নওহাটায় আংশীদারদের সাথে খসড়া সমোঝতা চুক্তি বিষয়ে আলোচনা

প্রকাশিত: আগস্ট ২৩, ২০২১; সময়: ৭:২৯ pm |

নিজস্ব প্রতিবেদক : রাজশাহীর পবার নওহাটায় আংশীদারদের সাথে খসড়া সমোঝতা চুক্তি বিষয়ে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। সোমবার দুপুরে ওয়ার্ল্ড ভিশন বাংলাদেশ পবা এপি’র আয়োজনে নওহাটা পৌরসভার মেয়র এর অফিস কক্ষে এ সভা অনুষ্ঠিত হয়। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন নওহাটা পৌর মেয়র হাফিজুর রহমান হাফিজ।

আলোচনা সভার লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য নিয়ে স্বাগত বক্তব্য রাখেন ওয়ার্ল্ড ভিশন বাংলাদেশ এর পবা এপির প্রোগ্রাম অফিসার ও ভারপ্রাপ্ত এপি ম্যানেজার মি. লরেন্স মন্ডল। তিনি বিশেষ করে ভিডিসি শেয়ার্ড প্ল্যান বিষয়ে অবগত করেন। অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন কাউন্সিলর আবু সুফিয়ান, শিশু ফোরামের সভাপতি মোসা: নারজু খাতুন, পবা প্রেস ক্লাবের সভাপতি কাজী নাজমুল ইসলাম।

পৌর সভার মেয়র মো: হাফিজুর রহমান হাফিজ তাঁর বক্তব্যে বলেন, ইতো পূর্বে তিনি শিশু ফোরামের নিকট প্রতিশ্রুতি বদ্ধ হয়েছিলেন যে তিনি শিশু কল্যানের জন্য এক লাখ ৫০ হাজার বাজেট বরাদ্দ রাখবেন এবং তা তিনি পাশ করিয়েছেন। এছাড়ার তিনি শিশু ফোরামের জন্য আগামী বছরে একটি কক্ষ বরাদ্দ দিবেন যেখানে শিশুরা তাদের নিয়মিত কার্যক্রম চালিয়ে নিয়ে যেতে পারবেন। তিনি বলেন পবা এপি, ওয়ার্ল্ড ভিশন বাংলাদেশ একমাত্র এনজিও যারা কর্ম এলাকায় ব্যবসা করে না। আংশীদারদের সাথে সমোঝতা চুক্তি বিষয়টি নিঃসন্দেহে একটি মহতি ও টেকসই কাজের উদ্যোগ। কাজেই তিনি ওয়ার্ল্ড ভিশনের নিঃশ^ার্থ ভাবে এই ধরনের কাজের প্রসংসা করেন। অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন নওহাটা পৌর প্যানেল মেয়র আজিজুল হক, কাউন্সিলর দিদার হোসেন ভুলু, সাংবাদিক সরকার দুলাল মাহবুব, বিভিন্ন ওয়ার্ডের পুরুষ ও নারী কাউন্সিলর, ওয়ার্ল্ড ভিশন বাংলাদেশ পবা এপির বিভিন্ন পর্যায়ের কর্মকর্তা ও সহায়তাকারীগণ।

অংশীদারগণ এই সমঝোতা স্মারকের মাধ্যমে ওয়াল্ডভিশনের কর্ম এলাকায় দারিদ্রতা, শিশু নির্যাতন, বাল্য বিবাহ, অপুষ্টি ও শিক্ষা সুযোগ কম এমন সমস্যা সমাধানে আলোচনা করা হয়। এছাড়াও শিশুদের প্রাক্ প্রাথমিক শিক্ষার সুযোগ সৃষ্টি ও উন্নয়ন, নিয়মিত প্রাক্ প্রাথমিক কার্যক্রম মনিটরিং, শিশুদের পঠন দক্ষতা বৃদ্ধি, পিতামাতা বা অভিভাবকদের শিশুদের সঠিক পরিচর্যার বিষয়ে সচেতন, প্রাথমিক ও মাধ্যমিক শিক্ষার মান উন্নয়নে কার্যক্রম পরিচালনা, হতদরিদ্র উপকারভোগীদের দক্ষতা বৃদ্ধি, পরিবারে আয়বৃদ্ধিমূলক কার্যক্রম গ্রহন ও বাস্তবায়ন, বাল্য বিবাহ সম্পর্কে সচেতনতা বৃদ্ধি ও গ্রামকে বাল্যবিবাহ মুক্ত, শিশুর শারীরিক ও মানসিক প্রতিরোধ ও অধিকার ও সুবিধা বঞ্চিত শিশুদের সহযোগীতা করাসহ বিষয়ে আলোচনা করা হয়।

  • 2
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
উপরে