রাসিক মেয়রকে রিকশা চালকদের স্মারকলিপি প্রদান

প্রকাশিত: ফেব্রুয়ারি ১, ২০২১; সময়: ৯:৫১ pm |

নিজস্ব প্রতিবেদক : সারাদিন রিকশা চালানোর দাবিতে রাজশাহী সিটি কর্পোরেশনের মেয়র এ.এইচ.এম খায়রুজ্জামান লিটনকে স্মারকলিপি প্রদান করেছেন রাজশাহী মহানগর জাতীয় রিকশা ভ্যান শ্রমিক লীগের নেতৃবৃন্দ। সোমবার দুপুরে নগর ভবনে মেয়র মহোয়দকে স্মারকলিপি প্রদান করেন তারা। এ সময় মেয়র মহোদয় তাদের স্মারকলিপি গ্রহণ করে রিকশা চালকদের নিজ নিজ কর্মে ফেরার আহ্বান জানান। এর পরিপ্রেক্ষিতে নিজ নিজ কর্মে ফিরে যান রিকশা চালকরা।

এ সময় রিকশা চালকদের উদ্দেশে রাজশাহী সিটি কর্পোরেশনের মেয়র এ.এইচ.এম খায়রুজ্জামান লিটন বলেন, আমি প্রথম মেয়াদে মেয়র থাকাকালে ২০০৯ সালের দিকে প্রথম সরু চাকার চার্জার রিকশা চালু হয়। তখন বিআরটিএ এর কোন অনুমোদন ছিল না। এগুলোকে অবৈধ বলে ঘোষণা করা হয়েছিল। তখন আমি মেয়র হিসেবে কাউন্সিলরবৃন্দদের সঙ্গে নিয়ে রাজশাহীতে কর্মসংস্থান তৈরি করার লক্ষ্যে অপনাদের কর্মের কথা এবং যাত্রীদের সহজে চলাচলের কথা ভেবে আমরা সিটি কর্পোরেশন এর দায়িত্ব নিয়েছিলাম।

আমরা চার্জার রিকশার লাইসেন্স প্রদান করি। পরবর্তীতে শুধু ঢাকা সিটি কর্পোরেশন ছাড়া অন্যান্য সিটি কর্পোরেশন ও পৌরসভায় লাইসেন্স চালু করেছিল। দীর্ঘদিন পরে সরু চাকার যে চার্জার রিকশা ছিলো সে রিকশাগুলো উঠে গিয়ে মোটা চাকার চার্জার রিকশা চলাচল শুরু করে। চার্জার রিকশা চলাচলের কারণে জনগণের যাতায়াতে অনেক সুবিধা হয় এবং অনেকের বেকারত্ব দূর হয়। তবে বর্তমান সময়ে যানজট নিরসন ও সড়কে শৃঙ্খলা ফিরিয়ে আনার জন্য রিকশা মালিক ও চালক নেতৃবৃন্দের সাথে দফায় দফায় আলোচনা করে সবার সম্মতি নিয়ে দুই শিফটে চার্জার রিকশা চালুর সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়।

মেয়র আরো বলেন, আজকে যে চার্জার রিকশা আপনারা বন্ধ রেখেছেন, তা আমি জানতাম না। আমাকে অপনাদের নেতৃবৃন্দ এ ব্যাপারে জানায়নি। আমাকে ও অথবা কোন কাউন্সিলর বা কর্মকর্তাকে জানানো হলে আমার বিশ^াস কর্ম ছেড়ে কাউকে রাজপথে দাঁড়াতে হতো না। আজকে যে পরিস্থিতি হয়েছে, আমি আপনাদের এতটুকু বলতে চাই এবার শান্তি শৃঙ্খলা বজায় রেখে চলে যান এবং গাড়ী বের করে রাস্তায় চলাচল শুরু করে দেন। আপনাদের নেতাদের সাথে কথা বলে আপনাদের সম্মতির বাইরে এমন কিছু করবো না, যাতে আপনাদের কষ্ট হয়। আপনাদের নেতৃবৃন্দের সাথে আলোচনা করে পরবর্তী সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হবে।

এ সময় রাসিকের প্যানেল মেয়র-১ ও ১২নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর সরিফুল ইসলাম বাবু, প্যানেল মেয়র-২ ও ১নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর রজব আলী সহ অন্যান্য কাউন্সিলরবৃন্দ, প্রধান রাজস্ব কর্মকর্তা আবু সালেহ নূর-ঈ সাঈদ, রাজশাহী মহানগর জাতীয় রিকশা ভ্যান শ্রমিক লীগ সভাপতি লিয়াকত আলী, সাধারণ সম্পাদক আমিরুল ইসলাম শান্ত সহ অন্যান্য নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

উল্লেখ্য, রাজশাহী মহানগর জাতীয় রিকশা ভ্যান শ্রমিক লীগ নেতৃবৃন্দের সাথে দফায় দফায় আলোচনা করে সকলের সম্মতি নিয়ে ১ ফেব্রুয়ারি থেকে রিকশা দুই শিফটে চালুর সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছিল রাজশাহী সিটি কর্পোরেশন কর্তৃপক্ষ।

  • 152
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
উপরে