বাঘায় চোর-মালিকের পাল্টাপাল্টি মামলা, গ্রেপ্তার ২

প্রকাশিত: এপ্রিল ৩০, ২০২১; সময়: ৯:৩৫ pm |

নিজস্ব প্রতিবেদক, বাঘা : রাজশাহীর বাঘায় চোরকে পেটানো ও চুরির অভিযোগে পৃথক দু’টি মামলা দায়ের করা হয়েছে। মামলা দু’টির একটি হয়েছে চুরির অভিযোগে আরেকটি হয়েছে তিনজনকে গাছে বেঁধে মারপিটের অভিযোগে।

জলমর্টার চুরি অভিযোগে মালিক আইয়ুব আলী বাদি হয়ে একটি মামলা করেছেন। তার মামলায় তিনজনকে আসামী করা হয়েছে। এ মামলায় উপজেলার মহদিপুর গ্রামের জান মোহাম্মদের ছেলে সাইদুল ইসলামকে (৪৫) গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

অন্য দুই আসামী হলেন-একই উপজেলার বারশতদিয়াড় গ্রামের টুলু হোসেনের ছেলে দুলু হোসেন (৩০) ও হেলালপুর গ্রামের সারাত আলীর ছেলে মাইদুল ইসলাম (৪০)।

অপর মামলাটি করেছেন দুলু হোসেনের বাবা টুলু হোসেন। তার মামলায় আসামী করা হয়েছে জলমর্টার মালিক আইয়ুব আলীসহ তার পক্ষের সাতজনকে। এর মধ্যে মোখলেছুর রহমানকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। তার বাড়ি মহদিপুর গ্রামে।

অন্য আসামীরা হলেন- জলমর্টার মালিক আইয়ুব আলী, খোকন মাস্টার, শরিফুল, নায়ক, অন্তর ও আনোয়ার। চুরির অপবাদে ওই তিনজনকে গাছে বেঁধে নির্যাতনের অভিযোগ এনে মামলাটি করেছেন টুলু হোসেন।

মামলার তদন্তকারী অফিসার উপপরিদর্শক (এসআই) মাহফুজুর রহমান বলেন, বৃহস্পতিবার রাতে দুই মামলার দুইজনকে নিজ বাড়ি থেকে গ্রেপ্তার করেছি। শুক্রবার তাদের আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে পাঠানো হয়েছে। তবে চুরির সাথে জড়িত থাকার কথা স্বীকার করেছেন শহিদুল।

বাঘা থানা অফিসার ইনচার্জ (ওসি) নজরুল ইসলাম জানান, মহদিপুর গ্রামের আজিজুল হকের ছেলে আয়ুব আলীর বাড়ির আঙ্গিনায় যে জল মটার বসানো ছিল, সেটি গত ২১ এপ্রিল রাতে চুরি হয়ে যায়। ২৪ এপ্রিল সন্দেহজনক তিনজনকে ধরে নিয়ে গিয়ে নির্যাতন করা হয়। চুরি ও চোর সন্দেহে নির্যাতনের অভিযোগে পৃথক দুটি মামলা হয়েছে।

  • 60
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
উপরে