রাজশাহীতে আ.লীগ নেতার ফেনসিডিল সেবনের ভিডিও ভাইরাল

প্রকাশিত: জুন ২৮, ২০২১; সময়: ১১:০৬ pm |

নিজস্ব প্রতিবেদক : রাজশাহীর বাগমারা উপজেলার গোয়ালকান্দি ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারন সম্পাদক মাহাবুর রহমান সরকার এর ফেন্সিডিল সেবনের একটি ভিডিও সোমবার সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়েছে। আগর আলী নামের একটি ফেসবুক আইডে ওই ভিডিও পোস্ট করা হয়। এরপর বিপুল সংখ্যক শেয়ার হলে সোমবার ২৮জুন দুপুরেই ভাইরাল হয়ে যায় এটি।

মাহাবুর রহমান সরকার গোয়ালকান্দি ইউনিয়ন পরিষদের নয় নম্বর ওয়ার্ডের বর্তমান সদস্য এবং ওই ওয়ার্ড আওয়ামী লীগেরও সভাপতি। একজন রাজনৈতিক নেতা এবং জনপ্রতিনিধি হওয়া সত্বেও তার ওই মাদক সেবনের ভিডিও এলাকায় সমালোচনার ঝড় তুলেছে।

ভিডিওতে দেখা যায়, সম্প্রতি জেলা গোয়েন্দা পুলিশের হাতে গ্রেফতার হওয়া শিকদারী এলাকার মাদক ব্যবসায়ী মাহাবুর এর বাড়ির ভেতর বারান্দায় চৌকিতে বসে ফেন্সিডিল সেবন করছে আওয়ামী লীগ নেতা ও ইউপি সদস্য মাহাবুর সরকার। এরপর সেখান থেকে উঠে তিনি জানালার তাকে রাখা একটি জগ হাতে নিয়ে আবার রেখে দেয়।

এরপর বাড়ির মালিক মাদক ব্যবসায়ী মাহাবুর আরো একটি ফেন্সিডিলের বোতল থেকে আরেক বোতলে ঢেলে দেয় ইউপি সদস্য মাহাবুর সরকারকে। তিনি সেটিও সেবন করলেন দাঁড়িয়ে থেকে এমন দৃশ্য ভিডিওতে দেখা যায়। ফেসবুক আইডি তে তার ওই ভিডিও আপলোড করে তাকে গ্রেফতার এবং দল থেকে বহিস্কারের দাবি জানিয়ে স্ট্যাটাস দেয়া হয়। তিনি ক্ষমতার দাপটে বাগমারাকে মাদকের আখড়া বানিয়েছেন এমন কথাও উল্লেখ করা হয় ওই স্ট্যাটাসে।

এদিকে একজন জনপ্রতিনিধি ও রাজনৈতিক নেতা হিসেবে মাদক সেবী হওয়ায় তার বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহনের দাবি জানান আ’লীগ নেতৃবৃন্দ। তিনি দলের ভাবমূর্তি ক্ষুন্ন করেছেন বলে তারা দাবি করেছেন। এর আগে এক কৃষকলীগ নেতাকে গাঁজা চাষের দায়ে পুলিশ গ্রেফতার করলে পরে দলীয় ভাবে তাকে বহিস্কার করা হয়।

এদিকে আওয়ামী লীগ নেতা ও ইউপি সদস্য মাহাবুর রহমান সরকার তার ‘মাহাবুর সরকার মেম্বার’ নামীয় ফেসবুক আইডিতে ওই ঘটনার প্রতিবাদ জানান। তিনি তার দেয়া স্ট্যাটাসে দাবি করেন, আমাকে রাজনৈতিকভাবে দুর্বল করার জন্য একটি ফেকআইডি থেকে সুপার এডিট করে আমার নামে যে মিথ্যা অপপ্রচার করা হয়েছে এর তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি।

এ ব্যাপারে গোয়ালকান্দি ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি জাহেদুল ইসলাম ও সাধারন সম্পাদক প্রধান শিক্ষক বকুল খরাদি জানান, আমরাও মাহাবুর মেম্বরের ওই রকম ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে দেখেছি। দলীয় ভাবে বিষয়টি তদন্ত করা হবে। মাদকের সঙ্গে তার সংশ্লিষ্টতার প্রমাণ পাওয়া গেলে উপজেলা কমিটির সঙ্গে আলোচনা করে তার বিষয়ে সাংগঠনিকভাবে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে।

গোয়ালকান্দি ইউপি চেয়ারম্যান আলমগীর হোসেন সরকার জানান, এর আগে লোক মুখে তার মাদক সেবনের কথা শুনেছি। বর্তমানে ভিডিওতে দেখলাম। তদন্ত সাপেক্ষে প্রশাসন এ ব্যাপারে ব্যবস্থা নিবে বলে তিনি মন্তব্য করেন।

বাগমারা থানার ওসি মোস্তাফ আহমেদ জানান, এক্সপার্ট দিয়ে ওই ভিডিও পরীক্ষা নিরিক্ষা করে ঘটনার সত্যতা পেলে তদন্ত সাপেক্ষে অভিযুক্তের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহন কর হবে।

  • 1.4K
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
উপরে