রাজশাহী নগরে ২০ হাজার শিশু শিক্ষার বাইরে

প্রকাশিত: জুন ২৫, ২০১৯; সময়: ১০:৫২ pm |

নিজস্ব প্রতিবেদক : রাজশাহী মহানগরীর ২০ হাজার শিশু শিক্ষার বাইরে রয়েছে। মঙ্গলবার রাজশাহী নগরীর একটি রেস্তরাঁয় টেকসই উন্নয়ন অভীষ্ট অর্জনে (এসডিজি) সমাজসেবা অধিদপ্তরের ভূমিকা শীর্ষক এক সেমিনারে এ তথ্য উঠে আসে। এই লক্ষ্য অর্জনে শিশুকল্যাণ বোর্ড সচল করার তাগিদ দেওয়া হয়।

সেমিনারে প্রধান অতিথি ছিলেন রাজশাহী বিভাগীয় কমিশনার নূর-উর-রহমান। এতে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন সমাজসেবা অধিদপ্তরের রাজশাহী বিভাগীয় পরিচালক রাজ্জাকুল ইসলাম। প্রবন্ধের ওপরে আলোচনা করেন রাজশাহী মহানগর পুলিশের উপ-কমিশনার হেমায়েতুল ইসলাম, দৈনিক সোনালী সংবাদের সম্পাদক মো. লিয়াকত আলী, দৈনিক সোনার দেশ পত্রিকার ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক আকবারুল হাসান মিল্লাত ও প্রথম আলোর রাজশাহীর নিজস্ব প্রতিবেদক আবুল কালাম মুহম্মদ আজাদ।

মুক্ত আলোচানায় একজন বক্তা রাজশাহীর শিশুদের শিক্ষার চিত্র তুলে ধরতে গিয়ে বলেন, রাজশাহী নগরের প্রায় ২০ হাজার শিশু শিক্ষার বাইরে রয়েছে। এর পরিপ্রেক্ষিতে প্রধান অতিথি রাজশাহীর শিশুকল্যাণ বোর্ডের কার্যক্রম সম্বন্ধে জানতে চান। কর্মশালায় ওই বোর্ডের সদস্য উপস্থিত ছিলেন। তারা বললেন, এই বোর্ড মূলত সচল নয়, তাদের একটিমাত্র সভা হয়েছে। প্রধান অতিথি এই বোর্ডকে সচল কার তাগিদ দেন।

তিনি বলেন, এসডিজি অর্জন করতে হলে কাউকে পেছনে ফেলে সম্ভব নয়। একইভাবে প্রশ্ন ওঠে রাজশাহী নগরের ভিক্ষুক বেড়ে যাচ্ছে। আলোচানায় সিদ্ধান্ত হয়, নওগাঁ জেলার মডেল অনুসরণ করে রাজশাহীতেও ভিক্ষুককের ভিক্ষা দেওয়া বন্ধ করতে হবে। যারা দান করতে চান তারা মসজিদের বাক্সে এই টাকা জমা দেবেন। একটি নির্দিষ্ট সময় পর সেই টাকা জেলা প্রশাসকের কাছে জমা দিতে হবে। জেলা প্রশাসক সমপরিমান টাকা ওই খাতে দেবেন। সেই টাকা দিয়ে পর্যায়ক্রমে ভিক্ষুকদের পূর্নবাসন করা হবে। আর ভিক্ষুকদের এই কর্মসূচির অর্ন্তভুক্ত করতে হবে। তাদের কাজ করার মানসিকতা তৈরি করতে হবে।

এক প্রশ্নের জবাবে প্রধান অতিথি জানান, ভূগর্ভস্থ পানির চাপ কমানোর জন্য কৃষিতে ভূ-অপরিস্থ পানি ব্যবহারের জন্য সরকারি খাস পুকুরগুলো আর মাছ চাষের জন্য ইজারা না দিয়ে এখন সেচের জন্য কৃষকদের ইজারা দেওয়া হবে।

মুক্ত আলোচনায় অংশ নেন বেসরকারি সংস্থা ডাসকো বাংলাদেশের প্রকল্প সমন্বয়কারী জাহাঙ্গীর আলম খান, রাজশাহীর এস ও এস শিশু পল্লীর প্রকল্প পরিচালক বদরুল মনির, রাজশাহী রক্ষা সংগ্রাম পরিষদের সাধারণ সম্পাদক জামাত খান, সিআরপির রাজশাহীর কেন্দ্র ব্যবস্থাপক সুমা বেগম, বাংলাদেশ সংবাদ সংস্থার রাজশাহীর প্রতিবেদক ড. আয়নাল হক, নগরীর লক্ষ্মীপুর বালিকা বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক ফারুক হোসেন, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষার্থী ইশরাত জাহান প্রমুখ।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
উপরে