বাঘায় বিয়ের অনশন থেকে ফিরে ধর্ষণের অভিযোগে মামলা

প্রকাশিত: এপ্রিল ৩০, ২০২১; সময়: ৯:৫৫ pm |

নিজস্ব প্রতিবেদক, বাঘা : বিয়ের প্রতিশ্রুতি দিয়ে কলেজ ছাত্রীর সাথে সম্পর্ক গড়ে তুলেছিলেন শহিদুল। তাদের এ সম্পর্ক চলছিল ৫ বছর ধরে। মন দেওয়া নেওয়ার এক পর্যায়ে শারীরিক সম্পর্কে মেলামেশা হয়েছে একাধিকবার। কিন্তু কলেজ ছাত্রীর বিয়ের প্রস্তাবে রাজি হয়নি শহিদুল। বরং কলেজ ছাত্রীর সঙ্গে সম্পর্কের ইতি টেনে অন্যত্র বিয়ে করেন শহিদুল।

নিরুপায় কলেজ ছাত্রী অবশেষে শহিদুলের বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগ এনে মামলা দায়ের করেছেন। বৃহস্পতিবার (২৯ এপ্রিল) রাতে কলেজ ছাত্রী নিজে বাদী হয়ে এ মামলাটি দায়ের করেন।

এ মামলা দায়েরের আগের দিন বুধবার বিয়ের দাবিতে শহিদুলের বাড়িতে অনশন শুরু করেন ওই কলেজ ছাত্রী। ওই সময় শহিদুলের মা এবং ভাবি তাকে মারপিট করে বাড়ি থেকে বের করে দেন। অবশেষে চাচার সাথে থানায় গিয়ে ধর্ষণের অভিযোগে মামলা দায়ের করেন ওই ছাত্রী।

অভিযুক্ত শহিদুল (৩১) উপজেলার ঝিনা দক্ষিনপাড়া গ্রামের আব্দুস সালামের ছেলে। তিনি বেসরকারি একটি কোম্পানীতে চাকরি করেন। চাকরির সুবাদে বাইরে থাকায় শহিদুলের বক্তব্য নেওয়া সম্ভব হয়নি।

বাঘা থানা অফিসার ইনচার্জ (ওসি) নজরুল ইসলাম জানান, মামলা দাযেরের পর কলেজ ছাত্রীর শারিরিক পরীক্ষার জন্য রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপতালের ওসিসিতে পাঠানো হয়েছে। অভিযুক্ত আসামীকে গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।

  • 42
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
উপরে