পুঠিয়ায় ঘর-বয়স্কভাতা-সেলাই মেশিন দেওয়ার নামে টাকা আত্মসাৎ

প্রকাশিত: জুন ২৯, ২০২১; সময়: ৮:১২ pm |

নিজস্ব প্রতিবেদক, পুঠিয়া : রাজশাহীর পুঠিয়ায় জিউপাড়া ইউনিয়নে সরকারী বরাদ্দকৃত ঘর, বয়স্কভাতার কার্ড ও সেলাই মেশিন দেওয়ার নামে ভূমিহীন মানুষের কাছ থেকে টাকা তুলে ইউপি মহিলা মেম্বার ও তার স্বামী আত্মসাৎ করেছে বলে অভিযোগ উঠেছে। এছাড়া তাদেরকে বিভিন্ন ভয়ভীতি দেখায় যাতে কারো কাছে মুখ না খোলে।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, রাজশাহী জেলার পুঠিয়া উপজেলার ৬নং জিউপাড়া ইউনিয়ন পরিষদের ৪, ৫ ও ৬ ওয়ার্ডের মহিলা মেম্বার লালবানু ও তার স্বামী এই দুই জনে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর বরাদ্দকৃত ঘর, বয়স্কভাতার কার্ড এবং সেলাই মেশিন দেওয়ার নামে হত দরিদ্র ও গরীব মানুষের কাছ থেকে টাকা নিয়ে আত্নসাত করার অভিযোগ উঠেছে। এছাড়া মেম্বার তাদেরকে বিভিন্ন ভয়ভীতি দেখায় যাতে কারো কাছে মুখ না খোলে। যদি মুখ খোলে তাহলে তাদেরকে মামলায় জরানো হবে বলে জানায়।

৬নং জিউপাড়া ইউনিয়ন পরিষদের দাসমাড়িয়া গ্রামের শিরিনা বেগম জানান, আমি একজন ভূমিহীন মানুষ। এই এলাকার মহিলা মেম্বারের স্বামী হাসিব আমাকে বলে ভুমিহীন ঘর এসেছে। যদি আমাকে ৩০ হাজার টাকা দেন তাহলে আমি আপনাকে ঘর দেব। আমি বলি আমাকে আগে ঘর দেন তাহলে আমি টাকা দেব। তারপর ৩০ হাজার টাকার চুক্তি হয় এবং আমি তাকে সুদের উপর টাকা ধার করে ১৫ হাজার টাকা দিয়। আর ১৫হাজার টাকা পরে দেব বলেছি। পরবর্তীতে ঘর দেব বলে আর দেইনি। টাকা ফেরত দেবে বলে এখন আজকাল করে আমাকে ঘোরাচ্ছে।

একই এলাকার তহুরা বেগম জানান, মহিলা মেম্বার লালবানুর স্বামী হাসিব প্রায় ১বছর আগে আমকে কার্ড করে দিবে বলে আমার থেকে ৫হাজার টাকা নিয়েছে। আজ না কাল করে ঘোরাচ্ছে কিন্তু এখনো কার্ড করে দেয়নি। আর সেই টাকা আমাকে আর ফেরৎ দিচ্ছে না।
একই এলাকার সাজেদা বেগম জানান, মেম্বার লালভানুর স্বামীকে আমি ২ হাজার টাকা দিয়েছি। সেলাই মেসিন দিবে বলে। সাত মাস হয়ে গেলো। আজকেও সকালে গিয়ে ঘুরে আসছি সে বলেছে ঈদের পরে দিবো।

ইউপি মেম্বার লালবানু বলেন, আমার আর আমার স্বামীর নামে সাংবাদিকদের সামনে মিথ্যা কথা বলে তারা আমার সম্মান নষ্ট করছে। তারা যদি এইটা প্রমান না করতে পারে তাদের বিরুদ্ধে আমি মামলা করবো।

৬নং জিউপাড়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মোছাঃ হোসনেয়ারা জানান, ঘটনাটি আমার শুনেছি। আগামীকাল বুধবার তদন্ত করে ব্যবস্থা গ্রহণ করবো।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার নুরুল হাই মোহাম্মদ আনাছ জানান, বিষয়টি আমরা তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা গ্রহণ করবো।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
উপরে