বিদ্রোহী দমনে নৌকার পক্ষে একাট্টা আ’লীগ

প্রকাশিত: জানুয়ারি ১০, ২০২১; সময়: ৭:৪৭ pm |

নিজস্ব প্রতিবেদক, বাঘা : বিদ্রোহী প্রার্থী দমনে নৌকার পক্ষে একাট্রা হয়েছে বাঘা উপজেলা আওয়ামীলগের নেতাকর্মীরা। পৌর আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক মতিউর রহমান মতিনের নেতৃত্বে নৌকার পক্ষে ঘুরে দাঁড়িয়েছেন দলটির নেতা-কর্মীরা। আসন্ন ১৬ জানুয়ারি রাজশাহীর আড়ানি পৌরসভার নির্বাচন সামনে রেখে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার মনোনীত নৌকার প্রার্থী শহীদুজ্জামানের সমর্থনে প্রতিদিনই পৌর এলাকায় নৌকার পক্ষে গণসংযোগ করছেন বাঘা উপজেলার ৭ ইউনিয়নের আওয়ামী লীগ, ছাত্রলীগ ও সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীরা। আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা ভোটারদের দ্বারে দ্বারে গিয়ে নৌকার পক্ষে ভোট চাইছেন।

গত রোববার (১০-০১-২০২১) বিকেলে নৌকার প্রার্থীর পক্ষে গনজোয়ার সৃষ্টি করতে নেতা-কর্মীদের সমন্বয়ে মিছিল বের করে দলটি। মিছিলটি পৌর সভার বাজার হয়ে চকসিংগা, রুস্তমপুর, পিয়াদাপাড়া, সাহাপুর, ষ্টেশন বাজার, চকরপাড়াসহ পৌরসভার বিভিন্ন ওয়ার্ডে প্রদক্ষিন করে। এছাড়াও পৌর এলাকার বিভিন্ন স্থানে নৌকার পক্ষে পথসভা করেন। প্রতিদিন পৌর এলাকার বিভিন্ন ওয়ার্ডে জেলা ও উপজেলার নেতারা শহীদুজ্জামানের সমর্থনে নৌকার প্রচারণা চালাচ্ছেন। এসব নেতাকর্মীর গণসংযোগের ফলে ভোটাররা দারুণভাবে উজ্জীবিত হচ্ছেন। তারা পৌর এলাকার ভোটারদের দিচ্ছেন উন্নয়নের প্রতিশ্রুতি।

নৌকার প্রার্থী শহীদুজ্জামান বলছেন, বিগত ১৪ বছরে যেসব উন্নয়ন হয়নি আমি নির্বাচিত হলে এরচেয়ে বেশি উন্নয়ন করবো। এদিকে বিদ্রোহী প্রার্থী মুক্তার আলীর নেতৃতে একইদিন বিকেলে অপর একটি নির্বাচনী মিছিল পৌর সভার বাজার হয়ে বিভিন্ন ওয়ার্ড প্রদক্ষিন করে। মুক্তার আলী পথসভায় বলেন, বিগত নির্বাচনে মেয়র নির্বাচিত হয়ে পৌর সভার উন্নয়ন করেছি। আগামীতেও নির্বাচিত হয়ে আরো উন্নয়ন করবো। ভোটাররা তার সাথে রয়েছেন।

প্রতিদ্ব্দ্বী বিএনপি প্রার্থী তোজাম্মেল হক এগুচ্ছেন কচ্ছপের গতিতে। মাঝে মধ্যে তাকে দলীয় নেতা কর্মী আবার কখনো একা একা গণসংযোগ করতে দেখা যায়। পথেঘাটে ধানের শীষের কিছু পোস্টার লাগানো হলেও দলীয় নেতাকর্মীদের মুখে ধানের শীষের তেমন কোনো প্রচারণা নেই। মনোনয়নপত্র জমা দেওয়ার সময় বিএনপি মনোনীত ধানের শীষের প্রার্থী তোজাম্মেল হকের সঙ্গে উপজেলা বিএনপির আহব্বায়কসহ বিএনপির দলীয় নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

গত সংসদ নির্বাচনে রাজশাহী ৬ আসনের পরাজিত প্রার্থী আবু সাঈদ চাদের আশির্বাদ পুষ্ট বেশ কয়েকজন নেতা-কর্মীর দেখা মিললেও এর পর আর তাদের ধানের শীষের প্রচারণায় পৌর এলাকায় দেখা যায়নি। তার অভিযোগ প্রতিদ্ব্দ্বী প্রার্থীর সমর্থকদের বাধার কারণে ঠিকমতো প্ররোচনা চালাতে পারছেন না। তোজাম্মেল হক বলেন, আমি সুষ্ঠু ভোট দাবি করেন।

  • 123
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
উপরে