পুঠিয়ায় সংবাদ প্রকাশের পর রাস্তা পরিদর্শন করলেন এমপি মনসুর

প্রকাশিত: মে ১১, ২০১৯; সময়: ৫:৩০ pm |

নিজস্ব প্রতিবেদক, পুঠিয়া : গত ৮ মে বুধবার জাতীয় দৈনিক যায়যায়দিন ও অনলাইন পত্রিকা পদ্মাটাইস২৪ডটকমে পুঠিয়ায় রাস্তার সংস্কার কাজ শেষ হতে না হতেই মহাসড়কে ফাটল শিরনামে নিউজ প্রকাশের জেরে শনিবার সকাল সাড়ে ১০ টার দিকে রাজশাহী-ঢাকা মহাসড়কের পুঠিয়া অংশের নির্মান কাজের পরিদর্শন করেন রাজশাহী-৫ (পুঠিয়া-দূর্গাপুর) আসনের সংসদ সদস্য প্রফেসর ডাঃ মোঃ মনসুর রহমান, সড়ক ও জনপথ অধিদপ্তরের নির্বাহী প্রকৌশলী শামসুজোহা, পুঠিয়া উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান জিএম হিরা বাচ্চু, ভাইস চেয়ারম্যান আব্দুল মতিন মুকুল, পুঠিয়া উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ ওলিউজ্জামানদসহ আ’লীগ নেতা আহসানুল হক মাসুদ।

উল্লেখ্য, পুঠিয়া উপজেলা সদরে ঢাকা-রাজশাহী মহাসড়কে রাস্তায় সংস্কার কাজ শেষ না হতেই রাস্তার বিভিন্ন জায়গায় ফাটল দেখা দিয়েছে। এ বিষয়ে সড়ক ভবনের প্রকৌশলী ও ঠিকাদারদের দায়ী করছেন এলকাবাসী। রাজশাহী সড়ক বিভাগের প্রকৌশলীর দপ্তর থেকে জানা গেছে, চলতি অর্থ বছরে উপজেলা সদরে ৭ শত মিটার ও ঝলমলিয়া বাজারে ২ শত ২০ মিটার সড়কে কনক্রীট ঢালাই এবং চাঁপাইনবাবগঞ্জের সাথে একই প্যাকেজে ১১ কোটি ৬৯ লক্ষ টাকায় কাজটি পেয়েছে যশোরের ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান মইন উদ্দিন বাঁশি। ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান ইতিমধ্যে কাজ শেষ করেছে।

পুঠিয়া উপজেলা সদরের ওসমান আলী, মোহাম্মদ আলী ও মফিজ উদ্দিন জানায়, কয়েক দিন আগে রাস্তার কাজ শেষ করেছে। এ কাজের সময় সড়ক বিভাগের প্রকৌশলীর উপস্থিতি কম থাকায় ঠিকাদারের লোকজন ইচ্ছেমত কাজ করে। বৃষ্টির পানির মধ্যেও ঢালাইয়ের কাজ করতে দেখা গেছে। এছাড়া ঢালাইয়ের পরপর পর্যাপ্ত পানি দিয়ে ভিজিয়ে রাখার নিয়ম থাকলেও নাম মাত্র ঢালাইয়ের উপরে তুলার বস্তা দিয়ে পানি ছিটাতে দেখা গেছে। এ সব অবহেলার কারণে ঢালাইয়ের কয়েকদিন না যেতেই বিভিন্ন স্থানে ফাটল দেখা দিয়েছে।

রাজশাহী সড়ক বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী শামসুজোহা জানান, যে ফাটল দেখা দিয়েছে সেটা বড় ধরনের ক্ষতিকর ফাটল না। সিমেন্টে রেশিও বেশি রয়েছে তাই ফাটল দেখা দিতে পারে।

রাজশাহী-৫ (পুঠিয়া-দুর্গাপুর) এর সংসদ সদস্য ডাঃ মনছুর রহমান জানান, বিষয়টি আমার জানা নাই। তবে এমন হয়ে থাকলে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে তদন্তপূর্বক ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য বলা হবে।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
উপরে