রাজশাহীতে নতুন ফ্রিজ কেনার হিড়িক

প্রকাশিত: জুলাই ১৭, ২০২১; সময়: ১০:২৬ am |

নিজস্ব প্রতিবেদক : মুসলিমদের অন্যতম ধর্মীয় উৎসব পবিত্র ইদুল আজহা বা কোরবানির ইদ। ইদের মাত্র চার দিন বাকি। কোরবানি দেয়া পশুর মাংস সংরক্ষণ হবে ফ্রিজে। বেড়েছে ফ্রিজের চাহিদা। নগরীতে ফ্রিজ বিক্রি বেড়েছে। নগরীর বিভিন্ন ফ্রিজের শো-রুম ঘুরে দেখা গেছে, দেশীয় ব্র্যান্ড ওয়ালটন, মার্সেল, সিঙ্গার, স্যামসাং, ট্রান্সটেক, যমুনা এবং বিদেশি ব্র্যান্ডের ওয়ার্লপুল, হিটাচি ও এলজির মত নামি কোম্পানিগুলো বাজারে নিয়ে এসেছে আধুনিক প্রযুক্তি সম্পন্ন বিভিন্ন রঙ ও আকর্ষণীয় মডেলের ফ্রিজ। এর মধ্যে বিভিন্ন ব্র্যান্ড এর ফ্রস্ট ও ননফ্রস্ট ফ্রিজের মধ্যে নন ফ্রস্ট ফ্রিজের তুলনামূলক চাহিদা বেশি দেখা গেছে। ক্রেতারা তাদের রুচি, পছন্দ এবং সামর্থ্য অনুযায়ী ফ্রিজ ও ফ্রিজার কিনছেন। ইদের দিনকে সামনে রেখে ফ্রিজের বিক্রিও বেড়েছে বলে জানান বিক্রেতারা।

এক ফ্রিজ বিক্রেতা জানান, বছরের অন্যান্য মাসের তুলনায় সবচেয়ে বেশি ফ্রিজ ও ফ্রিজার (ডিপ ফ্রিজ) বিক্রি হয় কোরবানির ইদে। ফ্রিজের আমদানিকারক, দেশীয় প্রস্তুতকারক এবং বিক্রেতারা জানান, করোনা পরিস্থিতিতে দীর্ঘদিন লকডাউন থাকার পরও ইদুল আজহাকে কেন্দ্র করে এবার নগরীতে প্রচুর পরিমাণে ফ্রিজ বিক্রি হচ্ছে। তাদের শো-রুমে ১০০ লিটার থেকে ৪০০ লিটার ধারণক্ষমতা সম্পন্ন ওজনের ফ্রিজ পাওয়া যাচ্ছে। তবে ১৫০ থেকে ২০০ লিটার ওজন ধারণক্ষমতার ফ্রিজ ও ডিপ ফ্রিজের বিক্রি সবচেয়ে বেশি হচ্ছে। এছাড়াও নগরীর বিভিন্ন স্থানের বিক্রয় কেন্দ্রে ফ্রিজ বিক্রিতে ব্যস্ত সময় পার করছেন বিক্রেতারা। তারা জানান, দু-একদিন পর এ ব্যস্ততা আরও বাড়বে। তাদের শো-রুমে ওয়ালটন, মাইওয়ান, যমুনা, মিনিস্টার, মার্সেলের মতো দেশীয় ব্র্যান্ডের পাশাপাশি হিটাচি, সিঙ্গার, এলজি, ওয়ার্লপুল, কংকা, অ্যারিস্টন, স্যামসাং, হায়েস, হায়ার, শার্পসহ আমদানি করা বিভিন্ন ব্র্যান্ডের ফ্রিজ বেশি বিক্রি হচ্ছে।

নগরীর নওদাপাড়ায় দেশের অন্যতম ব্র্যান্ড ওয়ালটনের বিক্রয় কেন্দ্রে দেখা গেছে, ইদুল আজহা উপলক্ষে অত্যাধুনিক ডিজাইন এবং উন্নতমানের সব ফ্রিজ সাজিয়ে রাখা হয়েছে। ক্রেতারা ঘুরে ঘুরে ফ্রিজ দেখছেন। আর ক্রেতা এবং দর্শনার্থীদের ফ্রিজ সম্পর্কে ধারণা দিচ্ছেন বিক্রেতারা। নগরীর আলুপট্টি এলাকার এক ফ্রিজ ক্রেতা জেসমিন সুলতানা সোনার দেশকে জানান, কোরবানি ইদ আসার আগে বিশেষ অফার দেয় ফ্রিজের উৎপাদনকারী ও আমদানিকারকরা। সেই সুযোগ কাজে লাগিয়ে ফ্রিজ কিনতে বিক্রয় কেন্দ্রে হাজির হয়েছি এবং ক্রয়ক্ষমতা ও পছন্দ অনুযায়ী ওয়ালটন ফ্রিজ ক্রয় করলাম।

পবা উপজেলা থেকে নগরীর সাহেববাজারে ফ্রিজ কিনতে এসেছেন রাশেদুল ইসলাম। তিনি জানান, বাসায় একটি ফ্রিজ আছে। তবু কোরবানির মাংস সংরক্ষণ করতে ডিপ ফ্রিজ প্রয়োজন। পছন্দ হলেও দামও একটি বেশি। দর-দামে মিললে আজকেই কিনে ফেলবো। নগরীর লক্ষ¥ীপুর এলাকার আকতার হোসেন জানান, ইদুল আজহার মাত্র কয়েকদিন বাকি। সময় একেবারেই কম। বাসার ফ্রিজটি একটু ছোট। তাই ফ্রিজ কিনতে মার্কেটে এসেছি। গতকাল (বৃহস্পতিবার) ফ্রিজ পছন্দ করেন গেছিলাম, আজকে নিতে আসছি।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
উপরে