দুর্গাপুরে নগদের ডিস্ট্রিবিউশন সেলস অফিসার মোহাম্মদ  জাহিদ হাসানকে (২৭) চাকু  দিয়ে আহত করে তিন লক্ষ ষোল হাজার টাকা ছিনতাই করে নেওয়ার ঘটনার রহস্য উদঘাটন করেছে দুর্গাপুর থানা পুলিশ। ছিনতাই এর ঘটনাটি ছিল পূর্ব পরিকল্পিত একটি সাজানো নাটক। উক্ত ঘটনার কথিত  ভিকটিম মোহাম্মদ জাহিদ হাসান তার সহযোগী দুই বন্ধুর মাধ্যমে ছিনতাই ঘটনাটির  নাটক সাজায়।

এ ঘটনায় গ্রেফতার করা হয়েছে মোহাম্মদ জাহিদ হাসান (২৭), পিতা: কোরবান আলী,  গ্রাম : আগলা, থানা- বেলপুকুর,  রাজশাহী মহানগর ও তার সহযোগী দুই বন্ধু  মো: আবু বাক্কার (৩৩),  পিতা: খোশবর আলী, সাং- মোল্লা জামিরা,  থানা – বেলপুকুর,  রাজশাহী মহানগর  ও মো: জাফর হোসেন (২৫),  পিতা- মৃত জামাল উদ্দিন, সাং – হলিদাগাছি, থানা- চারঘাট,  জেলা : রাজশাহীদ্বয়কে।  জিজ্ঞাসাবাদে জাহিদ  জানায়, সে  আর্থিক প্রতিষ্ঠান নগদের রাজশাহীর দুর্গাপুর এলাকার  ডিস্ট্রিবিউশন সেলস অফিসার হিসেবে বিগত ৭/৮ মাস যাবত কর্মরত আছে।

ইতোমধ্যে  নগদের লেনদেনের প্রায় দুই লক্ষ টাকা ব্যক্তিগত কাজে খরচ করে ফেলেছে। এছাড়া  অনেকেই তার কাছে পাওনার টাকা পাবে। এছাড়া সে নেশায় আসক্ত।  তাই অর্থ আত্মসাৎ এর মাধ্যমে  নগদ লেনদেনের ঘাটতির টাকা হতে উত্তরণ  হতে ও পাওনার  টাকা পরিশোধ করতে সে এ ছিনতাই ঘটনার  নাটক সাজায়।

পূর্ব পরিকল্পনা মোতাবেক ঘটনার  দিন শুক্রবার বেলা দুপুর  অনুমান ১.৩০ টার দিকে দুর্গাপুর থানাধীন জয়নগর ইউনিয়নের জয়নগর থেকে ভাগলপাড়া যাওয়ার ফাঁকা রাস্তায়  সহযোগী দুই বন্ধুকে  ডেকে নেয় ও একটা ব্যাগে থাকা নগদ লেনদেনের  টাকা ও দুইটি মোবাইল  তাদের দিয়ে দেয়।

এরপর নিজের কাছে থাকা একটি চাকু দিয়ে নিজের ডান  হাত হালকাভাবে কেটে দেয়।  কিছুসময় পর অপর একজনের মোবাইল  থেকে তার প্রতিষ্ঠানের সিনিয়র কর্মকর্তাকে ফোন দিয়ে জানায়, ছিনতাইকারীরা তাকে ছুরিকাঘাত করে তার কাছে থাকা নগদের লেনদেনের তিন লক্ষ ষোল হাজার টাকা ও দুইটি মোবাইল ছিনতাই করে  নিয়ে গেছে।

এছাড়া ছিনতাই এর ঘটনাকে আরো  বিশ্বাসযোগ্য করার জন্য দুর্গাপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে প্রাথমিক চিকিৎসা নেয়। এ ঘটনায়  দুর্গাপুর থানায় মামলা রুজু হয়। রাজশাহীর পুলিশ সুপার এ বি এম মাসুদ হোসেন বিপিএম ( বার) দিকনির্দেশনায় বিষয়টি গুরুত্বের সাথে নিয়ে  তদন্ত কার্যক্রম আরম্ভ করে দুর্গাপুর  থানা পুলিশ।

অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ( ক্রাইম এন্ড অপস)  সনাতন চক্রবর্তীর তত্তাবধানে দুর্গাপুর  থানা পুলিশ গোপন ও প্রকাশ্য অনুসন্ধান, কথিত ভিকটিমের সন্দেহজনক আচরণ  ও ঘটনার পারিপার্শ্বিকতা পর্যালোচনা করে  ছিনতাই  ঘটনার রহস্য উদঘাটিত করতে সক্ষম   হয় ও  ঘটনার সাথে জড়িত মূল পরিকল্পনাকারী জাহিদসহ সহযোগী তার দুই বন্ধুকে গ্রেফতার করা হয়।

এছাড়া ছিনতাইকৃত তিন লক্ষ ষোল হাজার টাকার মধ্যে দুই লক্ষ সাতাত্তর হাজার টাকা উদ্ধার করা সম্ভব হয়েছে।  গ্রেফতারকৃত তিনজনকে শুক্রবার বিজ্ঞ আদালতে সোপার্দ করা হয়েছে।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
উপে