ঈদের দিন রাতের মধ্যেই কোরবানির সকল বর্জ্য অপসারণের প্রস্তুতি রাসিকের

প্রকাশিত: জুলাই ১৯, ২০২১; সময়: ৪:১৪ pm |

নিজস্ব প্রতিবেদক : রাজশাহী সিটি কর্পোরেশনের মেয়র এ.এইচ.এম খায়রুজ্জামান লিটনের নির্দেশনায় বিগত বছরগুলোর মতো এবারো ঈদের দিন রাতের মধ্যেই মহানগরীতে কোরবানির সকল বর্জ্য অপসারণের প্রস্তুতি গ্রহণ করেছে রাজশাহী সিটি কর্পোরেশন। এবার কোরবানির পশু জবাহের জন্য ৩০টি ওয়ার্ডে ২১০টি স্থান নির্ধারণ করা হয়েছে। বিগত বছরগুলোর মতো এবারো কোরবানির সকল বর্জ্য অপসারণে সফলতার আশাবাদী সিটি কর্পোরেশন। এ লক্ষ্যে মঙ্গলবার দুপুরে নগর ভবনের সিটি হলরুমে নির্দিষ্ট স্থানে কোরবানির পশু জবেহকরণ ও দ্রুত অপসারণ বিষয়ে ওয়ার্ড সচিব ও পরিচ্ছন্ন সুপারভাইজারদের সমন্বয় সভা অনুষ্ঠিত হয়।

সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে বর্জ্য ব্যবস্থাপনা স্থায়ী কমিটির সভাপতি, প্যানেল মেয়র-১ ও ১২নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর সরিফুল ইসলাম বাবু বলেন, মেয়র এ.এইচ.এম খায়রুজ্জামান লিটন মহোদয়ের দিক-নির্দেশনায় গত ঈদ-উল-আযহায় রাতের মধ্যেই কোরবানির সকল বর্জ্য অপসারণ করা হয়েছিল। এরই ধারাবাহিকতায় এবারো রাতের মধ্যেই কোরবানির বর্জ্য অপসারণ করা হবে। ঈদের পরদিনই মহানগরবাসীকে পরিচ্ছন্ন শহর উপহার দিতে চাই। এ কাজে মহানগরবাসীর সহযোগিতা কামনা করেছেন মেয়র মহোদয়।

সরিফুল ইসলাম বাবু আরোও বলেন, রাজশাহী মহানগরীতে ওয়ার্ড পর্যায়ে করোনা ভাইরাস (কোভিড-১৯) এর টিকার রেজিষ্ট্রেশন ও ভ্যাক্সিনেশন কার্যক্রম আগামী ২৬ জুলাই হতে শুরু হচ্ছে। ৩৫ বছর ঊর্ধ্ব সকল নাগরিকদের টিকাদানে রেজিস্ট্রেশনে উদ্বুদ্ধকরণে ওয়ার্ড সচিবদের আরোও দায়িত্বশীল ভূমিকা রাখতে হবে। প্রতিটি ওয়ার্ডে টিকা কেন্দ্র স্থাপন করা হবে। আগামী ২৬ জুলাই হতে প্রতিটি ওয়ার্ডের নাগরিক নিজ নিজ ওয়ার্ডে নির্দিষ্ট কেন্দ্রে গিয়ে টিকা নিতে পারবেন। সংশ্লিষ্ট ওয়ার্ড কাউন্সিলরবৃন্দের সহযোগিতায় স্বাস্থ্যকর্মীরা এ কাজে নিয়োজিত থাকবেন।

করোনা ভাইরাস প্রাদুর্ভাবের মধ্যে পবিত্র ঈদ-উল-আযহায় উদযাপিত হতে যাচ্ছে। এজন্য সংশ্লিষ্ট সকলকে আরও দায়িত্বশীল ভূমিকা রাখতে হবে। মানুষকে মাস্ক পরা ও স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে উৎসাহিত করতে হবে। কোরবানির পশু জবেহ করার সময় এ কাজে নিয়োজিতদের মাস্ক পরা নিশ্চিত করতে হবে।

সভায় জানানো হয়, কোরবানীর পশু জবেহকরণ ও দ্রুত বর্জ্য অপসারণ বিষয়ে একটি লিফলেট প্রস্তুুত করা হয়েছে। প্রস্তুুতকৃত লিফলেট টি জনসাধারণকে অবহিত করণের লক্ষ্যে প্রতিটি ওয়ার্ডের অন্তর্গত মসজিদের ইমাম দ্বারা জুম্মার নামাজের খুতবায় ও ঈদুল আযহার জামাতে প্রচারের ব্যবস্থা করা হয়েছে।

মেয়রের আহবানে বলা হয়েছে সিটি কর্পোরেশন কর্তৃক নির্ধারিত নির্দিষ্ট স্থানে কোরবানির পশু জবেহ করুণ। জনগনের চলাচলের পথ উম্মুক্ত রাখার স্বার্থে সড়ক, মহাসড়ক ও রেলপথে কোরবানির হাট বসানো ও পশু কোরবানি করা থেকে বিরত থাকি; কোরবানি সংক্রান্ত যে কোন বিষয়ে সংশ্লিষ্ট ওয়ার্ড কাউন্সিলরের কার্যালয়ে যোগাযোগ করুন; বাড়ির আঙ্গিনায় পশু জবেহ করলে নিজ দায়িত্বে দ্রুততম সময়ে বর্জ্য অপসারণ করি; কোরবানির পরে যত দ্রুত সম্ভব পশুর রক্ত ও পরিত্যক্ত বর্জ্য অপসারণ করি অথবা গর্ত করে পুতে ফেলি। স্বাস্থ্যসম্মত পরিবেশ সংরক্ষণের স্বার্থে পুকুর, ডোবা, নদীনালা ও পরিত্যক্ত উম্মুক্ত স্থানে কোন ক্রমেই বর্জ্য না ফেলি।

পরিচ্ছন্ন বিভাগের সকল (কেন্দ্রীয় ও ওয়ার্ড) পর্যায়ের কর্মকর্তা/কর্মচারীর ঈদের দিন ছুটি বাতিল করা হয়েছে। সকল কার্যক্রম সুষ্ঠুভাবে বাস্তবায়নের লক্ষ্যে ঈদের দিন কন্ট্রোল রুম খোলা হয়েছে। বর্জ্য অপসারণে সিটি কর্পোরেশনের কন্ট্রোল রুমের মোবাইল নম্বর : পরিচ্ছন্ন কর্মকর্তা মনিটরিং -০১৭১৩-০৯৮৯৫৬, অফিস সহকারী : ০১৭১৬-৪০৮০৭১। অভিযোগ গ্রহণের সময় : ঈদুল আযহার দিন বিকাল ৪.০০ ঘটিকা হতে রাত্রী ১১.০০ ঘটিকা পর্যন্ত।

রাসিকের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা ড. এবিএম শরীফ উদ্দিনের সভাপতিত্বে সভায় বক্তব্য রাখেন বর্জ্য ব্যবস্থাপনা স্থায়ী কমিটির সদস্য ১৯নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর তৌহিদুল হক সুমন। সভায় স্বাগত ও দিক-নির্দেশনামূলক বক্তব্য রাখেন প্রধান পরিচ্ছন্ন কর্মকর্তা শেখ মো. মামুন ডলার।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
উপরে