গোদাগাড়ীতে ওয়াকফ জমি খাস করে দখলের পায়তারা

প্রকাশিত: জুন ২০, ২০২১; সময়: ৬:৫৭ pm |

নিজস্ব প্রতিবেদক : রাজশাহীর গোদাগাড়ী উপজেলায় ওয়াকফকৃত জমিকে খাস করে অবৈধভাবে জবর-দখলে নেয়া চেষ্টার অভিযোগ পাওয়া গেছে। স্থানীয় একটি ভূমিদস্যু চক্র এমনটা করছে বলে অভিযোগ জমি ওয়াকফকারীর নাতি মো. এনায়েত উল্লাহর। রবিবার রাজশাহীতে এক সংবাদ সম্মেলনে এমন অভিযোগ করেছেন তিনি।

এনায়েত উল্লাহ গোদাগাড়ীর পাকড়ি এলাকার মৃত শেখ তমির উদ্দীনের ছেলে। সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেন, ১৯৩৪ সালে আমার দাদা হাজি মানিক উল্লাহ ১৩৩ একর জমি ওয়াকফ করেন। ওয়ারিশ সূত্রে, সেই জমির মালিক আমরা। কিন্ত ওই সম্পত্তির মধ্যে ৩০ বিঘা জমিকে খাস করে জবর-দখলে নেয়ার চেষ্টা করছে ভূমিদস্যু তৌহিদ ও তার লোকজন। মনির, কটা ও লাভলুরা রয়েছে তার গ্রুপে। ক্ষমতাসীন দলের নাম ভাঙ্গিয়ে তারা এমনটা করছে। এতে ভাবমূর্তিও ক্ষুন্ন হচ্ছে সরকারের।

এনায়েত উল্লাহ জানান, ওই জমির রেকর্ডে ভুলক্রমে অন্যের নাম ঢুকে যায় এবং তারা বিষয়টি নিয়ে মামলা করে আদালতের রায়ে সেটি সংশোধনও হয়ে যায়। রায়ের ফলে জেলা প্রশাসকও সেটি সংশোধন করে দেন। তবুও ভূমিদস্যু চক্র স্থানীয় প্রশাসনকে ম্যানেজ করে জমিটি খাস করার অপচেষ্টা চালাচ্ছে। অবৈধভাবে দখল করতে মরিয়া হয়ে উঠেছে চক্রটি। জোরপূর্বক দখলে নিতে প্রাণনাশের হুমকিও দেয়া হয়েছে। এ ঘটনায় গত সপ্তাহে জেলা প্রশাসনের কাছে লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন তিনি। এ বিষয়ে এনায়েত উল্লাহ নিরাপত্তা নিশ্চিতপূর্বক ওয়াকফ জমি রক্ষায় প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।

এ ব্যাপারে অভিযুক্তদের বক্তব্য পাওয়া যায়নি। তবে অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রেভিনিউ) নজরুল ইসলাম বলেন, ওয়াকফকৃত জমিকে আইনে খাস করার সুযোগ নেই। অবৈধভাবে ভূমিদস্যু চক্রের জবর-দখলে নেয়ার তো প্রশ্নই আসে না। এ বিষয়ে যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
উপরে