বাগমারায় যুবককে পিটিয়ে হত্যার চেষ্টার অভিযোগে মামলা

প্রকাশিত: নভেম্বর ২৬, ২০২০; সময়: ৯:০৮ pm |

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক, বাগমারা : রাজশাহীর বাগমারায় মুরাদ হোসেন (২০) নামের এক যুবককে পিটিয়ে হত্যার চেষ্টার অভিযোগ পাওয়া গেছে। আহত যুবক মুরাদ হোসেনকে স্থানীয়রা উদ্ধার করে প্রথমে বাগমারা হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য ভর্তি করে। অবস্থার অবনতি হলে উন্নত চিকিৎসার জন্য রাতেই তাকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য পাঠিয়ে দেন। ওই ঘটনায় আহত যুবক মুরাদ হোসেনের পিতা আয়ুব আলী বাদী হয়ে দুইজনের নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাত চার/পাঁচজনকে আসামী করে বাগমারা থানায় একটি এজাহার দাখিল করেছেন।

থানার এজাহার ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, গত মঙ্গলবার (২৪ নভেম্বর) সন্ধ্যায় উপজেলার গনিপুর ইউনিয়নের গনিপুর গ্রামের আয়ুব আলীর ছেলে মুরাদ হোসেন মঙ্গলের খালে মাছ ধরতে গেলে একই গ্রামের আকরাম হোসেন, আশিক আলীসহ তাদের লোকজন নিয়ে মঙ্গলের খালে যায় এবং মুরাদ হোসেনকে সেখান থেকে ধরে নিয়ে দুবিলা নামক স্থানে নিয়ে যায় এবং মারপিট করে রক্তাক্ত জখম করে। তাদের মারপিটে মুরাদ হোসেনের মুখ দিয়ে রক্ত ঝরতে লাগলে আসামীরা তাকে ফেলে পালিয়ে যায়। বিলে থাকা লোকজন দেখতে পেয়ে সেখানে গিয়ে তাকে থেকে উদ্ধার করে বাগমারা হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য পাঠিয়ে দেয়। সেখানে মুরাদের অবস্থার অবনতি হলে রাতেই তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠিয়ে দেয়।

মুরাদ হোসেনের বাবা আয়ুব আলী অভিযোগ করে বলেন, আকরাম ও তার ছেলে আশিক আলী এলাকার চিহ্নিত অপরাধী। এমন কোন কাজ নেই যে তারা করতে পারে না। সে আমার ছেলেকে হত্যার জন্য খাল থেকে ধরে দুবিলায় নিয়ে গেছে। লোকজন দেখতে না পেলে তারা আমার ছেলেকে হত্যা করে লাশ গুম করত বলে তিনি জানিয়েছেন। তিনি অবিলম্বে হত্যার চেষ্টাকারীদের গ্রেপ্তারের মাধ্যমে আইনের আওতায় আনার দাবী জানিয়েছেন।

এ ব্যাপারে মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে বাগমারা থানায় যোগদানকৃত নব্য অফিসার ইনচার্জ তার ব্যবহৃত ফোনটি রিসিভ করেননি। তবে তদন্তকারী কর্মকর্তা থানার উপ পরিদর্শক (এসআই) রিপন জানান, এজাহারের কপিটি তিনি হাতে পেয়েছেন। ঘটনাস্থল তদন্ত করে প্রকৃত অপরাধীদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে তিনি জানিয়েছেন।

  • 37
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
উপরে