তানোরে সাংবাদিক পরিচয়ে চাঁদাবাজির দায়ে থানায় মামলা

প্রকাশিত: এপ্রিল ১৮, ২০২১; সময়: ৪:২১ pm |

নিজস্ব প্রতিবেদক, তানোর : রাজশাহীর তানোরে সাংবাদিক পরিচয়ে প্রতারণা ও চাঁদাবাজির ঘটনা ঘটেছে। এঘটনায় উপজেলার কলমা ইউপির রামনাথপুর গ্রামের সাইদুর রহমানের পুত্র মাহবুব রহমান (২৯) বাদী হয়ে বুধবার দিবাগত রাতে তানোর থানায় ৩ ব্যক্তির বিরুদ্ধে চাঁদাবাজির মামলা দায়ের করেছেন। মাহবুর পেশায় পল্লী চিকিৎসক।

মামলায় আসামী দেখানো হয়েছে তানোর পৌর সদরের গুবিরপাড়া মহল্লার বাসিন্দা আব্দুল হান্নানের পুত্র মনিরুজ্জামান মনি (৩৭), একই মহল্লার বাসিন্দা মৃত আব্দুর রাজ্জাকের পুত্র আব্দুস সবুর (৩৮) ও গোল্লাপাড়া মহল্লার বাসিন্দা মৃত ছলিমুদ্দিনের পুত্র আলিফ হোসেন (৪০)।

মামলার এজাহার ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে, সম্প্রতি ১৩ এপ্রিল মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে উপজেলার দরগাডাঙ্গা বাজারে অবস্থিত সেবা নামক ডেন্টাল কেয়ারে জোরপূর্বক প্রবেশ করে চাঁদাবাজ মনি, সবুর ও আলিফ। এসময় ওই ডেন্টাল কেয়ারের মালিক চিকিৎসক মাহবুব রহমান তাদের পরিচয় জানতে চাই। এহেন পরিস্থিতিতে মনি ‘বিজয়বাংলা’ ও সবুর ‘জিনিউজ’ অনলাইন পত্রিকার পরিচয় দেন। আর আলিফ আমাদের রাজশাহী পত্রিকাসহ সীমান্ত টাইমস নামক অনলাইন পত্রিকার পরিচয় দিয়ে বিভিন্ন হয়রানি মূলক প্রশ্ন করে।

এসময় তাদের বসতে বলে কাগজপত্র দেখাতে চান। এতে তারা ক্ষিপ্ত হয়ে তোমার ডেন্টাল চেম্বারের কাগজপত্র নেই, তুমি ভূয়া চিকিৎসক ও প্রতারক। আমাদের ১০ হাজার টাকা দাও নইলে তোমাকে ভ্রাম্যমান আদালতের মাধ্যমে ২০ হাজার টাকা জরিমানা করে দেব এমনতি বলা হয়েছে বলে মামলার এজাহারে মাহবুব রহমান উল্লেখ করেছেন।

মামলার বাদী পল্লী চিকিৎসক মাহবুব রহমান জানান, দাবিকৃত চাঁদার ১০ হাজার টাকা না দেয়া হলে মনি, সবুর ও আলিফ পত্রিকায় ও ফেসবুকে সংবাদ প্রকাশ করে ডেন্টাল কেয়ার বন্ধ করার ভয় দেখায়। তাদের এতো টাকা চাঁদা দিতে অস্বীকার করায় গেঞ্জির পকেট থেকে ১ হাজার টাকা জোরপূর্বক বের করে নেয় মনি। পরে আরও চাঁদার ৯ হাজার টাকা আগামীকাল রেডি রাখিও বলে বিভিন্ন ভয়ভীতি প্রদর্শন করে চলে যায়। বিষয়টি নিয়ে আমার এক খালুর সহায়তায় গত ১৪ এপ্রিল বুধবার রাতে থানায় মামলা করি। তানোর থানার মামলা নম্বর- ১৬/১০৪। ধারা- ৩৮৪/৩৮৬/৫০৬ দন্ডবিধি।

এনিয়ে অভিযুক্ত মনিরুজ্জামান মনি বলেছেন, মাহবুব রহমান ভূয়া পল্লী চিকিৎসক। তার কোন কাগজপত্র নেই। এঅবস্থায় তিনি তাদের খুশি করতে ১ হাজার দিয়েছেন। পরে বিষয়টি নিয়ে তাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ করা হলে স্থানীয় ইউপি মেম্বারের মাধ্যমে ওই টাকা ফেরৎ দেয়া হয়েছে।

মামলার বিষয়টি নিশ্চিত করে তানোর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) রাকিবুল হাসান বলেন, ঘটনার সত্যতা প্রমানে অভিযুক্ত ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে থানায় চাঁদাবাজি ও প্রতারণার অভিযোগে মামলা রুজু করা হয়েছে। তবে, ঘটনার পর থেকে আসামীরা পলাতক থাকায় গ্রেফতার করা সম্ভব হয়নি।

  • 30
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
উপরে