বনলতায় খাবার বাতিলে মন্ত্রী-এমপির চিঠি

প্রকাশিত: মে ৫, ২০১৯; সময়: ১০:৪১ pm |

নিজস্ব প্রতিবেদক : রাজশাহী-ঢাকা-রাজশাহী রুটে সদ্য যাত্রা শুরু করা বিরতিহীন ‘বনলতা এক্সপ্রেস’ ট্রেনের টিকেটের সঙ্গে বাধ্যতামূলকভাবে খাবারের মূল্য আদায় না করার আহ্বান জানিয়েছেন পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম ও রাজশাহী সদর আসনের সংসদ সদস্য ফজলে হোসেন বাদশা। রেল মন্ত্রণালয়ে চিঠি দিয়ে তারা এ আহ্বান জানিয়েছেন।

জানা গেছে, পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম রাজশাহী-ঢাকা-রাজশাহী রুটে নতুন যাত্রা শুরু করা আন্ত:নগর বনলতা এক্সপ্রেস ট্রেনে ‘বাধ্যতামূলক’ খাবারের সিদ্ধান্ত পুনর্বিবেচনা চাইলেন। রোববার রেলপথ মন্ত্রণালয়ে এ সংক্রান্ত একটি চিঠি দিয়েছেন রাজশাহী-৬ আসন থেকে নির্বাচিত এই সাংসদ। তথ্যটি নিশ্চিত করেছেন শাহরিয়ার আলম।

তিনি বলেন, “এই সিদ্ধান্তের ফলে যাত্রীদের মধ্যে সেবা নিয়ে নেতিবাচক আলোচনা তৈরি হয়েছে। সরকারের এমন একটি ইতিবাচক উদ্যোগ স্রেফ একটা ছোট বিষয়ের কারণে বিতর্কিত হতে দেয়া ঠিক হবে না। সে কারণে রেলমন্ত্রণালয়কে সিদ্ধান্ত পুনর্বিবেচনার জন্য চিঠি দেয়া হয়েছে।”

অন্য এক প্রশ্নের জবাবে পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী বলেন, “অনেক বিকল্প খোলা আছে। রেল চাইলে সেসবের যেকোনো উপায় ব্যবহার করে খাবারকে ‘ঐচ্ছিক’ করতে পারে। তারা বনলতার বিদ্যমান ক্যাটারিং ব্যবস্থাপনাতেও তা করতে পারেন।”

একই দিন সকালে রাজশাহীর আরেক সংসদ সদস্য এই ইস্যুতে সংবাদ মাধ্যমে বিবৃতি দিয়ে রেলওয়েকে সিদ্ধান্ত পুনর্বিবেচনার আহ্বান জানান। গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতিতে ১৪ দলের শরিক বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির সাধারণ সম্পাদক ফজলে হোসেন বাদশা এমপি বলেন, বিরতিহীন বনলতা এক্সপ্রেস রাজশাহীবাসীর বহুল প্রত্যাশিত একটি ট্রেন। নির্বাচনের আগে আমার ৪৪ দফার অন্যতম ছিলো এই ট্রেন চালুর প্রতিশ্রুতি। ট্রেনটি চালু করার জন্য রাজশাহীর মানুষ প্রধানমন্ত্রীসহ সংশ্লিষ্ট সবাইকে আন্তরিক ধন্যবাদও জানিয়েছেন।

কিন্তু ট্রেনে দেড়শ টাকার বাধ্যতামূলক খাবারের বিষয়টিকে ‘অপ্রয়োজনীয়’ হিসেবে উল্লেখ করে তিনি বলেন, এই সিদ্ধান্তের কারণে অনেকেই ট্রেনটির ব্যাপারে উৎসাহ হারিয়েছেন বলে জানতে পেরেছেন তিনি। এ কারনে যাত্রীদের স্বার্থে সিদ্ধান্তটি পুনর্বিবেচনা করা জরুরি।

বিবৃতিতে তিনি বলেন, এ ব্যাপারে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য রেলপথ মন্ত্রণালয়কে স্থানীয় সংসদ সদস্য হিসেবে শিগগির একটি চিঠি দেবো। আশা করি তারা বিষয়টি পুনর্বিবেচনা করবে।

প্রসঙ্গত, গত ২৫ এপ্রিল প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বাংলাদেশের সর্বাধুনিক ট্রেন বনলতা এক্সপ্রেসের উদ্বোধন করেন। এই ট্রেনে যাত্রীদের একটি করে কেক, মিষ্টি, সবজি রোল, সিংগাড়া এবং ৫০০ মিলিলিটারের পানির বোতল সরবরাহ করা হয়। এ জন্য টিকিটের মূল্যের সঙ্গেই অতিরিক্ত ১৫০ টাকা ধরা হয়। কিন্তু বাধ্যতামূলক এই খাবারের মানের সঙ্গে অতিরিক্ত দাম নিয়ে চলছে সমালোচনা।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
উপরে