রাজশাহীতে নেসকোর ভবন নির্মাণে অনিয়মের অভিযোগ

প্রকাশিত: সেপ্টেম্বর ৮, ২০২১; সময়: ৪:০৬ pm |

নিজস্ব প্রতিবেদক : আধুনিক নাগরিক সেবা পৌঁছে দিতে প্রযুক্তির সাথে তাল মিলিয়ে দেশকে এগিয়ে নিতে কাজ করছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তার ধারাবাহিকতায় হাজারো কর্মকান্ডের মাঝে ঘরে ঘরে বিদ্যুৎ পৌঁচ্ছে দেয়া অন্যতম। শতভাত বিদ্যুৎ সুবিধা নিশ্চিত করতে চলছে শেখ হাসিনা সরকারের নানামুখি উন্নয়ন কর্মকান্ড।

বিদ্যুৎ উন্নয়নের ধারাবাহিকতায় রাজশাহীর মহানগরীর হড়গ্রামে পূর্বপাড়া নর্দান ইলেকট্রিটিসি সাপ্লাই কোম্পানী (নেসকো) এর বিক্রয় ও বিতরণ বিভাগ-২ এর ভবন নির্মাণের কাজ চলছে। তবে সেই কাজটি চলছে দায়সারাভাবে ধীর গতিতে।

এছাড়াও এই কাজের শুরুতেই অনিয়মের অভিযোগ উঠেছে ঠিকাদার ও নেসকোর কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে। যেখানে বালু ফেলার নিয়ম; সেখানে মাটি ফেলে চলছে নির্মাণ কাজ। আর এ নিয়ে এলাকার সচেতন মহল উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন। কাজের গুণগত মান নিয়ে তুলেছেন প্রশ্ন। সঠিক বাস্তবায়ন কিভাবে হবে তা নিয়ে শঙ্কিত এলাকাবাসী।

অনুসন্ধানে জানা গেছে, এই ভবনের কাজের জন্য সংশ্লিষ্ঠরা পছন্দমত কথিত ঠিকাদার দিয়ে প্রথম থেকেই কাজ করাচ্ছে। এই ঠিকাদারের বিষয়েও স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতাকর্মী ও এলাকাবাসীর রয়েছে বিস্তার অভিযোগ।

মঙ্গলবার হড়গ্রাম এলাকায় গিয়ে দেখা যায়, ১০ থেকে ১২ জন শ্রমিক কাজ করছে। সামনে অল্প কিছু বালু ফেলা হলেও পুরো কাজে মাটি দিয়ে ভরাট করা হচ্ছে।

কথা হয় সেখানে দায়িত্বরত আনসার সদস্য সানজিদের সাথে। তিনি বলেন, কয়েকদিন এই ভাবেই কাজটি চলছে। এ বিষয়ে আমরা কিছু বলতে পারবো না। ঠিকাদার জানে।

সেখানে কর্মরত শ্রমিক জামাল মিয়া জানান, প্রতিদিন অনেক পানি উঠছে তা মেশিন দিয়ে সরিয়ে আমরা মাটি ফেলছি। কর্তপক্ষ তাই বলেছে।

শ্রমিক রুবেল জানান, গত কয়েক সপ্তাহ থেকেই এখানে অনেক পানি উঠছে। ঠিকমত কাজ করতে পারছি না। একদিকে পানি তুললে আরেক দিকে পানি আসছে। এখানে বালু ফেলার দরকার মাটি কেন ফেলছে তা বুঝতে পারছি না। নিচে শুকানো দরকার কিন্তু কাঁদা রেখেই আমাদের মাটি ফেলতে বলেছে।

স্থানীয় বাসিন্দা বিপুল জানান, এখানে যে ভাবে কাজ হচ্ছে তা অত্যন্ত খারাপ মানের। এমন ভাবে কাজ করলে যে ভবন ১০০ বছর টিকবে তা ২০ বছরেও টিকবে না। আমরা চাই কাজটি সঠিক ভাবে হোক।

স্থানীয় চা বিক্রেতা আব্দুল কাদের জানান, কাজ খারাপ হচ্ছে এটা সবাই জানে। কিন্তু কেউ এর প্রতিবাদ করে না। বৃষ্টির পানি কাঁদায় সেখানে মাটি ফেলা হচ্ছে তার মাঝে চলছে কাজ। এভাবে কাজ করলে যে ভিত গড়া হচ্ছে তা মজবুত হবে না।

নেসকোর রাজশাহীর বিতরণ অঞ্চলের প্রধান প্রকৌশলী আব্দুর রশিদ বলেন, যে ভবনটি হচ্ছে তা পিডিবি করছে। তবে তা আমরাই পাবো। কাজের গুনাগত মান খারাপ এই বিষয়ে আমি জানতাম না। ভবনের কাজ দেখতে আমি সেখানে যাবো। কাজের গুনাগত মান খারাপ হলে অবশ্যই উর্দ্ধোতন কর্মকর্তাদের অবহিত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করবো।

  • 203
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
উপরে