বাগমারায় ফসলী জমিতে পুকুর খনন বন্ধে আবেদন

প্রকাশিত: এপ্রিল ২০, ২০২১; সময়: ৫:০৪ pm |

নিজস্ব প্রতিবেদক, বাগমারা : রাজশাহীর বাগমারায় ফসলী জমিতে পুকুর খনন বন্ধে প্রশাসনের নিকট লিখিত অভিযোগ দাখিল করেছে জমির মালিক নাছের মন্ডল। মৌখিক ভাবে পুকুর খনন করতে বাধা দিলেও সেটার তোয়াক্কা না করে খনন অব্যাহত রেখেছে প্রভাবশালীরা। খননকৃত ওই জমিতে বর্তমানে ধান রয়েছে। মঙ্গলবার উপজেলা নির্বাহী অফিসারের দপ্তরে গিয়ে লিখিত একটি অভিযোগ দাখিল করেন নাছের মন্ডল।

লিখিত অভিযোগ সূত্রে জানাগেছে, উপজেলার যোগিপাড়া ইউনিয়নের শান্তিপুর গ্রামের মৃত মেহের আলী সরদারের ছেলে নাসিম সরদার জোরপূর্বক নাছের মন্ডলের ৩ ফসলী জমি সহ বেশ কয়েক জন কৃষকের জমিতে ভেকু মেশিন দিয়ে পুকুর খনন করছে। সরকারী নির্দেশ অমান্য করে রাতের আঁধারে চালানো হচ্ছে খনন কাজ। পুকুরটি খনন করা হলে আশপাশের জমিসহ রাস্তার ব্যাপক ক্ষতি হবে। পুকুর খনন করতে জমি না দিলেও জোর পূর্বক সেখানে পুকুর খনন করছে নাসিম সরদার।

এদিকে জমির শ্রেণী পরিবর্তন করা যাবে না মর্মে মহামন্য আদালত একটি নির্দেশনা জারি করেছে। সরকারী নির্দেশ অমান্য করে দিব্যি সেখানে পুকুর খনন করা হচ্ছে।

অভিযোগকারী নাছের মন্ডল বলেন, পুকুর খনন করতে আমার জমি কোন ভাবেই লিজ দিবো না। তারপরও জোরপূর্বক নাসিম সরদার আমার জমিতে পুকুর খনন করছে। প্রশাসনের ভয়ে দিনের বেলায় খনন না করে রাতে খনন করছে পুকুর। এখানে পুকুর খনন করা হলে পাশের জমিতে বর্ষা মৌসুমে পানি বেধে জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হবে। এতে অন্য জমিও আস্তে আস্তে অনাবাদী হয়ে পড়বে। সেই সাথে পুকুরের উপরের রাস্তাটিও ভেঙ্গে ক্ষতিগ্রস্ত হয়ে যাবে। এতে চলাচলে অনেক সমস্যার মধ্যে পড়তে হবে লোকজনকে।

এদিকে পুকুর খননকারী নাসিম সরদারের ছেলে ওয়াসিম সারোয়ার বলেন, প্রশাসনের পক্ষ থেকে নিষেধ করা হয়েছে তাই বর্তমানে পুকুর খনন বন্ধ রাখা হয়েছে।

এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী অফিসার শরিফ আহম্মেদ বলেন, কৃষি জমিতে পুকুর খনন হচ্ছে এমন একটি অভিযোগ পেয়েছি। তদন্ত সাপেক্ষে পুকুর খনন বন্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। কোন ব্যক্তি অবৈধ ভাবে কৃষি জমিতে পুকুর বা দীঘি খনন করতে পারবে না বলেও জানান তিনি।

  • 37
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
উপরে