রাজশাহীতে ইভিএমে ভোট দিতে হিমশিম খায় ভোটাররা

প্রকাশিত: জানুয়ারি ১৬, ২০২১; সময়: ৯:২০ pm |

মুক্তার হোসেন, গোদাগাড়ী : রাজশাহীর গোদাগাড়ী উপজেলার কাকনহাট পৌরসভার নির্বাচন উৎসবমুখর পরিবেশে ভোট গ্রহন অনুষ্ঠিত হয়েছে। শনিবার সকাল ৮টা থেকে ভোটাররা কেন্দ্র এসে প্রথমবারের মত ইভিএমের মাধ্যমে ভোট প্রদান করে। তবে প্রতিটি কেন্দ্র ইভিএম মেশিন ধীর গতিতে কাজ করায় দীর্ঘলাইনে ঘন্টার পর ঘন্টা ধরে অপেক্ষা করে।

সকাল ১১ টায় কাকনহাট উচ্চ ভোট কেন্দ্র ৯০ বছরের সালেহা অপেক্ষা করছিল। প্রিজাইডিং অফিসার এ বৃদ্ধাকে ভোট দেয়ার ব্যবস্থা করেন। সুন্দর পুর প্রাথমকি বিদ্যলয় ভোট কেন্দ্র ৪ঘন্টা ধরে লাইনে ভোট দেওয়ার জন্য অপেক্ষা করছিল রুপালী মাড়ান্ডী।মহাদেবপুর তিলাহারী প্রাথমিক কেন্দ্র ভোট দিতে এসে রোজিনা নামে এক নারী অসুস্থ হয়ে পড়ে। এক পর্যায়ে ভোট না দিয়ে রোজিনা বাড়ী ফিরে যায়।

৫ ওয়ার্ডের কাউনিন্সলর প্রার্থী গোলাম মোর্ত্তজা বলেন, ইভিএম মেশিন চালনোর ক্ষেত্রে ভোট গ্রহন কর্মকর্তারা অদক্ষতার পরিচয় দিচ্ছে। আর এই কারণে ইভিএমে দীরগতিতে ভোট গ্রহন হচ্ছে। দুপুর সাড়ে ১২ টার দিকে ১১ টি ভোট কেন্দ্র ৪০-৪৫ ভাগ ভোট পড়ে। দুপুরের পর থেকে ভোট পড়পর সংখ্যা বাড়তে থাকায় দুপুর ২ টার দিকে ৭০ ভাগ ভোট পড়ে।

সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান ও আওয়ামীলীগের মেয়র প্রার্থী একেএম আতাউর রহমান খান নৌকার বিজয় নিশ্চিত দাবি করে বলেন, শান্তিপূর্ণভাবে ভোট হয়েছে।

বিএনপির মেয়র প্রার্থী হাফিজুর রহমান হাফিজ বলেন, কোন ধরনের অপ্রতিকর ঘটনা ঘটেনি। শান্তিপুর্ণ সুষ্ঠুভাবে ভোট অনুষ্ঠিত হওয়ায় ধানের শীষের জয় হবে। প্রতিটি ভোট কেন্দ্র নৌকা ও ধানের শীষের এজেন্ট থাকলেও জাতীয় পাটির লাঙ্গল এর এজেন্টকে দেখা যায়নি।

কাকানহাট পৌর নির্বাচনে মেয়র পদে তিনজন, ৯ওয়ার্ডে কাউন্সিলর পদে ৫৩ জন ও সংরক্ষিত ৩টি ওয়ার্ডে মহিলা কাউন্সিলর পদে ১৩জন প্রতিদ্বীনতা করে।

  • 25
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
উপরে