রাজশাহীতে ২ ভুয়া চিকিৎসক গ্রেপ্তার

প্রকাশিত: জানুয়ারি ১৮, ২০২২; সময়: ৯:০৩ pm |

নিজস্ব প্রতিবেদক : রক্ত পরীক্ষার নামে রোগীর স্বজনকে মারপিট করে আটক রাখার পর জোরপূর্বক টাকা আদায় এবং নির্যাতনের অভিযোগে দুই ভুয়া চিকিৎসককে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। মঙ্গলবার দুপুরে নগরীর লক্ষ্মীপুর এলাকায় অভিযান চালিয়ে পুলিশ তাদের গ্রেপ্তার করে।

গ্রেপ্তারকৃতরা হলেন, নগরীর কেশবপুর এলাকার নজরুল ইসলামের ছেলে সালমান শরিফ বাবু (৩৫) ও চাঁপাইনবাবগঞ্জ গোমস্তাপুরের মকরমপুরের মইদুল ইসলামের ছেলে জাহিদুল ইসলাম জাহিদ (৩৭)। জাহিদ নগরীর লক্ষ্মীপুর কাঁচাবাজার এলাকায় বসবাস করে।

পুলিশ জানায়, নওগাঁর আত্রাইয়ের মাধবপুরে সিরাজুল ইসলাম নামের এক ব্যক্তি রাজশাহী মেডিকেল কলেজ (রামেক) হাসপাতালের ১৬ নম্বর ওয়ার্ডে চিকিৎসাধীন ছিলেন। সোমবার রাত ১০টার দিকে শরিফ নিজেকে চিকিৎসক পরিচয় দিয়ে সিরাজুল ইসলামের শরীর থেকে রক্ত সংগ্রহ করে। একই সাথে আরো কয়েকজন রোগীর শরীর থেকেও রক্ত নেয় শরিফ। হাসপাতালের চিকিৎসকরা মনে করেছে রোগীরা পরীক্ষার জন্য রক্ত দিয়েছে।

এদিকে, রক্ত সংগ্রহের পর শরিফ রোগী সিরাজুলের ছেলে সুমন আলীকে একঘণ্টা পর রাজশাহী ডায়াগনস্টিক সেন্টার থেকে পরীক্ষার রির্পোট সংগ্রহ করার জন্য বলে। সুমন আলী রাত ১১ টায় রাজশাহী ডায়াগনস্টিক সেন্টারে তার বাবার পরীক্ষার রিপোর্ট চাইতে গেলে পরীক্ষা বাবদ ৪ হাজার টাকা দাবি করে।

সুমন বলেন, রামেকের সরকারি চিকিৎসক ভেবে তারা পরীক্ষা করার জন্য রক্ত দিয়েছে। এতো টাকা দেওয়ার তাদের সামর্থ্য নেই। তাই সে তার বাবার কাগজ ফেরৎ চাইলে গ্রেপ্তারকৃত সালমান ও জাহিদসহ কয়েকজন ডায়াগনস্টিক সেন্টারে তাকে আটক রেখে মারপিট করে। এসময় সুমনের থেকে ৪ হাজার ৫০ টাকা জোর করে কেড়ে নেয়। পরে বিষয়টি পুলিশকে জানানো হয়।

রাজপাড়া থানার ওসি মাজহারুল ইসলাম জানান, সুমনের অভিযোগ রাজপাড়া থানায় একটি নিয়মিত মামলা হয়। পরবর্তীতে নগরীর লক্ষ্মীপুরে রাজশাহী ডায়াগনস্টিক সেন্টারে অভিযান চালিয়ে শরিফ ও জাহিদকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। সুমনের মামলায় তাদের গ্রেপ্তার দেখানো হয়েছে।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
উপরে