পরিছন্ন রাজশাহী নগরে তারের জঞ্জাল

প্রকাশিত: ডিসেম্বর ৩০, ২০২০; সময়: ১১:৫৯ am |

নিজস্ব প্রতিবেদক : রাজশাহীতে তারের বোঝা বিদ্যুতের খুঁটিজুড়ে। তারের জটলা এমন দৃশ্য রাজশাহী নগরীর বেশির ভাগ পোলগুলোতে। বিদ্যুতের খুঁটিগুলো অনেকটাই তারে খেয়েছে। তারে ঢাকা পড়েছে খুঁটিগুলো। এতে করে প্রতিনিয়তই ঘটছে ছোট-বড় দুর্ঘটনা। ফলে শর্টসার্কিটে অগ্নিকা-ের ঘটনায় ঘণ্টার পর ঘণ্টা বিদ্যুতবিহীন থাকার ঘটনা প্রায়ই। তবে নেসকো বলছে- ‘বিষয়টি তারা মন্ত্রণালয়ে জানিয়েছে। দ্রুতই ব্যবস্থাগ্রহণ করা হবে।’ যদিও ঢাকা দক্ষিণ সিটিতে বিদ্যুতের তার অপসারণ শুরু হয়েছে।

সরেজমিনে দেখা গেছে- নগরীর সাহেববাজার, জিরোপয়েন্ট, আলুপট্টি মোড়, রানীবাজার, লক্ষ্মীপুর মোড়, কোর্ট চত্বরসহ গুরুত্বপূর্ণ এলাকার মোড়গুলোর প্রতিটি বিদ্যুৎ ও ল্যান্ডফোন লাইনের খুঁটিই তারের জটলায়। এই তারগুলোর বড় অংশ ডিস লাইন ও ইন্টারনেট লাইনের। কোন কম্পানির তার কিভাবে পেঁচানো রয়েছে তা বোঝারও উপায় নেই।

বিদ্যুৎ খুঁটিগুলোতে প্রতিনিয়তই ভারাক্রান্ত হচ্ছে তারের জটলায়। ডিশ লাইনের সংযোগ তারের জটের কারণে ঢাকা পড়ে যাচ্ছে বিদ্যুৎ সংযোগ তারগুলো। নগরীর সব এলাকার সড়কগুলোতে বিদ্যুতের খুঁটিতে খুঁটিতে রয়েছে ডিশের তারের জটলা। মূল সড়ক কিংবা গলি সব জায়গাতে তারের জটলা চোখে পড়ে। আবার ডিশ লাইনের বক্সের ভেতরে দেখা যায় পাখির বাসা। এই বাসাতে প্রায় সর্ট সাকির্টে আগুন লাগে।

তবুও সড়কগুলোর বিদ্যুৎ খুঁটিতে ডিশ লাইনের তার অপসারণ করতে নর্দান ইলেকট্রিসিটি সাপ্লাই কোম্পানীর (নেসকো) কোনো পদক্ষেপ নেই। এবিষয়ে নেসকো বলছে, ‘বিষয়গুলো রাজশাহী সিটি করপোরেশনের মেয়রকে জানানো হয়েছে।’

এদিকে, বৈদ্যুতিক খুঁটিতে ডিশ লাইনের তার ঝুলে থাকার কারণে (নেসকো) বিদ্যুৎ লাইনের সংযোগ মাঝে মাঝে বিছিন্ন হওয়ার ঘটনাও ঘটে। নাম প্রকাশ না করার শর্তে নেসকোর এক প্রকৌশলী জানান, বৈদ্যুতিক খুঁটির সঙ্গে ডিশ লাইনের সংযোগ দেয়া সম্পূর্ণ অবৈধ। কারণ খুঁটির সঙ্গে সরকারি বিদ্যুতের তার ছাড়া অন্য কোনো তারের সংযোগ দেয়া যাবে না। যারা ডিশ লাইনের ব্যবসা করছেন তারা নিজের ইচ্ছাতে বিদ্যুতের খুঁটি ব্যবহার করে ডিশ লাইনের সংযোগ দিচ্ছেন। ডিশ সংযোগকারীদের নিষেধ করা হলেও তারা কোনো তোয়াক্কা করে না।

নেসকো আরও জানায়, তারগুলোর কারণে মাঝে মধ্যেই শর্টসার্কিট হচ্ছে। অনেক সময় ট্রান্সফরমারের সঙ্গে লেগে ট্রান্সফরমারে আগুন ধরছে, সেটি আশপাশের বাড়ি বা দোকানে ছড়িয়ে পড়ছে। মহানগরবাসী বলছেন, পরিস্কার-পরিচ্ছন্নতায় রাজশাহী দেশসেরা। পরিচ্ছন্নতার প্রশংসা সকলেই করেন। এতে আমরা গর্বিত। কিন্তু যখন দেখি পরিচ্ছন্ন শহরের সৌন্দর্য্যহানি হচ্ছে তারের জঞ্জালের কারণে, তখন এটি আমাদের খারাপ লাগে। তারের জঞ্জাল ঝুঁকিপূর্ণও বটে। জঞ্জালমুক্ত মহানগরী গড়তে এখই সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে।

রাজশাহী সিটি কর্পোরেশন সূত্র জানিয়েছে, ইন্টারনেট ও স্যাটেলাইট ক্যাবল অপারেটরদের তারের জঞ্জালে সরাতে বারবার তাগিদা দিয়েছে রাজশাহী সিটি কর্পোরেশন কর্তৃপক্ষ। এরপরও তারের জঞ্জাল সরাচ্ছে না তারা। বিভিন্ন বিদ্যুতের খুঁটি ও ল্যাম্পপোস্টের সাথে অতিরিক্ত তার পেচিয়ে রাখছে ইন্টারনেট ও স্যাটেলাইট ক্যাবল অপারেটরা।

রাজশাহীর নেসকোর সার্কেল-১-এর পরিচালনা ও সংরক্ষণ সার্কেল শিরিন ইয়াসমিন বলেন, বৈদ্যুতিক খুঁটিতে ডিশ লাইন সম্পূর্ণ অবৈধ। তাদের অনুমতি দেওয়া হয়নি বৈদ্যুতিক খুঁটিতে ডিশ লাইনের। বিষয়টি রাসিক মেয়রকে জানানো হয়েছে। অতিদ্রুতই ব্যবস্থাগ্রহণ করা হবে।

  • 112
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
উপরে