রাজশাহীতে বাজারের আধিপত্য নিয়ে দুই গ্রামবাসীর সংঘর্ষে নিহত ১

প্রকাশিত: জানুয়ারি ৯, ২০২১; সময়: ৬:৫৯ pm |

নিজস্ব প্রতিবেদক, চারঘাট : রাজশাহীর চারঘাটে বাজারের আধিপত্য বিস্তার কেন্দ্র করে দুই উপজেলার দুইটি গ্রামবাসীর মধ্যে সংঘর্ষে একজন নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় আটক হয়েছেন ১২ জন।

নিহত ব্যক্তির হলেন, উপজেলার শিবপুর গ্রামের মৃত হালিম উদ্দিনের ছেলে রেজাউল ইসলাম (৫৫)।

পুলিশ ও এলাকাবাসি জানায়, বেশ কিছুদিন থেকে চারঘাট উপজেলার শিবপুর ও পুঠিয়া উপজেলার দিঘলকান্দি এই দুইটি গ্রামের মধ্যে হলিদাগাছি শিশিতলা বাজারে আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে বিরোধ চলে আসছিল। তারই জের ধরে শুক্রবার দিনগত রাত আটটার দিকে দুইটি গ্রামের মধ্যে কয়েকজনরে মধ্যে কথা কাটাকাটি শুরু হয়।

সংবাদ পেয়ে চারঘাট মডেল থানা ও পুঠিয়া থানা পুলিশ তাৎক্ষনিকভাবে নিয়ন্ত্রণ করলেও ঐ ঘটনার জের ধরে শনিবার সকালে পুঠিয়া উপজেলার দিঘলকান্দি এর লোকজন মাইকিং মাধ্যমে গ্রামবাসিকে সংঘবদ্ধ করে শিশিতলা নামক বাজারে উঠার চেষ্ঠা করে। অপরদিকে শিবপুর গ্রামের লোকজন একই কৌশলে অবস্থান করে।

ঘটনার সংবাদ পেয়ে চারঘাট উপজেলা চেয়ারম্যান আলহাজ্ব ফকরুল ইসলাম ও মডেল থানার ওসি মুহাম্মদ জাহাঙ্গীর আলম এবং পুঠিয়া উপজেলা চেয়ারম্যান জি এম হিরা বাচ্চু, পুঠিয়া থানার ইন্সপ্টের তদন্ত খালেদুল রহমান, বানেশ্বর ইউপি চেয়ারম্যান গাজী সুলতান, বেলপুকুর ইউপি সাবেক চেয়ারম্যান মুকুলসহ দুটি গ্রামের ৩০ জন বিষয়টি মিমাংসার জন্য সালিশে বসেন।

এসময় দিঘলকান্দি গ্রামের সবুজ ও আবু সামা দুই যুবক দেশীয় অস্ত্রসহ শিবপুর গ্রামের লোকজনের উপর হামলা চালালে সংঘর্ষে ছড়িয়ে পড়ে। তাদের ধারালো অস্ত্রে আঘাতে একজন পুলিশ ও ইউপি সদস্য, শিবপুর গ্রামের রেজাউলসহ ৬ জন আহত হয়। আহতদের উদ্ধার করে রামেক হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক আহত রেজাউলকে মৃত ঘোষনা করেন।

এইদিকে, ঘটনার খবর পেয়ে চারঘাট ইউএনও সৈয়দা সামিরা, পুঠিয়া ইউএনও নুরুল হাই মোহাম্মদ আনাজ, চারঘাট সার্কেল সিনিয়র এএসপি নুরে আলম সিদ্দিকী ঘটনাস্থলে পৌছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনে। এরিপোট লেখা পর্ষন্ত অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

এব্যাপারে চারঘাট মডেল থানার ওসি জাহাঙ্গীর আলম বলেন, সংবাদ পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে ১২ জনকে আটক করা এবং বর্তমানে পুলিশই অভিযান অব্যাহত রয়েছে। ওসি বলেন এখন পর্ষন্ত কোন মামলা হয়নি।

  • 63
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
উপরে