রাজশাহীতে সক্রিয় গরুচোর সিন্ডিকেট

প্রকাশিত: জানুয়ারি ১৫, ২০২১; সময়: ১১:৩৭ am |

নিজস্ব প্রতিবেদক : রাজশাহী নগরীতে গরু চুরি করতে একটি বড় সিন্ডিকেট কাজ করছে। এই সিন্ডিকেটের সদস্যদের অধিকাংশের বাড়িই নগরীর অদূরে কাটাখালী পৌরসভা এলাকায়। চোর সিন্ডিকেটের সদস্যদের মধ্যে উল্লেখযোগ্য কয়েকজন হলো- নগরীর কাটাখালীর মাজেদুর, ফরিদ, কাটাখলীর সমসাদিপুর এলাকার মাহাবুর, শিরোইল কলোনী এলাকার ওয়াসিম হোসেন। এছাড়া এই সিন্ডিকেটের সাথে একজন আইনজীবী ও একজন ব্যাংকার রয়েছেন।

বিভিন্ন সময়ে গরু-মহিষ চুরি হলেও সিন্ডিকেটের হোতারা থাকেন বহাল তবিয়তে। প্রকাশ্যে ঘুরে বেড়ালেও পুলিশ তাদের ধরতে পারেনা। নির্ভরযোগ্য একাধিক সূত্র এসব তথ্য নিশ্চিত করেছে। সূত্র জানায়, চোর সিন্ডিকেটের অন্যতম সদস্য মাহবুরের নিজস্ব ট্রাক রয়েছে। এই ট্রাকে বিভিন্ন সময়ে চোরাই গরু পরিবহন করা হয়ে থাকে। সিন্ডিকেটের সদস্যদের অধিকাংশের বিরুদ্ধে বিভিন্ন মামলাও রয়েছে।

এদিকে, মঙ্গলবার দিবাগত গভীর রাতে রাজশাহী নগরীতে দুইটি চোরাই গরুসহ একটি ট্রাক আটক করেছে বোয়ালিয়া থানা পুলিশ। এ ঘটনায় আবুল বাসার পাপ্পু (২৬) নামের এক চোরকে গ্রেফতার করা হয়েছে। নগরীর আলুপট্টি মোড় থেকে ট্রাকটি আটক করা হয়। আটককৃত পাপ্পু বোয়ালিয়া থানাধীন আলুপট্টি নদীর ধার এলাকার আবুল কালামের ছেলে বোয়ালিয়া থানার এসআই গোলাম মোস্তফা জানান, রাতে আমরা সিরা ডিউটি পালন করছিলাম। এসময় একটি ট্রাকে করে দুটি গরু বহন করে নিয়ে যাওয়া হচ্ছিল। গতিরোধ করলে তারা ট্রাকটি রেখে পালানোর চেষ্টা করে।

পরে ধাওয়া করে পাপ্পুকে আটক করা হয়। অপর তিনজন পালিয়ে যায়। পলাতকরা হলো- চন্দ্রিমা থানাধীন শিরোইল কলোনী এলাকার ইব্রাহিম হোসেন (৩০), শালবাগান এলাকার রুবেল ও জিনারুল (৩৫)। এরমধ্যে রুবেল বর্তমানে কাটাখালিতে বসবাস করে। এ ঘটনায় গরুর মালিক আকতার মন্ডল বাদি হয়ে বুধবার বোয়ালিয়া মডেল থানায় মামলা করেন।

মামলা সূত্রে জানা যায়, মঙ্গলবার রাত সাড়ে ৯ টার দিকে তানোর সরঞ্জায় মন্ডলপাড়া আকতার মন্ডলের গোয়াল ঘর থেকে দুটি সাদা রঙের বলদ গরু চুরি করে নিয়ে যায় তারা। গরু দুটির মূল্য প্রায় ১ লক্ষ ৮০ হাজার টাকা। বোয়ালিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) নিবারন চন্দ্র বর্মন বলেন, এ ঘটনায় আটক পাপ্পুসহ পলাতক তিনজনকে আসামি করে থানায় মামলা রুজু করা হয়েছে। পুলিশ বিষয়টি তদন্ত করে দেখছে।

  • 94
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
উপরে