বাগমারায় প্রিজাইডিং অফিসারের বিরুদ্ধে ভোট কারচুপির অভিযোগ

প্রকাশিত: জানুয়ারি ৯, ২০২২; সময়: ৭:০৪ pm |

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক, বাগমারা : পঞ্চম ধাপের ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে রাজশাহীর বাগমারায় হামিরকুৎসা ইউনিয়নের তিনটি কেন্দ্রে প্রিজাইডিং অফিসারের বিরুদ্ধে ফলাফল কারচুপির অভিযোগ করেছেন পরাজিত প্রার্থী শাফিনুর নাহার, ছানোয়ারা খাতুন, রাশেদুল হক ফিরোজ ও বেলাল উদ্দীন শাহ্ । ওই ঘটনায় শাফিনুর নাহার বাদী হয়ে উপজেলা রিটানিং কর্মকর্তার দপ্তরে একটি লিখিত অভিযোগ দাখিল করেছেন। অভিযোগ পাওয়ার বিষয়টি স্বীকার করলেও তাদের কিছুই করার নেই, তবে আদালতে আশ্রয় নিতে পারেন বলে তিনি এই প্রতিবেদক জানিয়েছেন।

রিটানিং কর্মকর্তার দপ্তরের লিখিত অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, গত ৫ জানুয়ারী রাজশাহীর বাগমারা উপজেলার ১৬ টি ইউনিয়নের একযোগে নির্বাচন অনুষ্টিত হয়। নির্বাচনে তিনজন প্রিজাইডিং অফিসার সরাসরি স্বতন্ত্র ( আ’লীগ বিদ্রোহী) প্রার্থী আনোয়ার হোসেনের পক্ষ নিয়ে অন্য স্বতন্ত্র প্রার্থী শাফিনুর নাহারের ঘোড়ার ভোট গুলো আনারস প্রতিককে দিয়ে পাশ করে দেয়। ওই তিনটি কেন্দ্রের ভোট কারচুপির কারনে স্বতন্ত্র প্রার্থী শাফিনুর নাহার ৮৯ ভোটের ব্যবধানে ঘোড়া প্রতিকের কাছে পরাজিত হন।

তিনি অভিযোগ করেন, সুষ্ঠ ও সুন্দর পরিবেশে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হলেও হামিরকুৎসা ইউনিয়নের তালঘরিয়া, কোনাবাড়িয়াসহ তিনটি কেন্দ্রের প্রিজাইডিং অফিসার কয়েকজন প্রভাবশালী আ’লীগ নেতার চাপের মুখে নৌকার প্রার্থীর বিরুদ্ধে অবস্থান নেন এবং বিদ্রোহী প্রার্থী আনোয়ার হোসেনের পক্ষে ফলাফল ঘোষনার নির্দেশ দেন। ওই সকল নেতাদের নির্দেশ মোতাবেক প্রিজাইডিং অফিসার ভোটের ফলাফল প্রকাশ করেন। এছাড়াও তিনি তার অভিযোগ পত্রে উল্ল্যেখ করেন, তিনটি কেন্দ্রে ভোট গননার সময় আ’লীগ বিদ্রোহী আনোয়ার হোসেনের এজেন্ট ছাড়া অন্যান্য প্রার্থীদের এজেন্টদের মুঠোফোন কেড়ে নিয়ে ঘরে বন্দী করা রাখা হয়।

ঘটনাটি জানাজানি হলে এলাকার ভোটারেরা সংঘবদ্ধ হয়ে সেখানে যাওয়ার চেষ্টা করে। খবর পেয়ে প্রিজাইডিং অফিসারগন ব্যালট বাক্স নিয়ে দ্রুত উপজেলায় চলে আসেন এবং রিটানিং কর্মকর্তার দপ্তরে ফলাফল জমা দিয়ে চলে যান। অফিযোগকারী শাফিনুর নাহার জানান, সুষ্ঠ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হলেও ফলাফল নিয়ে কারচুপি করেছেন প্রিজাইডিং অফিসার। ভোট গণনায় আইন শৃংখলা বাহিনীর দায়ীত্ব না থাকায় প্রিজাইডিং অফিসার এমন কারচুপির সুযোগ পেয়েছে বলে তিনি অভিযোগ করেছেন।

এ ব্যাপারে নির্বাচনে দায়ীত্ব থাকা রিটানিং কর্মকর্তা কৃষিবিদ রাজিবুর রহমান অভিযোগ পাওয়ার বিষয়টি স্বীকার করে বলেন, এখানে কাউরে কিছুই করার নেই। ইচ্ছে করলে ওই প্রার্থী আদালতে আশ্রয় নিয়ে পূর্ণ:রায় ভোট গণনার ব্যবস্থা গ্রহন করতে পারেন।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
উপরে