বাগমারায় দেবরের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানির অভিযোগ

প্রকাশিত: মে ৪, ২০১৯; সময়: ১০:০২ অপরাহ্ণ |
Share This

নিজস্ব প্রতিবেদক : রাজশাহীর বাগমারা উপজেলার মহব্বতপুর গ্রামে পারিবারিক কলহর জের ধরে ছিনতাইয়ের মামলা দিয়ে হয়রানি অভিযোগ উঠেছে। উপজেলার গনিপুর ইউনিয়নের মহব্বতপুর গ্রামে ভাবি জুলেখা বেগমের মিথ্যা মামলায় হয়রানির শিকার হয়ে বাড়ি ছাড়া হয়েছে বলে অভিযোগ করেন মামলার ১ নং আসামী ডিস ব্যবসায়ী মোজাহার আলী। ভুক্তভোগী মোজাহার আলী বাগমারা উপজেলার মহব্বতপুর গ্রামের মৃত আব্দুল প্রামানিকের ছেলে।

জানা গেছে, গত ১৮ এপ্রিল মহব্বতপুর গ্রামে মোজাহার আলীর বাড়ির উঠানে তার বড় ভাই এর ছেলেসহ কয়েক জন ছেলে মেয়ে খেলাধুলা করছিল। এসময় ছেলে মেয়েরা খেলাধুলা করার সময় মারামারি লেগে গেলে মারামারি থামিয়ে দেই মোজাহার আলী ও তার স্ত্রী শহিদা বেগম। এসময় মোজাহার আলীর বড় ভাই আজাহার আলীর স্ত্রী জুলেখা বেগম তার ছেলে কে মোজাহার স্ত্রী গায়ে হাত তুলেছে বলে মোজাহারের স্ত্রী শহিদাকে মারার জন্য তেড়ে আসে। এসময় মোজাহার তার বড় ভাই এর স্ত্রী জুলেখা বেগম কে ধাক্কা দিয়ে তার হাতে থাকা লাঠি কেড়ে নেই।

এই ঘটনা কে কেন্দ্র করে মোজাহারের বড় ভাই এর স্ত্রী জুলেখা বেগম বাদি হয়ে গত ২৫ এপ্রিল রাজশাহী আদালতে ছিনতাইসহ মার পিট করেছে বলে মোজাহার আলীকে ১ নং আসামী করে ও ২ নং শহিদা বেগম, ৩ নং মাইনুল ইসলাম এবং ৪ নং মইজান বেগম কে আসামী করে মিথ্যা মামলা দায়ের করে। এই মিথ্যা মামলায় তারা বাড়ি ছাড়া হয়ে পড়েছে বলে জানান মোজাহার আলী।

এ বিষয়ে বাগমারা থানার ওসি আতাউর রহমান জানান, পারিবারিক কলহের জের ধরে তাদের নিজেদের মধ্যে হাতা হাতি হয়। থানায় অভিযোগ না করে আদালতে মামলা করলে তদন্তের জন্য থানায় পাঠায় আদালত। মামলাটি সঠিক কি না তদন্ত করলে বোঝা যাবে। অপরাধ করলে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে জানান ওসি।

উপরে