প্রতিপক্ষের বিরুদ্ধে ছেলেকে মেরে টাকা নেওয়ার অভিযোগ মায়ের

প্রকাশিত: এপ্রিল ২২, ২০২১; সময়: ৯:০৩ pm |

নিজস্ব প্রতিবেদক, বাঘা : ছেলেকে মারধর করে টাকা নেওয়ার অভিযোগ করেছেন ভূক্তভোগী সজলের মা রাইনা বেগম। তিনি আড়ানি পৌরসভার নুরনগর গ্রামের বাসিন্দা সেকেন্দার আলীর স্ত্রী।

থানায় দায়েরকৃত লিখিত অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, মঙ্গলবার (২০ এপ্রিল) সকাল ৯টার দিকে ৪২ হাজার টাকা নিয়ে আড়ানীর উদ্দেশ্য বাড়ি থেকে বের হয় সজল। সকাল ১০ টার সময় বেড়ের বাড়ি গ্রামের জিয়া ও আলমগীর তাকে ধরে নিয়ে আড়ানি ব্রিজের পশ্চিমে চারঘাট থানাধীন রামচন্দ্রপুর বাজারের সুজনের দোকানের যায়। সেখানে খাগবাড়িয়া গ্রামের আজরাইল, চকসিংগা গ্রামের বুলবুল, আকাশ, নুরনগর গ্রামের বজলুকে ডেকে নিয়ে পূর্ব পরিকল্পিতভাবে অশ্লিল ভাষায় গালিগালাজ ও লোহার রড-হাতুড়ি দিয়ে মারধর করে। এতে তিনি শরীরের বিভিন্ন অংশে আঘাতপ্রাপ্ত হয়ে জখম হন। ওই সময় তার কাছে থাকা টাকাও তারা ছিনিয়ে নেয়।

স্থানীয়রা ঘটনাস্থলে যাওয়ার পর প্রাণনাশের ভয়ভীতি দেখিয়ে চলে যায় তারা। পরে তাকে স্থানীয়রা চিকিৎসার জন্য বাঘা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যায়।

এ বিষয়ে চারঘাট মডেল থানায় অভিযোগ করেন সজলের মা রাইনা বেগম। চারঘাট মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ জাহঙ্গীর আলম বলেন, অভিযোগের সত্যতা তদন্তের জন্য একজন সাব ইন্সপেক্টরকে দায়িত্ব দেওয়া দেওয়া হয়েছে। সত্যতা পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

এদিকে চিকিৎসা নিতে আসা সজলকে অন্য একটি মামলায় গ্রেপ্তার করেছে বাঘা থানা পুলিশ। মামলার তদন্তকারি সাব ইন্সপেক্টর মেহেদী হাসান জানান, গত শুক্রবার (১৬ এপ্রিল) আড়ানি ইউনিয়নের হরিপুর বাজারে মেসার্স বন্ধু অটো মটরস শোরুমে হামলা চালিয়ে ভাংচুর ও দুইজনকে মারপিট করে টাকা নিয়ে যাওয়ার অভিযোগে তার বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে। মঙ্গলবার (২০ এপ্রিল) সেই মামলায় উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের সামনে থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। আজরাইলের ভাই খাগড়বাড়িয়া গ্রামের আবু সাইদ বাদি হয়ে সজলসহ ৮ জনের বিরুদ্ধে মামলাটি দায়ের করেছেন।

  • 18
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
উপরে