বেড়েছে সবজির দাম, অপরিবর্তিত মাছ ও মাংসের দাম

প্রকাশিত: জুলাই ৩, ২০২১; সময়: ১০:০৬ am |

নিজস্ব প্রতিবেদক : সবজির দাম বেড়েছে। অপরিবর্তিত রয়েছে মাছ, মুরগি, ডিম, পেঁয়াজের দাম। কঠোর লকডাউনের মধ্যে নগরীর কাঁচাবাজারে বেড়েছে সবজির দাম। গত সপ্তার তুলনায় ৫ থেকে সাত টাকা বেড়েছে বেশকিছু সবজির দাম। শুক্রবার (২ জুলাই) নগরীর কাঁচাবাজারে কিছু সংখক মানুষের ভিড় দেখা গেলেও বেলা গড়ার সাথে সাথে কমতে শুরু করে।

নগরীর সাহেববাজার ঘুরে দেখা গেছে, প্রতিকেজি আলু ২০ থেকে ২২ টাকা, বেগুন দাম বেড়ে ৫০ টাকা, করলা ৫০ টাকা, কচু ৪০ টাকা, পেঁপে ৩০ টাকা, ঢেঁড়স ২০ টাকা, পটল ৩০ টাকা, ঝিঙে ৩০ থেকে ৩৫ টাকা, মিষ্টি কুমড়া ২০ টাকা, বরবটি দাম বেড়ে হয়েছে ৩০ টাকা, সজনে ডাটা ১০০ টাকা। প্রতিপিস লাউ ২৫ থেকে ৩০ টাকা। এছাড়া শাকের মধ্যে কাটোয়া ডাটা ও পুইসাক ৩০ টাকা। লালশাক ও সবুজ শাক ২০ টাকা দরে বিক্রি হয়েছে। এছাড়া কাঁচা মরিচ ৪০ থেকে ৪৫ টাকা কেজি, আদা ৭০ থেকে ৮০ টাকা, রসুন ৭০ থেকে ৭৫ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে।

এছাড়া ভাজ্যতেলের মধ্যে প্যাকেটজাত সোয়াবিন কেজিপ্রতি ১৫০ টাকা। পাঁচ লিটার সয়াবিন ৬৭০ টাকা ও খোলা সয়াবিন ১৩৫ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে। এছাড়া প্রতিকেজি চিনি ৬৮ টাকা, মসুর ডাল ৮০ থেকে ৯০ টাকা, সোনামুগ ১৪০ টাকা, ছোলাবুট ৬৫ টাকা, খেসারি ৮০ টাকা, বুটের ডাল ৮০ টাকা, মটর ৯৫ টাকা ও অ্যাংকর ডাল ৪৪ টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে। লাল ডিম ৩৬ টাকা ও সাদা ডিম ৩২ টাকা হালি। মুদির দোকানী ইব্রাহীম জানান, আমাদের ব্যবসা খুব একটা ভালো না আজ। ক্রেতা কম। আর থাকলে কাঁচাবাজারে আছে আমাদের এখানে না।

এদিকে চালের বাজার ঘুরে দেখা গেছে- প্রতি কেজি স্বর্ণা ৪৬ টাকা, নতুন আটাশ ৫০ থেকে ৫২ টাকা, নতুন মিনিকেট ৫৬ টাকা, পুরোনো মিনিকেট ৬০ থেকে ৬২ টাকা, বাসমতি ৬৫ টাকা, নাজিরশাল ৬৫ থেকে ৬৮ টাকা। পোলাও চাল ৮০ থেকে ৯০ টাকা, কাটারিভোগ ৭০ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে। মাছের বাজারে, আকারভেদে কম বেশি প্রতিকেজি ইলিশ ৮০০ থেকে ১২০০ টাকা দরে বিক্রি হয়েছে। রকমভেদে মৃগেল ১২০ থেকে ১৮০ টাকা, রুই ২০০ থেকে ২২০ টাকা, পাঙ্গাস ১২০ থেকে ২০০ টাকা, সিলভার ৯০ থেকে ১৫০ টাকা, কালবাউস ১৫০ টাকা, তেলপিয়া ১২০ থেকে ১৪০ টাকা, শোল মাছ ৪০০ টাকা, পুটিমাছ ১২০ টাকা।

লিখন নামে ক্রেতা জানান, করোনার কঠোর লকডাউনে ঘোষণা শুনে বাজার মোটামুটি করেছিলাম। সবজি তো আর কিনে রাখা যায় না। সবপণ্যের দামে বেশি এখন। ব্যবসায়ীরা বলছেন- লকডাউনের কারণে পণ্যের সরবারহ কম। এছাড়া বর্ষাতে নষ্ট হয়েছে সবজি। সবমিলে বেড়েছে দাম। বাজারে মাংসের মধ্যে, প্রতি কেজি গরুর মাংস ৫৫০ টাকা কেজি দরে যা ৫৬০ টাকা বিক্রি হয়েছে। এছাড়াও খাশির মাংস ৮০০ টাকা ও ছাগলের মাংস ৬৫০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হয়েছে।
এছাড়াও ব্রয়লার মুরগি ১৩০ থেকে ১৩৫ টাকা, সোনালীর দাম কমে ২০০ টাকা, সাদা লেয়ার ১০ টাকা কমে ১৯০ টাকা, দেশি মুরগি কেজিতে ৪২০ টাকা। হাঁস ২০০ দরে বিক্রি হয়েছে।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
উপরে