বাঘায় ফের সংঘর্ষে ছয়জন আহত, গ্রেপ্তার ৬

প্রকাশিত: মে ২০, ২০২১; সময়: ৯:১১ pm |

নিজস্ব প্রতিবেদক, বাঘা : রাজশাহীর বাঘা উপজেলার আড়ানিতে আবারো সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। বৃহস্পতিবার দুপুর ২টায় আড়ানি পৌরসভার চকরপাড়া গ্রামের রেল গেট এলাকায় সংঘর্ষ বাঁধে। এতে মহিলাসহ ৬ জন আহত হয়েছেন।

আহতদের উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়া হয়েছে। জরুরি বিভাগের চিকিৎসক ইমন আহমেদ জানান, বুলবুল নামের একজনকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। রেখা বেগম, সুবর্না বেগম ও মর্জিনা বেগমকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। মিলন ও আকিজুর নামের ২ জনকে প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে। এর আগে মঙ্গলবার রাতে সংঘর্ষে দু’পক্ষের ১২ জন আহত হয়েছেন।

পুলিশ জানায়, মঙ্গলবার রাতের ঘটনায় হিরো উদ্দনি বাদি হয়ে ১৪ জনের নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাত আরো ৪/৫ জনের বিরুদ্ধে অভিযোগ করেন। বৃহস্পতিবার ফের সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়েন তারা। পরে দু’পক্ষের ৬ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

জানা যায়, গত রোববার (১৬ মে) প্রাইভেট পড়ার কথা বলে বাড়ি থেকে বের হন আড়ানী পৌরসভার চকরপাড়া গ্রামের কলেজ ছাত্রী। এর পর বাড়িতে ফেরেননি ওই ছাত্রী। ছাত্রীর পরিবার সন্দেহ করে, পাশের গ্রামের তানভির আহম্মেদ রুহান ওই ছাত্রীকে নিয়ে গেছে। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে মঙ্গলবার সন্ধ্যার পর ছাত্রী পক্ষের লোকজন কলেজ ছাত্র তানভির আহম্মেদ রুহানের বাড়িতে হামলা করে। এ সময় দু’পক্ষের সংঘর্ষ বাঁধে।

নুরনগর (খয়েরমিল) গ্রামের বাসিন্দা তানভির আহম্মেদ রুহানের বাবা হিরো উদ্দিন জানান, পৌর কাউন্সিলর লিটনের নেতৃত্বে প্রায় ১৫/২০ জন লোক দেশীয় অস্ত্র-লোহার রড, হাতুড়ি, চাইনিচ কুড়াল, রামদা নিয়ে বাড়িতে হামলা করে। তারা বাড়ির ভেতরে প্রবেশ করে নগদ টাকা, স্বর্ণালংকারসহ প্রায় ৪ লাখ টাকা ছিনতাই ককের করে।

হামলাকারিদের প্রতিহত করতে গিয়ে, তার মা সানোয়ারাসহ ৬ জন আহত হন। হিরো উদ্দিন জানান, রুহান কোথায় আছে জানিনা। তাদের আইনের আশ্রয় নিতে বলেছিলাম। একথা বলার পরেও দলবল নিয়ে আমার বাড়িতে হামলা করেছে। এর জের ধরে বৃহসপতিবার তার লোকজনকে মারধর করে। তাদের উদ্ধার করতে গিয়ে সংঘর্ষ বাঁধে। এতে রেখা বেগম, সুবর্না বেগম ও মর্জিনা বেগম, মিলন ও আকিজুর আহত হন। মিলন ও আকিজুরকে প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে। অন্যদের ভর্তি করা হয়েছে।

ওয়ার্ড কাউন্সিলর লিটন হোসেন জানান, ওই ছাত্রীর খোঁজ খবর নেওয়ার জন্য হিরো উদ্দিনের বাড়িতে যান। সেখানে কথাকাটাকাটির একপর্যায়ে হিরো উদ্দিনের লোকজন তার লোকজনের উপর হামলা চালায়। এতে তার পক্ষের ৬জন আহত হন। তবে লুটপাটের অভিযোগ অস্বিকার করে তিনি বলেন, হিরো উদ্দিন ও তার পক্ষের লোকজন রেলগেট এলাকায় ছিল। আগের ঘটনায় কথাকাটাকাটি হয়। পরে সংঘর্ষে রুপ নেয়। এতে তার পক্ষের বুলবুল নামের একজন আহত হন।

অফিসার ইনচার্জ (ওসি) নজরুল ইসলাম বলেন, খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠিয়েছিলাম। ৬ জনকে গ্রেপ্তার করে থানায় নেওয়া হয়েছে। আগের ঘটনায় একটি অভিযোগ পেয়েছি। অভিযোগের প্রেক্ষিতে আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
উপরে