বাগমারায় সভাপতির ইচ্ছায় রাতারাতি পরিবর্তিত হচ্ছে ছাত্রলীগের কমিটি

প্রকাশিত: মে ২০, ২০২১; সময়: ৮:৩১ pm |

নিজস্ব প্রতিবেদক, বাগমারা : রাজশাহীর বাগমারায় বিভিন্ন ইউনিয়নসহ পৌরসভায় রাতারাতি পরিবর্তন হচ্ছে ছাত্রলীগের কমিটি। সভাপতির খেয়াল খুশি মতো কমিটি পরিবর্তন করা হচ্ছে বলে অভিযোগ করেন আহ্বায়ক কমিটির নেতৃবৃন্দ।

ভবানীগঞ্জ পৌরসভার সদ্য অনুমোদিত আহ্বায়ক কমিটির আহ্বায়ক রবিউল ইসলাম আকাশ এবং যুগ্ম আহ্বায়ক নাহিদ হাসান রৌদ্র বলেন, উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি অবৈধভাবে ব্যক্তি স্বার্থ চরিতার্থ করতে এবং নিজের পকেট ভরতে ইচ্ছা মতো কমিটি পরিবর্তন করে চলেছেন বলে অভিযোগ উঠেছে। এটা একটা সংগঠনের জন্য যেমন ক্ষতিকর তেমনি ছাত্রলীগের গঠনতন্ত্র মানা হচ্ছে না। সভাপতির মনগড়া এমন কাজ মিশ্র প্রতিক্রিয়া দেখা দিয়েছে।

জানা গেছে, গত ১৯ মার্চ ৭ সদস্য বিশিষ্ট ভবানীগঞ্জ পৌরসভা ছাত্রলীগের আহ্বায়ক কমিটির অনুমোদন দেন উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি এবং সাধারণ সম্পাদক।
সেই আহ্বায়ক কমিটিকে রাতারাতি পরিবর্তন করে উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি একাই ছাত্রলীগের প্যাডে স্বাক্ষর দিয়ে ৫ সদস্য বিশিষ্ট আরেকটি কমিটির অনুমোদন দেয়া হয়েছে। যেখানে উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদকের কোন স্বাক্ষর নেই। এর আগে গনিপুর ইউনিয়নসহ বেশ কয়েকটি ইউনিয়নে ছাত্রলীগের কমিটি পরিবর্তন করা হয়েছে।

প্রায় দশ বছর থেকে চলছে একই কমিটি দিয়ে ছাত্রলীগের কার্যক্রম। দীর্ঘ দিন থেকে দায়িত্বে থাকায় ইচ্ছা মতো কমিটি দিয়ে চলছে তারা।

কেন পুনরায় কমিটি দেয়া হলো এমন প্রশ্নের জবাবে উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি আব্দুল মালেক নয়ন বলেন, ভবানীগঞ্জ পৌর ছাত্রলীগের আহ্বায়ক কমিটি সাংগঠনিক ভাবে ব্যর্থ। তারা নির্ধারিত সময়ের মধ্যে পুর্ণাঙ্গ কমিটির তালিকা জমাদিতে পারেনি। তাই সাংগঠনিক নিয়মে আরেকটি কমিটি ঘোষণা করা হয়েছে এবং এই কমিটিই চূড়ান্তভাবে প্রকাশ পাবে।

সাধারণ সম্পাদকের স্বাক্ষর ছাড়াই কি কমিটি অনুমোদন হয় এমন প্রশ্নের উত্তরে তিনি বলেন, আমি স্বাক্ষর দিয়েছি। সাধারণ সম্পাদকও দিবে।

তবে এখন পর্যন্ত উক্ত কমিটিতে উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদকের স্বাক্ষর নেই।

অন্যদিকে উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক জহুরুল ইসলাম বলেন, সভাপতি ব্যক্তি স্বার্থে একাই কমিটি দিয়েছেন। নতুন কোন কমিটি সম্পর্কে আমি জানিনা। এটি ভূয়া কমিটি।

এ ব্যাপারে ভবানীগঞ্জ পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি ও মেয়র আব্দুল মালেক মন্ডল বলেন, ভবানীগঞ্জ পৌরসভায় গত ১৯ মার্চ পৌর ছাত্রলীগের একটি কমিটি অনুমোদন দিয়েছে উপজেলা ছাত্রলীগ। সেখানেই আবারো নতুন করে আরেকটি কমিটি দেয়ার কোন যৌক্তিকতা নেই।

তিনি আরো বলেন, আমি পৌর ছাত্রলীগের নেতৃবৃন্দের সাথে বসে সবাইকে নিয়ে একটা পূর্ণাঙ্গ কমিটি গঠন করা হবে। যাতে পৌর ছাত্রলীগ একটি সুসংগঠিত হয়ে সাংগঠনিক কাঠামো মেনে কাজ করতে পারে।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
উপরে