‘রিমান্ডে ভয় দেখিয়ে জবানবন্দী নেয়া হয় সেই ফয়সালের’

প্রকাশিত: এপ্রিল ১৬, ২০২২; সময়: ১:১৮ pm |

নিজস্ব প্রতিবেদক : প্রিমিয়ার ব্যাংকের রাজশাহী শাখা থেকে প্রায় সাড়ে ৩ কোটি টাকা সরিয়ে নেয়ার ঘটনায় গ্রেপ্তার শামসুল ইসলাম ফয়সালকে রিমান্ডে ভয়ভীতি দেখিয়ে জোর করে স্বীকারোক্তি নেয়া হয়েছে বলে দাবি করেছেন তার মা শামসুন নাহার।

এ ঘটনায় জড়িত রাঘব-বোয়ালদের সামনে আনতে উচ্চ পর্যায়ের তদন্ত দাবি করেছেন তিনি। গতকাল শনিবার (১৬ এপ্রিল) বেলা ১১টায় রাজশাহী প্রেসক্লাবে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এমন দাবি জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনারও হস্তক্ষেপ কামনা করেন।

সংবাদ সম্মেলনে শামসুন নাহার বলেন, ২০১২ সাল থেকে প্রিমিয়ার ব্যাংক সততার সঙ্গে চাকরি করছিলেন আমার ছেলে। ব্যাংকে বারবার অডিট হয়। একবারো টাকা লোপাট বা অনিয়মের ঘটনায় তার সম্পৃক্ততা পাননি অফিসাররা। অথচ সাড়ে ৩ কোটি টাকা সরিয়ে নেয়ার অভিযোগে ২০২০ সালের জানুয়ারি মাসে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। গ্রেপ্তারের পর ব্যাংকটির ম্যানেজার সেলিম রেজা আমার ছেলেকে ফুঁসলিয়ে ১৬৪ ধারায় ম্যজিস্ট্রেটের কাছে জবানবন্দী দিতে বলেন। দুদিনের মধ্যে জামিনে বের করে আনার প্রলোভন দেখান ম্যানেজার সেলিম।

ফয়সালের মা জানান, তার ছেলেকে গ্রেপ্তারের পর নেয়া হয় রিমান্ডে। তার আগেও রিমান্ডের ভয় দেখানো ছাড়াও ইনকাউন্টারে প্রাণে মেরে ফেলারও ভয় দেখানো হয়। ফলে ভয়ে ১৬৪ ধারায় দোষ স্বীকার করে জবানবন্দী দেন সে।

ওইদিন ফয়সালকে পুলিশভ্যানে না নিয়ে মোটরসাইকেলে করে ম্যাজিস্ট্রেটের কাছে হাজির করা হয়। পরে ব্রেইন স্ট্রোক করেন তিনি। এ ঘটনায় ছেলের মুক্তি ও নেপথ্যের রাঘব বোয়ালদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণের দাবি জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন শামসুন নাহার। সংবাদ সম্মেলনে ফয়সালের পিতা নজরুল ইসলামও উপস্থিত ছিলেন।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
উপে