বাগমারার শ্রীপুর ইউনিয়নে মকবুল মৃধাই একমাত্র ভরসা

প্রকাশিত: নভেম্বর ২০, ২০২১; সময়: ২:৪৮ pm |

নিজস্ব প্রতিবেদক, বাগমারা : আসন্ন ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে রাজশাহীর বাগমারার শ্রীপুর ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে আওয়ামী লীগের মকবুল হোসেন মৃধাই একমাত্র ভরসা। তাঁকেই দলীয় মনোনয়ন দেওয়ার দাবি জানিয়েছেন আওয়ামী লীগের নেতা-কর্মী ছাড়াও সাধারণ ভোটারেরা। বিকল্প প্রার্থী দেখছেন না ইউনিয়নবাসী। নৌকার বিজয় নিশ্চিত করতে তাই মকবুল হোসেন মৃধাকেই চাচ্ছেন শ্রীপুরবাসী। জনপ্রিয় এই নেতা নৌকার বিজয়ের জন্য মাঠে থেকে কাজ করে যাচ্ছেন।

মকবুল হোসেন মৃধা শ্রীপুর ইউনিয়নের প্রতিষ্ঠাতা ও আওয়ামী লীগের সভাপতি এবং চেয়ারম্যান। তিনি এই ইউনিয়নের প্রথম চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন। এর পর থেকে আওয়ামী লীগের প্রার্থী হিসাবে চেয়ারম্যানের পদ ধরে রেখেছেন। বিপুল ভোটে বিএনপির প্রার্থীদের পরাজিত করে তিনি চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়ে আসছেন।

এই নেতার জনপ্রিয়তায় ঈর্ষান্বিত হয়ে জঙ্গিরা হত্যার জন্য গুলি করে। গত ২০০৫ সালের ২২ জানুয়ারি তাঁকে হত্যার জন্য গুলি চালায় জঙ্গিরা। স্থানীয় লোকজনের প্রতিরোধের মুখে জঙ্গিরা গুলি করতে করতে ও বোমা ফাটিয়ে পালিয়ে যায়। এসময় জঙ্গিদের বোমা হামলায় খয়রা গ্রামের আওয়ামী লীগ নেতা মাহাবুর রহমান নিহত হন। জনতার প্রতিরোধের মুখে পড়ে গণপিটুনিতে তিনজঙ্গি নিহত হলে গোটাবিশে^ বিষয়টি আলোচিত হয়।

এতে জামায়াত-বিএনপির মুখোশ উম্মোচিত হয়। দীর্ঘদিন চিকিৎসার পর সুস্থ হয়ে আবারো রাজনীতিতে সক্রিয় হন মকবুল হোসেন মৃধা। বিএনপির শাসনামলে তিনি ও তাঁর দলীয় নেতা-কর্মীরা বিভিন্ন ভাবে নির্যাতিত হন। অর্ধডজন হয়রানিমূলক মামলার আসামি হতে হয় তাঁকে। দলীয় নেতা-কর্মীদের পাশে থেকে তাদের উদ্ধার করা ছাড়াও দলকে শক্তিশালী করার জন্য কাজ করেন।

বর্তমান সরকার ক্ষমতায় আসার পর থেকে স্থানীয় সাংসদ ইঞ্জিনিয়ার এনামুল হকের সহযোগিতায় ইউনিয়নের ব্যাপক উন্নয়ন করেছেন। মোড়ে মোড়ে বিশুদ্ধ খাবার পানি সরবরাহের জন্য সাবমার্সেবল পানির পাম্প স্থাপন, সৌরবাতি বসানো, রাস্তা পাকাকরণ, এইচবিবি করণ, মাটি দিয়ে নতুন রাস্তা নির্মাণ ও সংস্কার, গৃহহীনদের বাড়ি নির্মাণসহ বিভিন্ন উন্নয়নমূলক কাজ এখন চোখে পড়ে। বিগত বিএনপির আমলেও চেয়ারম্যান থাকলেও সরকারের অসহযোগিতা এবং ঈর্ষার কারণে উন্নয়ন করতে পারেননি। তবে বর্তমান সাংসদের সহযোগিতায় ইউনিয়নের চিত্র পাল্টে ফেলেছেন মকবুল হোসেন মৃধা। চেয়ারম্যানের তৎপরতায় ইউনিয়নের সর্বত্র এখন উন্নয়নের দৃশ্য চোখে পড়ে।

এসব কারণে মকবুল হোসেন মৃধা দল ও এলাকায় অপ্রতিদ্বন্দ্বি হয়েছেন। উন্নয়নের জন্য আগামীতে তাঁকেই চেয়ারম্যান হিসাবে ভাবছেন ভোটারেরা। তাঁকে সমর্থন জানিয়ে গত ১৯ নভেম্বর দলীয় নেতা-কর্মী ও সাধারণ ভোটারেরা মোটরসাইকেল শোভাযাত্রা এবং গণসমাবেশ করেছে। চেয়ারম্যান মকবুল হোসেন মৃধার নেতৃত্বে বিকেলে নয় শতাধিক মোটরসাইকেলের একটি শোভাযাত্রা বের হয়ে গোটা ইউনিয়ন প্রদক্ষিণের পর রাতে গোয়ালকান্দা স্কুলমাঠে সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। সমাবেশে তিন হাজার লোকজন উপস্থিত ছিলেন। আওয়ামী লীগের নেতা ছাড়াও বিভিন্ন পেশার লোকজন বক্তব্য রাখেন।

ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের নেতা শিক্ষক জাহাঙ্গীর আলম জানান, মকবুল হোসেন এমপি মহোদয়ের সহযোগিতা নিয়ে এলাকায় ব্যাপক উন্নয়ন করেছেন। জনবান্ধব এই নেতার কোনো বিকল্প নেই। তাই শ্রীপুরের লোকজন আবারো মকবুল হোসেন মৃধাকে চেয়ারম্যান হিসাবে দেখতে চাচ্ছেন। মুক্তিযোদ্ধা কমাণ্ডার ময়েজ উদ্দিন বলেন, মকবুল হোসেনের বাবা একজন প্রয়াত বীর মুক্তিযোদ্ধা। স্বাধীনতা স্বপক্ষের লোক ও আওয়ামী লীগের নিবেদিত প্রাণ ছিলেন তিনি।

তার বিকল্প শ্রীপুরে আর কেউ নেই। দল ও ইউনিয়নবাসীর ভরসা মকবুল হোসেন মৃধাই। এই ইউনিয়নে মকবুল হোসেন মৃধা ছাড়াও আওয়ামী লীগের মনোনয়ন চাচ্ছেন ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি মোজাফ্ফর হোসেন ও সদ্য দলে আসা জিল্লুর রহমান। তবে মোজাফ্ফর হোসেন মকবুল হোসেনের সঙ্গে বিভিন্ন সমাবেশ ও গণসংযোগে উপস্থিত থাকছেন।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
উপরে