রাজশাহীতে মেয়র প্রার্থীর সমর্থকদের হাতে দুই সাংবাদিক লাঞ্ছিত

প্রকাশিত: জানুয়ারি ৯, ২০২১; সময়: ১:৪৯ pm |

নিজস্ব প্রতিবেদক : রাজশাহীর বাঘা উপজেলার আড়ানী পৌরসভা নির্বাচনে প্রচারণার ছবি তুলতে গেলে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থীর সমর্থকেরা দুই সাংবাদিককে লাঞ্ছিত করেন। এ ব্যাপারে সাংবাদিকেরা বাঘায় থানায় গিয়ে পুলিশকে মৌখিক অভিযোগ করেছেন।

শুক্রবার বেলা দুইটার দিকে পৌর এলাকার শাহাপুর এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। আড়ানী পৌর নির্বাচনের বিদ্রোহী প্রার্থী ও বর্তমান মেয়র মুক্তার আলীর কর্মী-সমর্থকেরা এ হামলা চালান। এতে আহত হয়েছেন মাছরাঙা টেলিভিশনের রাজশাহীর ক্যামেরাপারসন মাহফুজুর রহমান ওরফে রুবেল ও দীপ্ত টিভির ক্যামেরাপারসন রফিকুল ইসলাম। তাঁরা প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়েছেন।

মাহফুজুর রহমান বলেন, যুব মহিলা লীগের নেত্রীরা নৌকার প্রচার-প্রচারণা চালাচ্ছিলেন। ওই সময় বিদ্রোহী প্রার্থী মুক্তার আলীর সমর্থকেরা নৌকার প্রচারপত্র কেড়ে নিয়ে ছিঁড়ে ফেলছিলেন। এই ছবি তুলতে গেলে মুক্তারের সমর্থক মিলন তাঁকে ফোন পকেটে ভরে এলাকা ছেড়ে চলে যেতে বলেন। এরপরও তিনি ছবি তুলতে গেলে মিলন তাঁর গলা টিপে ধরেন। এ সময় তাঁর দম বন্ধ হয়ে আসছিল। হামলাকারী তাঁর মুঠোফোনটি কেড়ে নিয়ে ভেঙে ফেলেন।
বিজ্ঞাপন

এ সময় দীপ্ত টিভির ক্যামেরাপারসন রফিকুল ইসলামকেও মারধর করা হয়। এমনকি আওয়ামী লীগ প্রার্থী শহীদুজ্জামানের পক্ষে প্রচারণা চালানোর কারণে রাজশাহী জেলা যুব মহিলা লীগের এক নারীনেত্রীকেও লাঞ্ছিত করেন হামলাকারীরা।

বাঘা থানার ওসি নজরুল ইসলাম জানান, পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে তাঁদের পায়নি। পরে মাহফুজুর রহমান নিজেই থানায় এসে ঘটনাটি বলেন কিন্তু কোনো অভিযোগ করেননি।

তবে লাঞ্ছিত যুবমহিলা লীগের কর্মী মোসা. মেমোরী খাতুন বাঘা উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তার কাছে লিখিত অভিযোগ করেছেন। এতে মিলনসহ আরও কয়েকজনের নাম উল্লেখ করা হয়েছে। অভিযোগে বলা হয়েছে হামলাকারীদের ধাক্কায় রাজশাহী জেলা যুব মহিলা লীগের সাধারণ সম্পাদক বিপাশা খাতুন পড়ে গেলে তিনি তাঁকে ওঠাতে যান। তখন হামলাকারীরা তাঁর শাড়ি টেনে ছিঁড়ে দেন।

মেয়র প্রার্থী মুক্তার আলী বলেন, বড় কোনো ঘটনা ঘটেনি। মুঠোফোনটি ভেঙেছে। তিনি একটি উন্নতমানের ফোন কিনে দেবেন। সমর্থকদের এ ভুলের জন্য তিনি সবার কাছে ক্ষমা চান।

এদিকে দুই সাংবাদিকের ওপর মেয়র প্রার্থী মুক্তার আলীর সমর্থকদের হামলার ঘটনায় তীব্র নিন্দা এবং ঘটনার সঙ্গে জড়িত ব্যক্তিদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানিয়েছে রাজশাহী সাংবাদিক ইউনিয়ন (আরইউজে)। এক বিবৃতিতে আরইউজে সভাপতি কাজী শাহেদ এবং সাধারণ সম্পাদক তানজিমুল হক বলেন, হামলাকারীদের দ্রুত গ্রেপ্তার করে আইনের আওতায় আনতে হবে। অন্যথায় রাজশাহী সাংবাদিক ইউনিয়ন এ ব্যাপারে কঠোর আন্দোলন কর্মসূচি ঘোষণা করবে।

আড়ানী পৌরসভা নির্বাচনে আওয়ামী লীগের প্রার্থী হিসেবে নৌকা প্রতীকে অংশ নিয়েছেন শাহীদুজ্জামান, বিএনপির ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে তোজাম্মেল হোসেন এবং স্বতন্ত্র (আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী) প্রার্থী হিসেবে বর্তমান মেয়র মুক্তার আলী নারকেলগাছ প্রতীক নিয়ে নির্বাচনে অংশ নিয়েছেন।

  • 100
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
উপরে