জুলাইয়ে রাজশাহী বিভাগে বেড়েছে সংক্রমণ ও মৃত্যু

প্রকাশিত: আগস্ট ১, ২০২১; সময়: ৯:১৪ pm |

নিজস্ব প্রতিবেদক : রাজশাহী বিভাগের করোনা শনাক্ত ও মৃত্যুর অর্ধেকের বেশি হয়েছে গত জুন ও জুলাই মাসে। তবে জুন মাসের চেয়ে জুলাই মাসে করোনা শনাক্ত ও মৃত্যু বেশি হয়েছে। এ বিভাগে জুন মাসে করোনা শনাক্ত হয়েছে ২০ হাজার ২৭৯ জনের। মৃত্যু হয়েছে ৩১৫ জনের। জুলাই মাসে করোনা শনাক্ত হয়েছে ২৭ হাজার ২৯৩ জনের। এ সময়ে মারা গেছেন ৪৪৪ জন।

এ বিভাগে ৩১ জুলাই পর্যন্ত করোনা শনাক্ত হয়েছে ৮৩ হাজার ৪৭ জনের। করোনায় মৃত্যু হয়েছে ১ হাজার ৩১৮ জনের। আর জুন ও জুলাই মাসে করোনা শনাক্ত হয়েছে ৪৭ হাজার ৫৭২ জন। এটি মোট শনাক্তের অর্ধেকের বেশি। ওই দুই মাসে মারা গেছেন ৭৫৯ জন। এটিও মোট মৃত্যুর অর্ধেকের বেশি।

স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা জানিয়েছেন, বিভাগে গত রমজানের ঈদের পর চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলাতে প্রথম সংক্রমণের প্রাদুর্ভাব দেখা দেয়। এই জেলায় সংক্রমণ ৬০ শতাংশের ওপরে কয়েক দিন ছিল। মৃত্যুও বাড়তে থাকে। জুন মাসের দিকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি রোগীর অর্ধেকের বেশি ছিল এই জেলার রোগী।

এ সময়ে পুরো রাজশাহী বিভাগের সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়ে। মৃত্যুও বাড়তে থাকে। বর্তমানে বিভাগের বগুড়া, পাবনা, সিরাজগঞ্জ ও নাটোরে কোভিড পরিস্থিতি খারাপ হচ্ছে। বিশেষ করে বিভাগের বগুড়া জেলায় প্রতিদিনই ৫ থেকে ৯ জন করে করোনায় মারা যাচ্ছেন। তবে জুলাইয়ের শেষ দিকে এসে বিভাগের সংক্রমণ ও মৃত্যুহার কিছুটা কমেছে।

বিভাগীয় স্বাস্থ্য দপ্তর সূত্রে জানা গেছে, বিভাগের রাজশাহী জেলাতে গত বছরের ১২ এপ্রিল প্রথম কোভিড পজিটিভ রোগী ধরা পড়ে। প্রথম রোগী মারা যান গত বছরের ২৬ এপ্রিল রাজশাহীতে। ৩১ জুলাই পর্যন্ত বিভাগে করোনা শনাক্ত ৮৩ হাজার ৪৭ জন ও মোট মৃত্যু ১ হাজার ৩১৮ জন। এর মধ্যে গত মে মাস পর্যন্ত শনাক্ত রোগী ছিলেন ৩৫ হাজার ৪৭৫ জন। আর করোনায় মৃত্যু ছিল ৫৫৮ জন। মে মাস পর্যন্ত নমুনা পরীক্ষা করা হয় ২ লাখ ৫৯ হাজার ৮৮৯ জনের।

বিভাগীয় স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের করোনাবিষয়ক প্রতিবেদন বিশ্লেষণ করে দেখা গেছে, বিভাগে জুন মাসে নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে ১ লাখ ১৯ হাজার ৪৫ জনের। এতে করোনা শনাক্ত হয়েছে ২০ হাজার ২৭৯ জনের। এই এক মাসে করোনায় মারা গেছেন ৩১৫ জন। পরীক্ষা অনুপাতে শনাক্তের হার ১৯ দশমিক ৮৯। মৃত্যুর হার ছিল ১ দশমিক ৫৫।

