বাগমারায় জমি অধিগ্রহণ একদিকে, খাল খনন আরেক দিকে

প্রকাশিত: মে ১০, ২০২১; সময়: ১০:৩৩ pm |

নিজস্ব প্রতিবেদক : রাজশাহীর বাগমারা উপজেলায় শ্রীপুর ইউপির চাঁয়পাড়া গ্রামে পানি উন্নয়ন বোর্ডের কোটি টাকার খাল খনন প্রকল্পে অনিয়ম ও দুর্নীতির অভিযোগ উঠেছে। বিগত ১৫ দিনের বেশি সময় ধরে এ খাল খনন প্রকল্পের কাজ চলছে। কিন্তু সরকার যে সব জমি অধিগ্রহণ করেছে সেই দিকে খাল খনন না করে ঠিকাদারের সুবিধা মতো অন্য জমিতে খাল খনন করছে বলে অভিযোগ করেন ভূক্তভোগি জমির মালিকরা।

স্থানীয় জমির মালিকদের অভিযোগ, পানির সমস্যা সমাধানের জন্য কোটি টাকা ব্যয়ে খাল খনন প্রকল্প বাস্তবায়ন করা হচ্ছে। গত ১৫ দিন যাবত মুক্তার ঠিকাদার এ কাজ করছেন। পানি উন্নয়ন বোর্ডের এ কাজে ব্যাপক অনিয়ম ও দুর্নীতির অভিযোগ পাওয়া গেছে।

অভিযোগ রয়েছে, প্রকল্পটিতে যে পরিমান গভীর করার কথা টেন্ডারে উল্লেখ রয়েছে, সেই পরিমান গভীর করে খনন করা হচ্ছে না। এছাড়া অধিগ্রহণ করা যে আধা কিলোমিটার এলাকার যেসব জমির উপর দিয়ে খাল খনন করা কথা সেই জমি দিয়ে খাল খনন না করে কিছুটা তাদের সুবিধামত সোজাভাবে খনন করছেন। এতে বিপাকে পড়েছেন জমির মালিকরা।

জমির মালিক সোবহান, সাইদুর, ফিরোজ, সেকেনসহ স্থানীয়দের অভিযোগ, ঠিকাদার মুক্তারের ম্যানেজার মোজ্জাফর এই খনন কাজ দেকভাল করছেন। তাদের ইচ্ছামত তারা খাল খনন করে যাচ্ছেন। যে সব জমির উপর দিয়ে খাল খনন করার কথা সেই সব জমির উপর দিয়ে না করে তাদের সুবিধামত খনন কাজ করছেন। তাদের কাজের অনিয়মের অভিযোগ করেও কোন প্রতিকার পাননি জমির মালিকরা।

এ বিষয় পানি উন্নয়ন বোর্ডের এসও আরিফের সঙ্গে ০১৬১৮৬৭৭৭২১ নম্বরে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, খাল খননে কোন প্রকার অনিয়ম হয়নি। যদি কোন অনিয়ম থাকে তাহলে জমির মালিকদের অভিযোগ দিতে বলেন।

ঠিকাদার প্রতিষ্ঠানের প্রোপাইটার মুক্তার হোসেনের সাথে একাধিকবার ফোনে যোগাযোগ করেও তাকে পাওয়া যায়নি।

এ বিষয় ঠিকাদার প্রতিষ্ঠানের ম্যনেজার মোজ্জাফর হোসেন বলেন, আমি ঠিকাদার প্রতিষ্ঠানের ম্যনেজার, আমার কিছু বলার নেই। ঠিকাদার প্রতিষ্ঠানের মালিক মুক্তা ভাইকে বিষয়টি জানিয়েছি। তিনি বলেছেন, সাংবাদিকে যা খুশি তাই করতে বলো।

  • 112
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
উপরে