ঠিকাদারের সঙ্গে প্রমোদ ভ্রমণে গোদাগাড়ী পৌরসভার ভারপ্রাপ্ত মেয়র

প্রকাশিত: আগস্ট ২৯, ২০২১; সময়: ৫:৫০ pm |

নিজস্ব প্রতিবেদক : সুইমিং পুলে গোদাগাড়ী পৌরসভার মেয়র মোহাম্মদ ওবাইদুল্লাহ (বামে), মধ্যে ভারপ্রাপ্ত সচিব সারোয়ার জাহান মুকুল ও ডানে লাল গেঞ্জি পরে ঠিকাদার আকবর আলীসুইমিং পুলে গোদাগাড়ী পৌরসভার মেয়র মোহাম্মদ ওবাইদুল্লাহ (বামে), মধ্যে ভারপ্রাপ্ত সচিব সারোয়ার জাহান মুকুল ও ডানে লাল গেঞ্জি পরে ঠিকাদার আকবর আলী।

রাজশাহীর গোদাগাড়ী পৌর এলাকায় ১২ কোটি টাকার একটি সড়ক ও ড্রেনেজ উন্নয়ন প্রকল্পের কাজ চলছে। সেই কাজের ঠিকাদারের সঙ্গে প্রমোদ ভ্রমণে গেছেন পৌরসভার ভারপ্রাপ্ত মেয়র। সুইমিং পুলে ঠিকাদারের সঙ্গে মেয়রের সাঁতার কাটার একটি ছবি সামাজিক মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়লে এ নিয়ে সমালোচনা শুরু হয়।

ভারপ্রাপ্ত মেয়রের নাম মোহাম্মদ ওবাইদুল্লাহ। তিনি পৌরসভার ৯ নম্বর ওয়ার্ড থেকে কাউন্সিলর নির্বাচিত হয়ে প্যানেল মেয়র-১ হয়েছেন। গত এপ্রিলে পৌরসভার মেয়র মনিরুল ইসলাম বাবু মারা গেলে মোহাম্মদ ওবাইদুল্লাহ ভারপ্রাপ্ত মেয়র হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। ঠিকাদারের সঙ্গে প্রমোদ ভ্রমণে যেতে তিনি পৌরসভার মাসিক সভা স্থগিত করে দিয়েছেন বলে জানা গেছে।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, ২৩ আগস্ট গোদাগাড়ী পৌরসভার মাসিক সভা হওয়ার কথা ছিল। এ জন্য এক সপ্তাহ আগেই নোটিশ করা হয়। কিন্তু মন্ত্রণালয়ে জরুরি কাজ আছে জানিয়ে সভাটি এক দিন আগে স্থগিত করে দেন ভারপ্রাপ্ত মেয়র। এরপর ২২ আগস্ট ভারপ্রাপ্ত ওবাইদুল্লাহ, ভারপ্রাপ্ত সচিব সারোয়ার জাহান মুকুল এবং ঠিকাদার আকবর আলী বিমানে করে রাজশাহী থেকে ঢাকায় যান।

ঢাকায় তিন দিন থাকার পর ২৫ আগস্ট বিকেলে তাঁরা বিমানে চড়েই প্রমোদ ভ্রমণে চলে যান কক্সবাজার। সেখানে আছেন বিলাসবহুল রিসোর্ট হোটেল সি-গালে। এরই মধ্যে শনিবার ভারপ্রাপ্ত মেয়র, ভারপ্রাপ্ত সচিব ও ঠিকাদার আকবর আলীর সুইমিং পুলে সাঁতরানোর ছবি এসেছে ফেসবুকে।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, পৌরসভার ১২ কোটি টাকার একটি কাজ করছে ঠিকাদার আকবর আলীর প্রতিষ্ঠান সোনিয়া এন্টারপ্রাইজ। দীর্ঘদিন ধরেই পৌরসভার বেশির ভাগ কাজ করছে প্রতিষ্ঠানটি।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে শনিবার বিকেলে ভারপ্রাপ্ত মেয়র মোহাম্মদ ওবাইদুল্লাহ বলেন, ‘আমি একটু ঘুরতে এসেছি।’ এ জন্য সভা স্থগিত কি না জানতে চাইলে বলেন, না মন্ত্রণালয়ে কাজ ছিল। কাজ সেরে তারপর কক্সবাজার এসেছি। তিনি প্রথমে ঠিকাদার আকবর আলীর সঙ্গে থাকার বিষয়টি অস্বীকার করেন। পরে ছবিতে ঠিকাদারকে দেখতে পাওয়ার বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি স্বীকার করেন।

স্থানীয় সরকার বিভাগের রাজশাহীর উপ-পরিচালক ও ভারপ্রাপ্ত জেলা প্রশাসক শাহানা আখতার জাহান বলেন, ভারপ্রাপ্ত মেয়র যদি ঠিকাদারের সঙ্গে ঘুরতে যান, তাহলে সেটা ঠিক হয়নি। কেউ অভিযোগ করলে মন্ত্রণালয়কে জানানো হবে।
সূত্র:- আজকের পত্রিকা

  • 34
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
উপরে