বাগমারায় মচমইল কেন্দ্রে ভিন্ন আঙ্গিকে হচ্ছে এসএসসি পরীক্ষা

প্রকাশিত: নভেম্বর ১৫, ২০২১; সময়: ৪:৩৭ pm |

নিজস্ব প্রতিবেদক, বাগমারা : সারা দেশের ন্যায় রাজশাহীর বাগমারায় অনুষ্ঠিত হচ্ছে এসএসসি ও সমমান পরীক্ষা। তিন বোর্ডের অধিনে রোববার থেকে শুরু হয়েছে এই পরীক্ষা। প্রথম দিনে এক শিফটে পরীক্ষা হলেও দ্বিতীয় দিনে দুই শিফটে হয়েছে পরীক্ষা।

সোমবার সকাল ১০ টা থেকে অনুষ্ঠিত হয় বাংলাদেশ ও বিশ্ব সভ্যতার ইতিহাস বিষয়ের পরীক্ষা। উক্ত পরীক্ষায় মচমইল বহুমুখী উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্রে মোট পরীক্ষার্থী ছিল ২৮৫ জন এর মধ্যে অনুপস্থিত ছিল ৬ জন।

সরকারী নিয়মানুসানে সামাজিক দূরত্ব এবং স্বাস্থ্যবিধি মেনে নেয়া হচ্ছে এবারের পরীক্ষা। সময়ের সাথে সাথে কমানো হয়েছে পরীক্ষার পূর্ণমান। সোমবার উপজেলার বেশ কয়েকটি কেন্দ্রে গিয়ে দেখা গেছে প্রতিটি বেঞ্চে দুই জন করে পরীক্ষার্থী বসানো হয়েছে।

ব্যতিক্রম নিয়ম দেখা গেছে উপজেলার মচমইল বহুমুখী উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্রে। এখানে নিজস্ব নিয়মে সামাজিক দূরত্ব নিশ্চিতের পাশাপাশি মানা হয়েছে স্বাস্থ্যবিধি। পরীক্ষা শুরুর আগেই প্রতিটি শিক্ষার্থীর শারীরিক তাপমাত্রা পরীক্ষা করে কেন্দ্রে প্রবেশ করানো হয়। সেই সাথে প্রতিটি শিক্ষার্থী যেন মাস্ক পরে কেন্দ্রে প্রবেশ করে সেটাও দেখা হচ্ছে। ব্যবহার করা হচ্ছে হ্যান্ড স্যানিটাইজার।

অন্যদিকে প্রতিটি কক্ষের মাঝ খানের বেঞ্চ ফাঁকা রেখে দুই পাশের বেঞ্চে বসানো হয়েছে পরীক্ষার্থীদের। শান্তিপূর্ণ এবং নকল মুক্ত পরিবেশে অনুষ্ঠিত হচ্ছে এই কেন্দ্রের সকল পরীক্ষা। মাদ্রাসা, সাধারণ শিক্ষা বোর্ড এবং কারিগরি শিক্ষা বোর্ডের আওতায় উপজেলার ১১টি কেন্দ্রে একযোগে অনুষ্ঠিত হচ্ছে এবারের পরীক্ষা।

মচমইল বহুমুখী উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্রের কেন্দ্র সচিব, প্রধান শিক্ষক নাসির উদ্দীন খাঁন বলেন, আমরা পরীক্ষার পাশাপাশি পরীক্ষার্থীদের স্বাস্থ্যগত বিষয়ে গুরুত্ব প্রদান করেছি। গাদাগাদি করে না বসিয়ে মাঝের বেঞ্চ ফাঁকা রেখে দুই ধারে সিট বসানো হয়েছে। করোনা মহামারীর কারনে সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে শিক্ষার্থীরা। তাদের কথা চিন্তা করেই ব্যতিক্রম নিয়মে পরীক্ষা নেয়ার ব্যবস্থা করা হয়েছে।

প্রতিটি কেন্দ্রে কোন অপ্রীতিকর ঘটনা যেন না ঘটে সে জন্য উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে একজন করে ট্যাগ অফিসার দায়িত্ব পালন করছেন। উপজেলায় চলতি বছর এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষায় অংশ নিয়েছেন ৬ হাজার ৯ শত ৩০ জন পরীক্ষার্থী।

এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ফারুক সুফিয়ান বলেন, প্রতিটি কেন্দ্রে শান্তিপূর্ণ পরিবেশে এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হচ্ছে। কেন্দ্রগুলোতে একজন করে ট্যাগ অফিসার দায়িত্ব পালন করছে। পরীক্ষা কেন্দ্রে কোন ধরনের অপ্রীতিকর ঘটনার খবর পাওয়া যায়নি।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
উপরে