বাগমারায় কুপিয়ে তিনজনকে জখম

প্রকাশিত: মে ১৭, ২০২১; সময়: ১:০৫ pm |

নিজস্ব প্রতিবেদক : রাজশাহীর বাগমারা উপজেলায় বাড়িতে ঢুকে একই পরিবারের তিনজনকে কুপিয়ে ও পিটিয়ে জখম করা হয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। রোববার সন্ধ্যায় উপজেলার সোনাডাঙ্গা ইউনিয়নের বিলশনি এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

জখম হওয়া তিনজন হলেন কমেশ আলী (৫৪), তাঁর ভাই সৈয়দ আলী (৪৫) ও ছেলে মামুনুর রশিদ (৩৫)। তাঁদের উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। আহত মামুনুর রশিদ সোনাডাঙ্গা ইউনিয়নের বিলশনি বিলের মৎস্য চাষ প্রকল্পের সভাপতি।ওই বিলের নিয়ন্ত্রণকে কেন্দ্র করে এই হামলার ঘটনা ঘটেছে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

প্রত্যক্ষদর্শী ও আহত ব্যক্তিরা বলেন, রোববার বিকেলে নিজ বাড়িতে পরিবারের সদস্যদের নিয়ে ধানমাড়াইয়ের কাজ করছিলেন মামুনুর রশিদ। সন্ধ্যার দিকে একই এলাকার বাসিন্দা আকবর আলী, আবদুল খলিলসহ ৭-৮ জন ধারালো অস্ত্র নিয়ে তাঁদের বাড়িতে প্রবেশ করেন।

এ সময় তাঁরা অতর্কিতভাবে মামুনুর রশিদের মাথায় ধারালো অস্ত্র দিয়ে আঘাত করলে তিনি মাটিতে লুটিয়ে পড়েন। পরে তাঁরা পানিভর্তি বোতল দিয়ে মামুনুরকে পেটাতে থাকেন। বাবা ও চাচা মামুনুর রশিদকে রক্ষা করতে এলে তাঁদেরও কুপিয়ে ও পিটিয়ে জখম করা হয়। তাঁদের চিৎকারে প্রতিবেশীরা সংঘবদ্ধভাবে ঘটনাস্থলে এলে তাঁরা পালিয়ে যান। পরে আহত ব্যক্তিদের রক্তাক্ত অবস্থায় উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়।

আহত মামুনুর রশিদ বলেন, ভূমি মন্ত্রণালয়ের কাছ থেকে ছয় বছরের জন্য বিলশনি বিল ইজারা নিয়ে তিনি মাছ চাষ করে আসছিলেন। স্থানীয় কিছু ব্যক্তি তাঁর কাছ থেকে অনৈতিক সুবিধা আদায়ের চেষ্টা করেন। তাঁরা বিলের নিয়ন্ত্রণও নিতে চান। এ জন্য পরিকল্পিতভাবে তাঁদের ওপর হামলা করা হয়েছে। তিনি অভিযোগ করেন, হামলাকারীরা তাঁর বাড়ি থেকে নগদ টাকাও লুট করে নিয়ে গেছে।

বাগমারা থানার ওসি মোস্তাক আহম্মেদ বলেন, পুলিশ বিষয়টি জেনেছে। আহত ব্যক্তিদের চিকিৎসা নেওয়ার পরামর্শ দেওয়া হয়েছে। এ বিষয়ে এখনো মামলা হয়নি, পুলিশ আইনি ব্যবস্থা নেবে।

  • 120
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
উপরে