বাগমারায় বিদ্যুতের তারে জড়িয়ে যুবকের মর্মান্তিক মৃত্যু

প্রকাশিত: সেপ্টেম্বর ১৫, ২০২১; সময়: ৭:৪৯ pm |

নিজস্ব প্রতিবেদক, বাগমারা : ছাগলের জন্য গাছের পাতা কাটতে গিয়ে বিদ্যুতের মেইল লাইনে জড়িয়ে মর্মান্তিক মৃত্যু হয়েছে বাবুল হোসেন (৩৬) নামে এক ব্যক্তির। বুধবার দুপুরে বাড়ির পাশে একটি মেহগুনি গাছ থেকে পাতা কাটতে গিয়ে তার মৃত্যু হয়। বাগমারা উপজেলার নরদাশ ইউনিয়নের পারিলা গ্রামে এই ঘটনা ঘটেছে।

স্থানীয়রা জানান, নিহত বাবুল হোসেন পেশায় ভ্যান চালক। ভ্যান চালিয়ে দুপুরে বাড়ি ফিরছিলেন। বাড়ি আসার পথে দেখতে পান লোকজন মেহগুনি গাছ কাটছেন। বাড়িতে পৌঁছে ভ্যান রেখে হাতে একটি হাসুয়া নিয়ে সেই গাছে উঠেন বাবুল হোসেন। আগে থেকেই একটি ডাল কাটা ছিল যা বিদ্যুতের ওই তারে বেধে ছিল।

বাবুল হোসেন বুঝতে না পেরে তারা আটকিয়ে থাকা সেই ডাল নামানো জন্য হাত দেয়। এ সময় ওই লাইনে বিদ্যুৎ থাকায় বাবুল হোসেনকে ধরে ফেলে। এবং বাবুলের দেহে আগুন ধরে যায়। আগুনে পট পট করে পুড়তে থাকে বাবুল হোসেন। বিষয় বুঝতে পেরে গাছ কাটা লোকজন দ্রুত গাছের নিকটে যায়। বিদ্যুতের তারেই আগুনে পুড়ে মারা যায় বাবুল। মৃত্যুর পরে একাই মাটিতে ছিটকে পড়ে যায়।

নিহত বাবুল হোসেন পারিলা গ্রামের মৃত আব্দুস সাত্তারের ছেলে। সংসারে একমাত্র উপার্জনের ব্যক্তি ছিলেন বাবুল হোসেন। বাবুল হোসেন তার মা, স্ত্রী এবং এক সন্তান নিয়ে বসবাস করতেন। স্থানীয়রা আরো বলেন, একই গ্রামের মজিবর রহমান তার মেহগুনি গাছ শহিদুল ইসলাম নামের গাছের পাইকারের নিকট বিক্রয় করে।

শহিদুল তার ক্রয়কৃত গাছ লোকজন দিয়ে কাটছিলেন। দুপুর হওয়ায় লোকজন গাছ কাটা রেখে খেতে বসে। সেই সময় সবার অজান্তে পাতা কাটতে ওই গাছে উঠে বাবুল হোসেন। পরে স্থানীয় লোকজন বাগমারা থানায় খরব দিলে দ্রুত ঘটনাস্থলে পৌঁছায় পুলিশ। বাগমারা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোস্তাক আহম্মেদ বলেন, বিদ্যুতের তারে জড়িয়ে মৃত্যুর ঘটনায় থানায় একটি অপমৃত্যুর মামলা দায়ের করা হয়েছে।

  • 23
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
উপরে