রাজশাহীর বিভিন্ন উপজেলায় গৃহহীনদের বাড়ি পরিদর্শন করলেন জেলা প্রশাসক

প্রকাশিত: জুলাই ১০, ২০২১; সময়: ৪:৪৬ pm |

নিজস্ব প্রতিবেদক : দেশের অনেক স্থানে বসবাস শুরুর আগেই ভেঙে পড়েছে প্রধানমন্ত্রীর উপহার গৃহহীনদের বাড়ি। বর্ষা মৌসুমের টানা বৃষ্টিতে ভূমিহীনদের দেয়া এসব বাড়ির মাটি খালে ধসে পড়ে। নির্মাণ ত্রুটি ও স্বল্প বরাদ্দকে দুষছেন অনেকে। রাজশাহীতেও ৮৫৪টি গৃহহীন পেয়েছেন এসব বাড়ি।

শনিবার জেলার হস্তান্তরকৃত এসব বাড়ির বর্তমান অবস্থা পরিদর্শন করেছেন রাজশাহী জেলা প্রশাসক আব্দুল জলিল। তিনি পবা উপজেলা ও গোদাগাড়ী উপজেলার বিভিন্ন স্থানে নির্মিত বাড়ি পরিদর্শন করেন। তিনি এই দুই উপজেলায় বাড়ি নির্মাণে সন্তোষ প্রকাশ করেন। পাশাপাশি তিনি এসব বাড়িতে বসবাসকারি মানুষের সাথে মতবিনিময় করেন। বড়গাছী ইউনিয়নের মালপাড়ায় তিনি এই আবাসন চত্তরে ফলের গাছ রোপন করেছেন। এছাড়াও তিনি প্রত্যেক পরিবারকে ৫শ’ টাকা করে বিতরণ করেন।

এ সময় জেলা প্রশাসকের সাথে ছিলেন উপপরিচালক (স্থানীয় সরকার) শাহানা আখতার জাহান, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মুহাম্মদ শরিফুল হক, পবা উপজেলা নির্বাহী অফিসার শিমুল আকতার, গোদাগাড়ী উপজেলা নির্বাহী অফিসার জানে আলম, পবা উপজেলা সহকারী কমিশনার ভূমি শেখ এহসান উদ্দীন, গোদাগাড়ী উপজেলা সহকারী কমিশনার ভূমি তাহমিনা খাতুন, সহকারী কমিশনার ও এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট অভিজিত সরকার, গোদাগাড়ী উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা প্রকৌশলী আবু বাশির, পবার বড়গাছী ইউনিয়ন চেয়ারম্যান সোহেল রানা, পবা উপজেলা যুবলীগ সভাপতি ও জেলা পরিষদের সদস্য এমদাদুল হক, গোদাগাড়ী উপজেলার গোগ্রাম ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মজিবর রহমান, মাটিকাটা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান শহিদুল করিম শিবলী প্রমুখ।

উল্লেখ্য, বঙ্গবন্ধু কণ্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার স্বপ্নের গৃহনির্মাণ প্রকল্পের ঘর পেয়ে রাজশাহীসহ সারাদেশে ৫৩ হাজার ৩৪০টি পরিবারে দিন বদলের হাসি ফুটেছে। চলতি বছরে ২০ জুন ‘বাংলাদেশের একটি মানুষও গৃহহীন থাকবে না’ এই স্লোগানকে সামনে রেখে গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে সারাদেশে ২য় পর্যায়ে ৫৩ হাজার ৩৪০টি পরিবারকে জমিসহ গৃহ প্রদান কার্যক্রম উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। ২য় পর্যায়ে রাজশাহী জেলায় ঘর পেয়েছেন ৮৫৪টি গৃহহীন পরিবার।

যারমধ্যে পবা উপজেলায় ৫০টি, মোহনপুরে ৫০টি, গোদাগাড়িতে ৪০৩টি, তানোরে ১০৫টি, পুঠিয়ায় ১১০টি, দুর্গাপুরে ১৪টি, চারঘাটে ১০টি, বাঘায় ৩৫টি ও বাগমারায় ৭৭টি। প্রতিটি গৃহে ২ টি শয়ন কক্ষ, ১ টি টয়লেট, রান্নাঘর, কমনস্পেস ও ১ টি বারান্দা রয়েছে। এরআগে প্রথম পর্যায়ে রাজশাহী জেলায় ৬৯২টি গৃহ হস্তান্তর করা হয়েছে।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
উপরে