রাজশাহী অঞ্চলে করোনা পরিস্থিতির আরও অবনতি

প্রকাশিত: মে ২৮, ২০২০; সময়: ২:২৫ অপরাহ্ণ |

নিজস্ব প্রতিবেদক : রাজশাহী বিভাগে বেড়েই চলেছে প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা। একদিনে ৬১ জন বেড়ে আক্রান্ত দাঁড়িয়েছে ৭২৩ জনে। বৃহস্পতিবার দুপুরে এ তথ্য জানান রাজশাহী বিভাগীয় স্বাস্থ্য পরিচালক ডা. গোপেন্দ্র নাথ আচার্য্য।

তিনি জানান, গত ১২ এপ্রিল রাজশাহীর পুঠিয়া উপজেলায় বিভাগে প্রথম করোনা শনাক্ত হয়। এরপর এ পর্যন্ত বিভাগের আট জেলায় করোনা শনাক্ত হয়েছে ৭২৩ জনে। এর মধ্যে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ২২১ জন। করোনায় প্রাণ গেছে এ পর্যন্ত ৫ জনের। তবে করোনা জয় করে স্বাভাবিক জীবনে ফিরেছেন ১৯০ জন।

ডা. গোপেন্দ্র নাথ বলেন, রাজশাহী বিভাগে এখন করোনার হটস্পট বগুড়া। এই জেলায় সবমিলিয়ে করোনা আক্রান্ত হয়েছেন ২৪০ জন। এরমধ্যে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনা ধরা পড়েছে ৫২ জনের। ৪০ জন করোনা আক্রান্ত এখন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। করোনা জয় করেছেন ২৬ জন। করোনায় প্রাণ গেছে একজনের। বাকিরা হোম আইসোলেশনে থেকে চিকিৎসা নিচ্ছেন।

বিভাগে আক্রান্তের দিক দিয়ে দ্বিতীয় অবস্থানে রয়েছে জয়পুরহাট। এ জেলায় এখন পর্যন্ত করোনা আক্রান্ত রোগি শনাক্ত হয়েছে ১৬৬ জনের। করোনা জয় করে স্বাভাবিক জীবনে ফিরেছেন ৭০ জন। নওগাঁয় বিভাগে তৃতীয় সর্বোচ্চ ১০৬ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। এর মধ্যে সুস্থ হয়েছেন ৬৩ জন।

গত ২৪ ঘণ্টায় দুইজনের করোনা শনাক্ত হওয়ায় রাজশাহীতে আক্রান্ত দাঁড়াল ৪৬ জনে। এখানকার ৮ করোনা রোগী হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। আর করোনা জয় করেছেন এখানকার ১১ জন। তবে করোনায় প্রাণ হারিয়েছেন দুইজন।

নাটোরে আক্রান্ত সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৫৪ জনে। করোনা জয় করেছেন ৯ জন। করোনায় মারা গেছেন একজন। চাঁপাইনবাবগঞ্জে গত ২৪ ঘণ্টায় তিনজনের করোনা শনাক্ত হওয়ায় আক্রান্তের সংখ্যাটি এখন ৫২। তবে করোনা জয় করেছেন ৩ জন। হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছেন ৮ জন। বাকিরা হোম আইসোলেশনে চিকিৎসা নিচ্ছেন।

গত ২৪ ঘণ্টায় সিরাজগঞ্জে একজন ও পাবনা জেলায় দুইজন করোনা আক্রান্ত শনাক্ত হয়েছে। এ পর্যন্ত সিরাজগঞ্জে ২৫ জন এবং পাবনায় ৩৪ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। এর মধ্যে সিরাজগঞ্জে একজনের প্রাণ গেছে করোনায়। সুস্থ হয়েছেন ৩ জন। আর পাবনায় সুস্থ হয়েছেন ৫ জন।

বিভাগীয় স্বাস্থ্য পরিচালক ডা. গোপেন্দ্রনাথ আচার্য্য বলেন, রাজশাহী বিভাগে গত ১২ এপ্রিল প্রথম করোনা শনাক্ত হয়। এরপর আক্রান্তের সংখ্যাটি প্রতিদিনই বাড়ছে। পরিস্থিতি অবনতিরও আশঙ্কা রয়েছে। তাই এখন মানুষের সচেতনতার কোনো বিকল্প নেই। করোনা মোকাবিলায় মানুষকেও সচেতন হতে হবে। অতি জরুরী প্রয়োজন ছাড়া বাড়ির বাইরে বের হওয়া যাবে না। প্রয়োজনে বের হলে মাস্ক পড়তে হবে। বিশেষ করে সরকারের দেয়া সব নির্দেশনাবলী মানতে হবে। তাহলে পরিস্থিতির উন্নতি হবে।

  • 857
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

আরও খবর

  • এখনো ধোরাছোঁয়ার বাইরে সেই চিকিৎসক
  • অবসরে গেলেন রাবির ১৮ শিক্ষক
  • করোনাকে ভয় করলে ক্ষয়, না করলে জয় : খাদ্যমন্ত্রী
  • বাঘায় করোনায় ইউএনওসহ আরও ১০ জন আক্রান্ত
  • নাটোরের বাগাতিপাড়ায় ট্রেনের ধাক্কায় এক ব্যক্তি নিহত
  • চৌহালীতে ৮০ লাখ টাকা ৮ মেম্বারের পেটে
  • রাবির প্রথম ইমেরিটাস অধ্যাপক এবিএম হোসেন আর নেই
  • পত্নীতলায় বজ্রপাতে আদিবাসী কৃষকের মৃত্যু
  • রাজশাহী বিভাগে নতুন শনাক্ত ২১২, মৃত্যু ৩
  • করোনায় মৃতের ৮০ ভাগই পুরুষ
  • বাবা-মায়ের পাশেই শায়িত হবেন সাহারা খাতুন
  • নলডাঙ্গায় ট্রলি উল্টে যুবকের মৃত্যু
  • টানা ৪ দিন থাকবে ঝড়-বৃষ্টি
  • বিশ্বজুড়ে একদিনে আক্রান্তের সর্বোচ্চ রেকর্ড
  • ব্রাজিলে ৭০ হাজার মানুষের প্রাণ নিয়েছে করোনা
  • উপরে