রাজশাহীতে দেশী জাতের গরু ভারতীয় দেখিয়ে পানির দামে নিলাম

প্রকাশিত: জুলাই ১৫, ২০২১; সময়: ১০:৪৫ pm |

নিজস্ব প্রতিবেদক : দীর্ঘদিন বাড়িতে লালন-পালন করে বড় করে তা হাটে বিক্রির জন্য নিয়ে যাওয়া হচ্ছিল দেশি জাতের ২২টি গরু। তবে সেগুলো পাচার হয়ে আসা ভারতীয় গরু দেখিয়ে ট্রাক থেকে উদ্ধার করা হয়। এরপর ২৪ ঘন্টা না যেতেই কোন প্রকার বিজ্ঞপ্তি ছাড়াই তরিঘড়ি করে নাম মাত্র মূল্যে নিলামে তুলে স্থানীয় একটি সিন্ডিকেটের কাছে বিক্রির অভিযোগ উঠেছে রাজশাহী কাস্টমস কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে।

এদিকে, অভিযানের সময় গরুগুলো জব্দ করা হলেও ট্রাকে থাকা ৬ জনের সবাইকে ছেড়ে দেয়া হয়েছে। অভিযোগ প্রসঙ্গে কথা বলতে স্থানীয় কাস্টমস কমিশনারের মোবাইল নম্বরে কল করে ও এসএমএস পাঠিয়েও কোন উত্তর মেলেনি।

২২টি গরুর মধ্যে ৫টি গরুর মালিক চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলার গোমস্তাপুর থানার ২নং বাঙ্গাবাড়ি ইউনিয়নের মেম্বার সাদিকুল ইসলাম। তিনি জানান, তাদের কাছ থেকে জব্দ করা গরুগুলো ভারতীয় নয়, দেশি গরু। তারা নিজেদের বাড়িতে ও এলাকায় গরুগুলো দীর্ঘদিন থেকে লালন-পালন করেছেন। কিছু গরু তারা নিজেরা পালন করেছেন আবার কিছু গরু এলাকার দরিদ্র পরিবারের কাছে আধি দিয়ে বড় করেছেন। এলাকায় জিজ্ঞাসাবাদ করলে সবাই তাদের গরুগুলোর বিষয়ে তথ্য দিতে পারবে।

বুধবার দুপুরে তিনিসহ ৪ জন ওই ২২টি গরু হাটে বিক্রির জন্য ট্রাকে করে রাজশাহীর অদূরে রাজাবাড়ি এলাকার সড়ক দিয়ে নিয়ে যাচ্ছিলেন। ট্রাকে উপস্থিত ছিলেন সাদিকুলসহ ৬ জন। এসময় বিজিবি চেক পোস্টের কাছে দুপুর আনুমানিক ১ টার দিকে তাদের ট্রাক থামিয়ে গরুগুলোর প্রয়োজনীয় কাগজপত্র দেখতে চাওয়া হয়। কাগজ দেখানোর পরে তাদের কাছে কিছু টাকা দাবি করা হয়।

তবে সাদিকুল টাকা না দিয়ে জনপ্রতিনিধি হিসেবে নিজের পরিচয় তুলে ধরেন। এসময় অভিযানে থাকা মানুষগুলো তাদেরকে হুমকি ধামকি দিয়ে ট্রাকের সবগুলো গরু এবং অন্যান্য সামগ্রী জব্দ করে। অথচ এই অভিযানে গরুগুলো জব্দ করা হলেও ট্রাকে থাকা কাউকেই আটক বা গ্রেফতার করা হয়নি।

বুধবার থেকে বৃহস্পতিবার দুপুর পর্যন্ত সাদিকুল ও তার সঙ্গীরা কাস্টমস অফিস ঘুরে নিজেদের গরুর প্রয়োজনীয় প্রমাণপত্র দেখিয়েও তা আর ফেরত নিতে পারেননি। সাদিকুল আরও জানান, তাদের গরুগুলোর বর্তমান বাজার মূল্য ২০ থেকে ২৪ লাখ টাকা।

এদিকে, বুধবার দুপুরে গরুগুলো ধরা হয় এবং বৃহস্পতিবার সকাল থেকে গরুগুলো নিলামে তোলার জন্য তরিঘরি করে কাজ শুরু করা হয়। নিলামে কোনঠাসা একটি পক্ষের দাবি নিলামের জন্য কোন প্রকার বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করেনি কাস্টমস কর্তৃপক্ষ।

বৃহস্পতিবার দুপুর আড়াইটা নাগাদ নগরীর উপকণ্ঠ কোর্ট স্টেশন রোড সংলগ্ন টিবি পুকুরের মোড়ের কাছে অবস্থিত কাস্টমস অফিসের গুদামে মাত্র সাড়ে ৮ লাখ টাকায় গরুগুলো নিলামের নামে স্থানীয় যুবক রুবেলের কাছে বিক্রি করে দেয়া হয়। এসময় স্থানীয় প্রায় ২০০ জন যুবক গুদামের চতুর দিক ঘিরে অবস্থান নেয়। নিলামের সময় কাস্টমস অফিসের কোন ম্যাজিস্ট্রেট বা উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষ উপস্থিত ছিলেন না।

ঘটনাস্থলে উপস্থিত জহির নামের এক যুবক নিজেকে কাস্টমস অফিসের কর্মচারি দাবি করেন। তার কাছে এই নিলামের কর্মকর্তার নাম জানতে চাইলে তিনি কোন উত্তর না দিয়ে টেবিলে থাকা টাকা দেখিয়ে সাংবাদিককে অফিস কক্ষ ত্যাগ করতে বলেন।

আর অভিযোগ প্রসঙ্গে কথা বলতে কাস্টমস অফিসের কমিশনার লুৎফর রহমানের মোবাইল নম্বরে একাধিকবার কল করে ও এসএমএস পাঠিয়েও কোন উত্তর পাওয়া যায়নি।

  • 859
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
উপরে