সর্বশেষ জুলাই মাসে এই বিভাগে সবচেয়ে বেশি ১ লাখ ২৫ হাজার ১১১ জনের নমুনা পরীক্ষা করা হয়। করোনা শনাক্ত হয়েছে ২৭ হাজার ২৯৩ জনের। করোনায় এই মাসে মারা গেছেন ৪৪৪ জন। করোনা শনাক্ত ২১ দশমিক ৮১ শতাংশ। শনাক্ত অনুপাতে মৃত্যুর হার ১ দশমিক ৬২। অর্থাৎ, জুন মাসের তুলনায় জুলাই মাসে করোনা শনাক্ত ও মৃত্যুর হার বেড়েছে।

 

এদিকে, ৩১ জুলাই পর্যন্ত বিভাগে মোট মৃত্যু হয়েছে ১ হাজার ৩১৮ জনের। বিভাগের আট জেলার মধ্যে বগুড়ায় সর্বোচ্চ ৫৫৬ জনের মৃত্যু হয়েছে। দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ২৪৪ জনের মৃত্যু হয়েছে রাজশাহী জেলায়। এ ছাড়া চাঁপাইনবাবগঞ্জে ১৩৯ জন, নওগাঁয় ১১৭, নাটোরে ১১৩, জয়পুরহাটে ৫০, সিরাজগঞ্জে ৬৫ ও পাবনায় ৩৪ জনের মৃত্যু হয়েছে।
গত ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যু কমেছে

রাজশাহী বিভাগে শনিবার সকাল আটটা থেকে রোববার সকাল আটটা পর্যন্ত গত ২৪ ঘণ্টায় করোনায় আক্রান্ত হয়ে আরও ৭ জন মারা গেছেন। এর মধ্যে বগুড়ায় ৪ এবং চাঁপাইনবাবগঞ্জ, নওগাঁ ও সিরাজগঞ্জে ১ জন করে মারা গেছেন। আগের দিন মারা গিয়েছিলেন ১৫ জন। এটি বিভাগে ১ মাসের মধ্যে এক দিনে সর্বনিম্ন মৃত্যু।

বিভাগীয় প্রতিবেদন অনুযায়ী, গত ২৪ ঘণ্টায় বিভাগে ৪ হাজার ২৩২ জনের নমুনা পরীক্ষা হয়েছে। এতে করোনা শনাক্ত হয়েছে ৮০৮ জনের। নমুনা পরীক্ষার বিপরীতে শনাক্ত ১৯ দশমিক শূন্য ৯ শতাংশ। নতুন সংক্রমণ ৮০৮ জনের মধ্যে রাজশাহীতে ২৩৬ জন, পাবনায় ১৬৯, বগুড়ায় ১৩৭, সিরাজগঞ্জে ৮৫, নাটোরে ৭৩, চাঁপাইনবাবগঞ্জে ৫৫, জয়পুরহাটে ২৭ ও নওগাঁয় ২৬ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। এ নিয়ে বিভাগে মোট শনাক্ত রোগীর সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৮৩ হাজার ৮৫৫।

বিভাগে গত ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়েছেন ১ হাজার ১০ জন। এটি প্রায় ১৫ দিনের মধ্যে এক দিনে সবচেয়ে বেশি সুস্থ হওয়ার সংখ্যা। আগের দিন সুস্থ হয়েছিলেন ৫৬৫ জন। এ নিয়ে বিভাগে মোট ৬০ হাজার ৫৭৬ জন সুস্থ হয়েছেন। বর্তমানে বিভাগের ৮ জেলায় হাসপাতালে ১২ হাজার ১০০ জন রোগী চিকিৎসাধীন। এর মধ্যে গত ২৪ ঘণ্টায় হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন ১৭০ জন।

রাজশাহী বিভাগীয় স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের পরিচালক হাবিবুল আহসান তালুকদার বলেন, ঈদের পর থেকে রাজশাহী বিভাগে সংক্রমণটা একটু কমই মনে হচ্ছে। মৃত্যুটাও কমেছে। তবে গত ২৪ ঘণ্টায় চাঁপাইনবাবগঞ্জে একটু রোগী বেড়েছে। সেখানে শনাক্ত ৩২ শতাংশ হয়ে গেছে। এটা উদ্বেগজনক। রাজশাহী মেডিকেলেও রোগী কিছুটা বেড়েছে। সেই হিসাবে সন্তোষ প্রকাশ করার কোনো কারণ নেই। সবাইকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে হবে। টিকা নিতে হবে।

  • 203
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
উপরে