পুঠিয়ার দাসমাড়িয়া উপ-স্বাস্থ্য কেন্দ্রে অনিয়মের অভিযোগ

প্রকাশিত: মার্চ ১৮, ২০২১; সময়: ৪:৫১ pm |

নিজস্ব প্রতিবেদক, পুঠিয়া : রাজশাহীর পুঠিয়ার দাসমাড়িয়া উপ-স্বাস্থ্য কেন্দ্রের বিরুদ্ধে অনিয়মের অভিযোগ উঠেছে। মেডিকেল অফিসার এই উপ-স্বাস্থ্য কেন্দ্রে না আশায় স্যাকমো আর ফার্মাসিষ্ট দিয়ে চলছে এই কেন্দ্রটি।

এলাকার কামরুল হাসান সহ উপস্থিত কয়েকজন মহিলা জানান, এই স্বাস্থ্য কেন্দ্রে মেডিকেল অফিসার আসে না। জহুরুল প্রতিদিন আসেন না। সরকারি নিয়ম নীতিকে তুয়াক্কা না করেই মাঝে মধ্যে আসেন আধা ঘন্টা অথবা এক ঘন্টা থেকে চলে যায়। তার বিরুদ্ধে কয়েকবার অভিযোগ দিয়েও কোন সুফল পাইনি এলাকাবাসী। উল্টো কিছু দালালের পাল¬ায় পরেছি। শুধু তাই নয় বাহিরের এক মহিলা হাজেলা বেগমের নিকট এবং তার নাতি নাবালক নাহিদের কাছে থাকে উপ-স্বাস্থ্য কেন্দ্রের চাবি। এতে করে তারাও এলাকার রোগীদের ঔষুধ দেয় বলে অভিযোগ রয়েছে। এ বিষয়ে উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষের দৃষ্টি দেওয়ার জন্য অনুরোধ করছি।

জানা গেছে, রাজশাহীর পুঠিয়া উপজেলার জিউপাড়া ইউনিয়নের দাসমাড়িয়া উপ-স্বাস্থ্য কেন্দ্রে মেডিকেল অফিসার হিসাবে কর্তব্যরত আছেন, ডাঃ তানিয়া আফরিন তিশা, স্যাকমো পদে রয়েছেন মোঃ জহুরুল ইসলাম এবং ফার্মাসিষ্ট হিসাবে রয়েছে মোছাঃ ফাতেমা খাতুন।

বৃহস্পতিবার বেলা ১১ টার দিকে উপ-স্বাস্থ্য কেন্দ্রে সরেজমিনে দেখা গেছে, উক্ত স্বাস্থ্য কেন্দ্রের মেডিকেল অফিসার উপস্থিত নাই। ফার্মাসিষ্টের রুমে বসে আছেন স্যাকমো। কিন্তু মেন গেট বন্ধ। আর ফার্মাসিষ্ট ছিলেন উপ-স্বাস্থ্য কেন্দ্রের দ্বিতীয় তলায় বাস ভবনে। সাংবাদিকের উপস্থিতি পেয়ে নিচে ছুটে আসেন তিনি। এ সময় স্যাকমো মোঃ জহুরুল ইসলাম ক্ষিপ্ত হয়ে রুম থেকে বেড়িয়ে বাহিরে এসে বলেন উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা বলেছেন উপ-স্বাস্থ্য কেন্দ্রে সাংবাদিকদের প্রবেশ করতে দেওয়া হবে না। এছাড়া কোন তথ্য দেওয়া যাবে না।

ডাঃ তানিয়া আফরিন তিশা জানান, আমি ৬ মাসের মাতৃত্বকালীন ছুটিতে আছি। কোন কিছু জানার প্রয়োজন হলে উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তাকে জিজ্ঞাসা করেন।
উপজেলা নির্বাহী অফিসার নুরুল হাই মোহাম্মদ আনাছ জানান, বিষয়টি আপনার কাছ থেকে শুনলাম। আমি খবর নিচ্ছি। এ ব্যাপারে রাজশাহী জেলা সির্ভিল সার্জন ডাঃ মোঃ কাইয়ুম তালুকদার জানান, বিষয়টি তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

  • 62
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
উপরে